banner

শেষ আপডেট ১৩ জুলাই ২০২১,  ২০:০৫  ||   বৃহষ্পতিবার, ২৯ই জুলাই ২০২১ ইং, ১৪ শ্রাবণ ১৪২৮

মেহেরপুরে ১৫ দিনের ‘লকডাউন’

মেহেরপুরে ১৫ দিনের ‘লকডাউন’

২৩ জুন ২০২১ | ১৩:১৯ |    নিজস্ব প্রতিবেদক
  • মেহেরপুরে ১৫ দিনের ‘লকডাউন’

মেহেরপুরে দিন দিন করোনার সংক্রমণ বাড়ায় পুরো জেলাকে ১৫ দিনের ‘লকডাউন’ ঘোষণা করা হয়েছে। গত মঙ্গলবার (২২ জুন) দুপুরে মেহেরপুর জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির উদ্যোগে ভার্চ্যুয়াল আলোচনা সভা শেষে জেলা প্রশাসক ড. মুসুর আলম খান আগামী বৃহস্পতিবার (২৪ জুন) সকাল ৬টা থেকে ১৫ দিনের ‘লকডাউন’ ঘোষণা করেন।

জেলা প্রশাসক ড. মুহাম্মদ মুনসুর আলম খানের সভাপতিত্বে সভায় আরও বক্তব্য রাখেন- জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান গোলাম রসূল, পুলিশ সুপার এস এম মুরাদ আলি, সিভিল সার্জন ডা. মো. নাসির উদ্দিন, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট ইয়ারুল ইসলাম, গাংনী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এম এ খালেক, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাসুদুল আলম, মুজিবনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুজন সরকার, গাংনী পৌর মেয়র আহমেদ আলী, মেহেরপুর জেলা বিএমএ’র সাধারণ সম্পাদক ডা. আবু তাহের সিদ্দিক, আমঝুপি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বোরহান উদ্দিন আহমেদ চুন্নু, বাগোয়ান ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আইয়ুব হোসেন, মেহেরপুর জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক অ্যাডভোকেট ইব্রাহিম শাহীন, মেহেরপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি ফজলুল হক মন্টু, সাধারণ সম্পাদক আল-আমিন হোসেন, মেহেরপুর জেলা শিল্প ও বণিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আরিফুল এনাম বকুল, মেহেরপুর বড় বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি মনিরুজ্জামান দিপু, মেহেরপুর হোটেল বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জাহিদ ইকবাল শিমুল প্রমুখ।

সভায় সর্বসম্মতিক্রমে আগামী ২৪ জুন থেকে ১৫ দিনের জন্য পূর্ণ ‘লকডাউন’ ঘোষণা করা হয়। ‘লকডাউন’ চলাকালে মেহেরপুরে আন্তঃজেলার সব গণপরিবহন, চায়ের দোকান, ইজিবাইক, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে। শুধুমাত্র ওষুধের দোকান খোলা রাখা যাবে। সকাল ৬টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত কাঁচা বাজার ও মুদি দোকান খোলা থাকবে।

চলতি মাসের ১০ জুন থেকে ২২ জুন পর্যন্ত মেহেরপুর জেলায় সাড়ে তিনশ মানুষ করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। এ সময় মারা গেছেন ৩৫ জন।

সিভিল সার্জন ডা. মো. নাসির উদ্দীন জানান, বর্তমানে মেহেরপুর জেলায় করোনা পজিটিভ কেইসের সংখ্যা ৩৩৫ জন। এদের মধ্যে সদর উপজেলায় ১২৮ জন, গাংনী উপজেলায় ১২৭ ও মুজিবনগর উপজেলায় ৮০ জন। জেলায় মারা গেছেন ৩৫ জন। এদের মধ্যে মেহেরপুর সদর উপজেলায় ১৩ জন, গাংনী উপজেলায় ১৪ ও মুজিবনগর উপজেলায় ৮ জন। এ সময় জেলাতে সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ১৭ জন। এদের মধ্যে সদর উপজেলায় ৫৬৫ জন, গাংনী উপজেলায় ৩৩১ ও মুজিবনগর উপজেলায় ১২১ জন।