banner

শেষ আপডেট ২৪ অক্টোবর ২০২১,  ১২:২৮  ||   রবিবার, ২৪ই অক্টোবর ২০২১ ইং, ৯ কার্তিক ১৪২৮

বাজালিয়া ইউপি চেয়ারম্যান তাপস দত্তের খুঁটির জোর কোথায় ? 

বাজালিয়া ইউপি চেয়ারম্যান তাপস দত্তের খুঁটির জোর কোথায় ? 

৫ অক্টোবর ২০২১ | ২৩:২৯ |    নিজস্ব প্রতিবেদক
  • বাজালিয়া ইউপি চেয়ারম্যান তাপস দত্তের খুঁটির জোর কোথায় ? 

বিশেষ প্রতিবেদক: সাতকানিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক তাপস কান্তি দত্ত । পেট্রোল পাম্প ছাড়াও বিভিন্ন ব্যবসার সাথে জড়িত তাপস কান্তি দত্ত। বাজালিয়া ইউনিয়নের নৌকা মার্কা নিয়ে চেয়ারম্যান হওয়ার পর থেকে তিনি বেপরোয়া হয়ে উঠেন বলে জানা যায়।

এলাকায় আধিপত্য বিস্তার করার জন্য তৃণমুল আওয়ামী লীগকে বিভিন্ন সময় হয়রানি করে আশ্রয় প্রশ্রয় দিচ্ছেন জামাত-শিবির ক্যাডারদের। তাই তৃণমুল আওয়ামী লীগ ও তার অঙ্গসংগঠন ছাত্রলীগ কিংবা যুবলীগ কেউ তার সাথে নাই । নৌকা মার্কা নিয়ে চেয়ারম্যান হওয়ার পর স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতা কর্মীরা তাকে নিয়ে অনেক আশা ভরসা করেছিল। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গ্রামীণ উন্নয়নের সাথে দলের সকল নেতা কর্মীকে মুল্যায়ন করবেন। কিন্তু সেই আশায় ধুলোয় মিটেয়ে দিয়েছে স্বেচ্ছাচারী তাপস কান্তি দত্ত।

বরং ভাড়াটিয়া জামাত শিবির এনে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীকে মেরে ফেলার পরিকল্পনা করেন বেশ কয়েকবার। বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় সেই সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে। সংগঠনের শৃঙ্খলা ভঙ্গের জন্য সাতকানিয়া থানা আওয়ামী লীগকে লিখিতভাবে অভিযোগ করেছিল খোদ বাজালিয়া ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো: শহীদুল্লাহ চৌধুরী। তার দলীয় লোকদের দিয়ে শঙ্খ নদী থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনসহ নানা ধরণের অনিয়মের সাথে জড়িয়ে আছে চেয়ারম্যান তাপস কান্তি দত্ত ও তার শিবির ক্যাডার বাহিনী।এই বিষয়ে পত্র-পত্রিকায় অনেক লেখা-লেখি হলেও প্রশাসনের দৃষ্টি পড়েনি। কেন কি কারণে প্রশাসন তাপস কান্তি দত্তের কাছে দুর্বল তা জন সাধারণের প্রশ্ন।

এক গোপন সুত্রে জানা গেছে , তিনি নাকি সহকারী পুলিশ সুপার সাতকানিয়া সার্কেলকে প্রতিনিয়ত ম্যানেজ করার কারণে প্রশাসন  ওই এলাকায় দৃষ্টি দিচ্ছে না। এলাকায় এমনও গুঁজব শুনা যায়, সার্কেল সাহেবের বাসার এসিটি নাকি তাপস কান্তি দত্তের দেওয়া উপহার। যা কিছু রটে তা কিছু না কিছু বঠে বলে বিজ্ঞ জনের অভিমত।

অভিযোগ রয়েছে, চেয়ারম্যান তাপসকান্তি দত্তের তেলে পাম্পে নাকি সব সময় ওজনে কম দেয়।  দি ক্রাইমের প্রতিবেদক তার তেলের পাম্পে এক লিটার তেল কিনতে চাইলেই কিছুতেই তারা এক লিটার তেল বিক্রি করবে না। বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম কর্পোরেশনের কিছু অসাধু কর্মকর্তা নাকি এই ওজনে কম দেওয়ার সাথে জড়িত বলে জানা যায়। উপর থেকে কোন টিম তেলের পাম্প মনিটরিং করতে গেলে তাদের আগে-বাগে জানিয়ে দেয়। এই বিষয়ে প্রতিবাদ করতে গিয়ে এক পরিবহন শ্রমিককে নাকি মারধরও করেন। ওই পরিবহন শ্রমিক পরে চেয়ারম্যান  তাপস কান্তি দত্তের নামে মামলাও করেছিল।

সূত্রে জানা গেছে, পাহাড় থেকে  প্রতিনিয়ত চোলাইমদ ও অবৈধ সেগুন কাঠ বাজালিয়া দিয়ে দেশের বিভিন্ন স্থানে তার সিন্ডিকেটের মাধ্যমে পাচার হচ্ছে নিয়মিত।  বান্দারবানের লাগুয়া ইউনিয়ন হওয়াতে অনেক পাহাড়ী শান্তি বাহিনীর সাথে ও চেয়ারম্যান তাপস কান্তি দত্তের লোকের সাথে উঠা-বসা করছে বলে অভিযোগ রয়েছে। বিষয়টি প্রশাসনের দৃষ্টি দেওয়া উচিত বলে এলাকার মানুষ মনে করেন। বাইতুল ইজ্জত বিজিবি ট্রেনিং সেন্টার যদি পাহাড়ী সন্ত্রাসীদের আনা-গোনা বাজলিয়ায় দেখা যায় তাহলে এটা দেশের স্থিতিশীলতার ক্ষেত্রে প্রশ্ন দেখা দিতে পারে।

সরকার কর্তৃক এলাকায় যে সকল উন্নয়ন কর্মকান্ড বাস্তবায়ন হয়েছে তা কিন্তু সঠিকভাবে হয়নি। ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নের লক্ষ্যে সরকার প্রত্যেকটি ইউনিয়নের কর্মকান্ড ইন্টারনেটে তথ্য দেওয়ার কথা থাকলেও আসলে ইউনিয়ন পরিষদের ওয়েব সাইটে কোন ডাটায় নাই। তার কারণ হল, কাজ করেনি কোন রকমে বিল দিয়ে টাকা জায়েস করেছে। যদি জনসম্মুখে বাজালিয়া ইউনিয়নের সকল উন্নয়ন কর্মকান্ড তুলে ধরা হয় তাহলে থলের বিড়াল বেরিয়ে আসবে বলে বাজালিয়ার তরুণ সমাজ মনে করেন। এছাড়াও গর্ভবতী ভাতা, বয়স্ক ভাতা, প্রতিবন্ধী ভাতা, বিজিডি কার্ড, জন্ম নিবন্ধন কোথায় নাই স্বজনপ্রীতি আর অনিয়ম ?

তাপস কান্তি দত্তের খুঁটির জোর কোথায় ? 

তিনি প্রথমে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতা আমিনুল ইসলাম আমিনের সাথে খুব ভাল সর্ম্পক ছিল। যখন বিপ্লব বড়ুয়া কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী হন তখন থেকে এই তাপস কান্তি দত্ত আ.লীগের তৃনমূল নেতাদের পাত্তায় দিচ্ছেন না। তিনি এখন ধরাকে সরাজ্ঞান করেই চলছে। খোদ আওয়ামী লীগের তৃণমুলের নেতা-কর্মীরাই বেশী লাঞ্চিত হতে থাকে তার কাছে ।

বাজালিয়ার জন সাধারণের অভিমত,  তাহলে কি তাপস কান্তি দত্তের খুঁটির জোর বিপ্লব বড়ুয়া ? এই বিষয়ে এলাকার ভোক্তভোগী জন-সাধরণ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দৃষ্টি কামনা করেন।

বাদী আবু সুফিয়ান পিতা- মুহাম্মদ কবির চৌধুরী, গ্রাম-বাজালিয়া,মীরপাড়া,সাতকানিয়া, চট্টগ্রাম, মোবাইল নং- ০১৬২১-৯১৮৩৮৬ জানতে চাইলে তিনি বলেন, এত মামলার করার পরও প্রশাসন নীরব, আমরা বিচার পাবো কোথায় ? অন্য মামলার বাদী রফিক আহমদ পিতা- আলী আহমদ, বাজালিয়া, সাতকানিয়া, চট্টগ্রাম এবং নুরুল ইসলাম সিকদার, পিতা- মৃত বদিউর রহমান সিকদার, গ্রাম- বাজালিয়া, সাতকানিয়া, চট্টগ্রাম। তাপস কান্তি দত্ত ও তার শিবির ক্যাডার বাহিনীর বিরুদ্ধে অতিষ্ঠ হয়ে প্রশাসনের আশ্রয় নিয়েছেন।

মামলার কাগজ পত্র পর্যালোচনা করে দেখা গেছে, সাতকানিয়া থানার এস আই আহসান হাবীব বিপি-৭৮৯৮০০৫২৪২, মোবাইল নং- ০১৮১৯-০১৮২৩৮, মো: আবুল কালাম আজাদ- বিপি-৮০০৬০৯৮৪২৩ ইন্সেপেক্টর (তদন্ত) আনোয়ার হোসেন -৭২৯৬০৯৬৭৫৫,
ইন্সেপেক্টর(নিরস্ত্র)। সাব- ইন্সেপেক্টর(নিরস্ত্র) তাপস চন্দ্র মিত্র, বিপি-৭৭৯৬০৪৬০৫১, মোবাইল নং- ০১৭১১০৬৮১৯১, মো: আবুল কালাম আজাদ- বিপি-৮০০৬০৯৮৪২৩ । মামলা গুলো তদন্ত করে কোর্টে চার্জসিট পাঠিয়ে দিয়েছেন।

তাপস কান্তি দত্তের নামে বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় যে সংবাদ প্রকাশত হয়েছে তার শিরোনাম  দেওয়া হলঃ-

জামায়াত নেতা-চেয়ারম্যানের নির্দেশে ছাত্রলীগ নেতা হত্যার মিশন , দৈনিক যুগান্তর, ০২ জুন-২০২০ইং । চেয়ারম্যানের পরিকল্পনায় আওয়ামী-ছাত্রলীগ নেতাকে গত্যার পরিকল্পনা ফাঁস। দেশ বাংলা,  ২ জুন, ২০২০ইং । অস্ত্র-খুনী সবই প্রস্তত! চেয়ারম্যানের কর্তৃত্বে আ.লীগ-ছাত্রলীগ নেতাকে হত্যার নীল নকশা ফাঁস- সি প্লাস- ২ জুন, ২০২০ইং।

 চট্টগ্রামে ছাত্রলীগ নেতাকে হত্যার পরিকল্পনা ফাঁস : আটক ২, দৈনিক আজকালের খবর, ২ জুন, ২০২০ইং । সাতকানিয়ায় আ.লীগ ও ছাত্রলীগ নেতাকে হত্যার পরিকল্পনা ফাঁস, দৈনিক পূর্বদেশ, ৩ জুন, ২০২০ইং। চেয়ারম্যানের পরিকল্পনায় আ.লীগ-ছাত্রলীগ নেতাকে হত্যার পরিকল্পনা ফাঁস, একুশে পত্রিকা. ৩ জুন, ২০২০ইং। ছাত্রলীগ নেতাকে হত্যা রতে শিবির ক্যাডারকে কন্ট্রাক্ট ! , বাংলা নিউজ ( চট্টগ্রাম প্রতিদিন পাতা), ২জুন, ২০২০ইং চাউল পাবে আশায় মানববন্ধনে এসে খালি হাতে ফিরল দুস্থরা, দৈনিক পূর্বকোণ, ২৪ আগষ্ট-২০২০ইং।

চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অভিযোগ- চাল দেয়ার কথা বলে করানো হল মানববন্ধন, দৈনিক আজাদী, ২৪ আগষ্ট-২০২০ইং। পরিবহন শ্রমিককে মারধরের মামলায় আসামি বাজালিয়া ইউপি চেয়ারম্যান, দৈনিক পূর্বকোণ, ২৯ জুন ২০১৬ইং। সাতকানিয়ায় ছাত্রলীগ কর্মীকে কোপাল“চেয়ারম্যানের লোকজন” , বাংলা নিউজ(চট্টগ্রাম প্রতিদিন পাতা) , ২১ আগষ্ট-২০২০ইং। সন্ত্রাসীদের কিরিচের কোপে দুই হাত হারাতে বসেছে ছাত্রলীগ নেতা তৌহিদ, দৈনিক আজাদী, ২১ আগষ্ট ২০২০ইং ।

সাতকানিয়ায় মামলা তুলে নিতে আবারও ছুরিকঘাত ছাত্রলীগ নেতাকে, দৈনিক পূর্বকোণ, ৪ ডিসেম্বর-২০২০ইং।  সাতকানিয়া বাজালিয়ায় চট্টগ্রাম মহানগর যুবলীগ নেতা প্রশান্ত চৌধুরী যীশুর গ্রামের বাড়ীতে হামলার অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় ইউনিয়ন চেয়ারম্যানে বিরুদ্ধে, ১ জুন, ২০২০ইং। প্রশাসনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে অবৈধ বালু উত্তোলন, দৈনিক পূর্বকোণ, ৭ মার্চ ২০১৯ইং।

বাজালিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সাতকানিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি/সাধারণ সম্পাদক বরাবরে “ সাতকানিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক ১৩নং বাজালিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তাপস কান্তি দত্তের বিরুদ্ধে সংগঠনের বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির জন্য সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণের আবদেন করেন বাজালিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক লায়ন শহীদুল্লাহ চৌধুরী, তারিখ-৩০-০৫-২০২০ইং। পরিচালক র‌্যাব-৭, বরাবরে শিবির ক্যাডার, সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে বাজালিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক লায়ন শহীদুল্লাহ চৌধুরীর আবেদন ,  মোবাইল নং- ০১৮৩৩-৭০৩৮৩০, তারিখ- ১২-৭-২০২০ইং রিসিভ নং-৩৭৮০।

তাপস কান্তি দত্ত  ও তার অনুসারিদের মামলার তালিকাসমুহ : 

তাপস কান্তি দত্ত, পিতা-মৃত পুলীন কান্তি দত্ত, ঠিকানা:  গ্রাম-বাজালিয়া, ওয়ার্ড নং- ৩, সাতকানিয়া, চট্টগ্রাম । সাতকানিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক এবং চেয়ারম্যান ১৩নং বাজালিয়া ইউনিয়ন পরিষদ ১.      সাতকানিয়া থানা মামলা নং- ২৫(৬)২০১৬ইং, ধারা-১৪৯/৩৪১/৩২৩/৩২৫/৩২৬/৩০৭/৩৭৯/৫০৬ দঃবিঃ ২.সাতকানিয়া থানা মামলা নং- ১৬(১২)২০১৮ইং রা- ১৪৯/৩৪১/৩২৩/৩২৫/৩২৬/৩০৭/৩৭৯/৫০৬ দঃবিঃ ৩. সাতকানিয়া থানা মামলা নং- ২০(০৮) ২০২০ ইং ধারা-১৪৩/৩৪১/৩২৩/৩২৬/৩০৭/৫০৬দঃবিঃ৪.সাতকানিয়া থানা মামলা নং- ১৩(১২)২০২০ইং ধারা – ১৪৩/৩২৩/৩২৪/৩২৬/৩০৭/৫০৬ দঃবিঃ ।

পারভেজ আলম , পিতা- আবু সৈয়দ, ঠিকানা- গ্রাম-বাজালিয়া, ওয়ার্ড নং- ৫,সাতকানিয়া, চট্টগ্রাম ।
১.      সাতকানিয়া থানা মামলা নং-২৬(০৬)২০১৮ইং , ধারা-১৪৩/১৪৭/৩২৩/৩২৫/৩২৬/৩০৭/৫০৬/৩৪ দঃবিঃ ২.       সাতকানিয়া থানা মামলা নং-২০(১১)২০১৮ইং , ধারা-১৪৩/৪৪৮/৩২৩/৩৫৪/৪২৭/৫০৬ দঃবিঃ ৩. সাতকানিয়া থানা মামলা নং-১৬(১২)২০১৮ইং , ধারা-১৪৩/৩২৩/৩২৪/৩২৬/৩০৭/৫০৬/৩৪ দঃবিঃ ৪.সাতকানিয়া থানা মামলা নং-০৩(০৫)২০২০ইং ,ধারা-১৪৩/৪৪৮/৩২৩/৩২৫/৩২৬/৩০৭/৩৭৯/৪২৭/৫০৬ দঃবিঃ ৫.সাতকানিয়া থানা মামলা নং-১৩(১২)২০২০ইং , ধারা-১৪৩/৩২৩/৩২৪/৩২৬/৩০৭/৫০৬/৩৪ দঃবিঃ ৬.   সাতকানিয়া থানা মামলা নং-১১(১১)২০২০ইং , ধারা-৩৭৯/৫০৬(০২)/৩৪ দঃবিঃ ।

মাসুদুল আলম চৌধুরী. পিতা- রফিক আহমদ চৌধুরী, ঠিকানা- গ্রাম- বাজালিয়া, ওয়ার্ড নং-৪, বাজালিয়া, সাতকানিয়া, চট্টগ্রাম। ১.সাতকানিয়া থানা মামলা নং-০২(০৬)২০২০ইং , ধারা-১৪৩/৩৪১/৩২৩/৩৭৯/১০৯/৫০৬ দঃবিঃ ২.  সাতকানিয়া থানা মামলা নং-২০(০৮)২০২০ইং , ধারা-১৪৩/৩৪১/৩২৩/৩২৬/৩০৭/৫০৬ দঃবিঃ ৩.    সাতকানিয়া থানার নন এফ.আই.আর নং- ২৬, তারিখ- ২১-০৮-২০২০ইং, ধারা-৫০৬ দঃবিঃ।

 রাশেদুল আলম চৌধুরী, পিতা- রফিক আহমদ, ঠিকানা: গ্রাম-বাজলিয়া, ওয়ার্ড নং -০৪, বাজালিয়াা, সাতকানিয়া, চট্টগ্রাম। ১. সাতকানিয়া থানা মামলা নং-০২(০৬)২০২০ইং , রা-১৪৩/৩৪১/৩২৩/৩৭৯/১০৯/৫০৬ দঃবিঃ ২.সাতকানিয়া থানা মামলা নং-২০(০৮)২০২০ইং , ধারা-১৪৩/৩৪১/৩২৩/৩২৬/৩০৭/৫০৬ দঃবিঃ ৩.সাতকানিয়া থানার নন এফ.আই.আর নং- ২৬, তারিখ-২১-০৮-২০২০ইং,ধারা-৫০৬দঃবিঃ৪.সাতকানিয়া থানা মামলানং-১৪(১১)২০১৩ইং , ধারা-১৪৩/৩২৩/৩৫৩/১৮৬দঃবিঃ তৎসহ ১৯৭৪ সালের বিশেষ ক্ষমতা আইনের১৫(৩) এবং বিস্ফোরক উৎপাদনাবলী আইনের৩/৪ ধারা।

শাকিল মাহমুদ শাওন, পিতা- জামাল আহমেদ, ঠিকানা: গ্রাম-বাজলিয়া, ওয়ার্ড নং -০৪, বাজালিয়াা, সাতকানিয়া, চট্টগ্রাম। ১.সাতকানিয়া থানা মামলা নং-১২(১১)২০১৭ইং , ধারা-৩৬৫/৩৮৬/৩৪ দঃবিঃ ২.সাতকানিয়া থানা মামলা নং-২৭(০৮)২০১৮ইং , ধারা-১৪৩/৩২৩/৩২৪/৩০৭/৩৭৯/৫০৬/১১৪ দঃবিঃ ৩.সাতকানিয়া থানা মামলা নং-২৪(০৬)২০১৮ইং , ধারা-১৪৩/৩৪১/৩২৩/৩০৭/৩৭৯/৪২৭/৫০৬ দঃবিঃ ৪.সাতকানিয়া থানা মামলা নং-১২(০১)২০১৯ইং , ধারা-১৪৩/৩২৩/৩২৪/৩২৬/৩০৭/৩৭৯/৫০৬ দঃবিঃ  ৫.সাতকানিয়া থানা মামলা নং-২৪(০২)২০২০ইং , ধারা-২০১৮ সনের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনের ৩৬(১) এর ১০(ক) ৬.সাতকানিয়া থানা মামলা নং-১৩(১২)২০২০ইং , ধারা-১৪৩/৩২৩/৩২৪/৩২৬/৩০৭/৫০৬/৩৪ দঃবিঃ ৭.  সাতকানিয়া থানা মামলা নং-১১(১২)২০২০ইং , ধারা-৩৭৯/৫০৬(২)৩৪ দঃবিঃ।

মিজবাহ উদ্দিন জিসান, পিতা- জামাল আহমদ, ঠিকানা: গ্রাম-বাজলিয়া, ওয়ার্ড নং -০৪, বাজালিয়াা, সাতকানিয়া, চট্টগ্রাম। ১. সাতকানিয়া থানা মামলা নং-১২(১১)২০১৭ইং , ধারা-৩৬৫/৩৮৬/৩৪ দঃবিঃ ২.সাতকানিয়া থানা মামলা নং-২৭(০৮)২০১৮ইং , ধারা-১৪৩/৩২৩/৩২৪/৩০৭/৩৭৯/৫০৬/১১৪ দঃবিঃ ৩.  সাতকানিয়া থানা মামলা নং-২৪(০৬)২০১৮ইং , ধারা-১৪৩/৩৪১/৩২৩/৩০৭/৩৭৯/৪২৭/৫০৬ দঃবিঃ ৪.সাতকানিয়া থানা মামলা নং-১২(০১)২০১৯ইং , ধারা-১৪৩/৩২৩/৩২৪/৩২৬/৩০৭/৩৭৯/৫০৬ দঃবিঃ ৫.সাতকানিয়া থানা মামলা নং-২৬(০৮)২০১৮ইং , ধারা-১৪৩/৩২৩/৩২৪/৩২৬/৩০৭/৩৭৯/৫০৬ দঃবিঃ।

 প্রমিজ চৌধুরী, পিতা-দিলীপ চৌধুরী, ঠিকানা: গ্রাম-বাজলিয়া, ওয়ার্ড নং-০৩, বাজালিয়াা, সাতকানিয়া, চট্টগ্রাম।
১. সাতকানিয়া থানা মামলা নং-২৪(০৮)২০১৮ইং , ধারা-১৪৩/৩২৩/৩২৪/৩০৭/৪২৭/৫০৬ দঃবিঃ ২.  সাতকানিয়া থানা মামলা নং-২০(০৮)২০২০ইং , ধারা-১৪৩/৩৪১/৩২৩/৩২৬/৩০৭/৫০৬ দঃবিঃ ৩. সাতকানিয়া থানার নন এফ.আই.আর নং-২৬ , তারিখ – ২১-০৮-২০২০ইং , ধারা-৫০৬ দঃবিঃ ।

রিপন দাশ, পিতা- মৃদুল দাশ, ঠিকানা: গ্রাম-বাজলিয়া, ওয়ার্ড নং -০২,বাজালিয়াা, সাতকানিয়া, চট্টগ্রাম।
১. সাতকানিয়া থানা মামলা নং-২৪(০৮)২০১৮ইং , ধারা-১৪৩/৩২৩/৩২৪/৩০৭/৪২৭/৫০৬ দঃবিঃ ২.সাতকানিয়া থানা মামলা নং-১৩(১২)২০২০ইং , ধারা-১৪৩/৩২৩/৩২৪/৩০৭/৪২৭/৫০৬ দঃবিঃ ৩. সাতকানিয়া থানা নন এফ.আই. আর নং- ২৬, ধারা- ৫০৬ দঃবিঃ ।

রনি দাশ, পিতা- কাজল দাশ, ঠিকানা: গ্রাম-বাজলিয়া, ওয়ার্ড নং -০৩, বাজালিয়াা, সাতকানিয়া, চট্টগ্রাম।
১. সাতকানিয়া থানা মামলা নং-১৩(১২)২০২০ইং , ধারা-১৪৩/৩২৩/৩২৪/৩০৭/৪২৭/৫০৬ দঃবিঃ ২. সাতকানিয়া থানা মামলা নং-২৪(০৮)২০১৮ইং , ধারা-১৪৩/৩২৩/৩২৪/৩২৬/৩০৭/৫০৬/৩৪ দঃবিঃ ।

১৯.০৮.২০২১ সালে আহমদ হোসেন চৌধুরী, মোবাইল নং- ০১৮৬২৭৭৫০৭২, খাল ও পানি চলাচলের স্থানে মাটি ভরাট করে বাণিজ্যিক স্থাপনা নির্মাণের বিরুদ্ধে সাতকানিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবের আবেদন করেন।

দি ক্রাইমের অনুসন্ধানে দেখা যায়, বাইতুল ইজ্জত বিজিবি ট্রেনিং সেন্টারের পূর্ব দিকে সত্যপীরের মাজারের পূর্ব দিকে চট্টগ্রাম ও বান্দরবান সড়কের পাশে ছোট্ট একটা ব্রীজ। এই ব্রীজ দিয়ে ছদাহা-পদুয়া ইউনিয়নের পাহাড়ের সব পানি প্রবাহিত হয়ে থাকে। উক্ত পানির স্রোত মিলিত হয়েছে হাঙ্গর ও  কাটাখালি খালের সাথে। এই স্রোতের উপরের দিকে রয়েছে বড়দুয়ারা, মাহালিয়া, ছদাহা, ছক্কা কোদালা এবং পদুয়া এলাকার হাজার হাজার একর জমি। উক্ত খালটির মুখে যদি স্থায়ী স্থাপনা নির্মাণ হয় তাহলে কৃষকের কৃষি কাজে ব্যাপক ক্ষতি হবে। এলাকার কৃষি উন্নয়নের স্বার্থে উক্ত খালের মুখে কিছুতেই স্থাপনার নির্মাণ করা উচিত নয় বলে স্থানীয় জন সাধারণের অভিমত। উক্ত খালের মুখে স্থাপনা তৈরী করার জন্য মাটি ভরাট করেছেন তিনি ।

সরেজমিনে তদন্তে আরো জানা গেছে, উক্ত স্থাপনাটি স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তাপস কান্তি দত্তের। উনার সাথে যোগাযোগ করতে চাইলে এলাকার লোক জন জানান উনি চট্টগ্রাম শহরে থাকেন। আগে নিয়মিত আসলেও এখন সকালে এসে বিকালে চলে যায়।