banner

শেষ আপডেট ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১,  ১৯:৫৯  ||   শনিবার, ১৮ই সেপ্টেম্বর ২০২১ ইং, ৩ আশ্বিন ১৪২৮

এলপিজি সিলিন্ডারের দাম বৃদ্ধির সুপারিশ : লেবার পার্টির তীব্র নিন্দা

এলপিজি সিলিন্ডারের দাম বৃদ্ধির সুপারিশ : লেবার পার্টির তীব্র নিন্দা

১৪ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ১৭:২২ |    নিজস্ব প্রতিবেদক
  • এলপিজি সিলিন্ডারের দাম বৃদ্ধির সুপারিশ : লেবার পার্টির তীব্র নিন্দা

নিজস্ব প্রতিবেদক ::
১২ কেজির এলপিজির সিলিন্ডারের দাম ৬৫ টাকা বৃদ্ধির সুপারিশ করে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন গঠিত কারিগরি কমিটির সিদ্ধান্তের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশ লেবার পার্টি।
আজ মঙ্গলবার ( ১৪ সেপ্টেম্বর) বাংলাদেশ লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডাঃ মুস্তাফিজুর রহমান ইরান ও ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব লায়ন ফারুক রহমান একযৌথ বিবৃতিতে বলেন, সরকারি উদ্যোগে পর্যাপ্ত সিলিন্ডার গ্যাস উৎপাদন না করে একচেটিয়া সিন্ডিকেট ব্যবসায়ীদের মাধ্যমে জনগণের পকেট কেটে লুটেরাদের পকেট ভারী করার সুযোগ করে দিচ্ছে সরকার।
অথচ যথাযথভাবে গ্যাস উত্তোলন করে সরকারি উদ্যোগে সাশ্রয়ী দামে ঘরে ঘরে গ্যাস সরবরাহ করা সম্ভব। কিন্তু সরকার সেই পথে না হেঁটে, জনগণের স্বার্থের বিপরীতে লুটেরাদের স্বার্থরক্ষার পথে হাঁটছে। যেখানে স্বয়ং সরকারি সংস্থাই বলছে, বড় জাহাজে করে গ্যাস আনা গেলে সিলিন্ডার প্রতি ৩০০-৪০০ টাকা কম রাখা সম্ভব, সেখানে আবারও বিইআরসির মাধ্যমে মূল্যবৃদ্ধির ঘোষণা দিয়ে, সরকার ব্যবসায়ীদের অনৈতিক ও অতিরিক্ত মুনাফার সুযোগ করে দিচ্ছে।
বিদেশ থেকে গ্যাস আমদানি করা হচ্ছে জনগণের স্বার্থে নয়, লুটপাটের স্বার্থে মন্তব্য করে নেতৃদ্বয় বলেন, বছরজুড়ে সাশ্রয়ী ও নির্ধারিত মূল্যে নিরাপদ সিলিন্ডার মানুষের কাছে পৌঁছাতে বিদেশ থেকে এলপিজি আমদানি ও ব্যবসায়ীদের ওপর নির্ভরশীল হয়ে জনগণের স্বার্থরক্ষা করা যাবে না। এজন্য দেশের স্থল ও সমুদ্রভাগের গ্যাস অনুসন্ধান ও উত্তোলন করতে হবে। সরকারি উদ্যোগে সিলিন্ডার গ্যাস উৎপাদন ও সরবরাহ করতে হবে। করোনার আক্রমণে জনজীবন বিপন্ন। বেকারত্ব ও দারিদ্র্যতা বাড়লেও সরকারি দলের নেতা আর লুটেরাগোষ্ঠীর লুটপাট অব্যাহত রয়েছে। এর মধ্যেই চলছে সরকারের মূল্যবৃদ্ধির আগ্রাসন। চাল-ডাল, ভোজ্যতেল, চিনি, আটা-ময়দাসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্যবৃদ্ধিতে মানুষ যখন অতিষ্ট, তখন এলপিজি গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধি জনজীবনকে আরও দুর্বিষহ করে তুলেছে।
তাই এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন গঠিত কারিগরি কমিটির জনবিরোধী সুপারিশ প্রত্যাহারের আহবান জানাই।