banner

শেষ আপডেট ২৪ অক্টোবর ২০২১,  ১২:২৮  ||   রবিবার, ২৪ই অক্টোবর ২০২১ ইং, ৯ কার্তিক ১৪২৮

বায়োগ্যাস প্রযুক্তি প্রসারের জন্য সরকারকে ভর্তুকি দিতে হবে – বক্তরা

বায়োগ্যাস প্রযুক্তি প্রসারের জন্য সরকারকে ভর্তুকি দিতে হবে – বক্তরা

১৩ অক্টোবর ২০২১ | ১২:১৩ |    নিজস্ব প্রতিবেদক
  • বায়োগ্যাস প্রযুক্তি প্রসারের জন্য সরকারকে ভর্তুকি দিতে হবে – বক্তরা

নিজস্ব প্রতিবেদক : গতকাল আজ ১২ অক্টোবর মঙ্গলবার বিকেল পাঁচ টায় আইইবি সদর দফতরের কাউন্সিল হলে Clean Energy Production from Agricultural residues Available in Bangladesh : Development & Application শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়।
সেমিনারে প্রধান অতিথি, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী অধ্যাপক ড. শামসুল আলম বলেন, রুপকল্প ২০২১ ও ২০৪১ বাস্তবায়নের জন্য বিদ্যুৎ খাতের উন্নয়ন এবং ২০৩০ সালের মধ্যে ২০ ভাগ নবায়ণযোগ্য শক্তি তথা গ্রীণ এনার্জিকে গুরুত্ব দিতে হবে। সার্কুলার কৃষির দিকে নগর দিতে হবে।
সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপক, বাংলাদেশ কৃষি বিশ^বিদ্যালয়ের কৃষি শক্তি ও যন্ত্র বিভাগের অধ্যাপক ড. ইঞ্জিনিয়ার চয়ন কুমার সাহা বলেন, সরকার ক্লিন এনার্জিকে উৎসাহ প্রদানের নিমিত্তে দেশের চৌষট্টি জেলায় চৌষট্টি হাজার বায়োগ্যাস প্লান্ট নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছে। বায়োগ্যাস প্রযুক্তি প্রসারের জন্য সরকারের তরফ থেকে ভর্তুকি প্রদান করতে হবে।

বিশেষ অতিথি ছিলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ এর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ও আইইবি’র প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট ইঞ্জিনিয়ার মো. আবদুস সবুর। আইইবি’র প্রেসিডেন্ট ও রাজউকের সাবেক চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার মো. নূরুল হুদা। ঢাকা ওয়াসার সাবেক চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার মো. রহমতুল্লাহ। আইইবি’র ভাইস-প্রেসিডেন্ট (এইচআরডি) ইঞ্জিনিয়ার মো. নূরুজ্জামান।

সম্মানীত আলোচক হিসাবে ছিলেন, বাংলাদেশ কৃষি বিশ^বিদ্যালয়ের কৃষি শক্তি ও যন্ত্র বিভাগের অধ্যাপক ড. ইঞ্জিনিয়ার মঞ্জুরুল আলম। সেমিনারে স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন, আইইবি’র সম্মানী সাধারণ সম্পাদক, ইঞ্জিনিয়ার মো. শাহাদাৎ হোসেন (শীবলু) পিইঞ্জ.।

সেমিনারে সভাপতিত্ব করেন, আইইবি’র কৃষিকৌশল বিভাগের চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার মো. মোয়াজ্জেম হোসেন ভূঞা পিইঞ্জ.। ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন, আইইবি’র কৃষিকৌশল বিভাগের ভাইস-চেয়ারম্যান, ইঞ্জিনিয়ার মো. শফিকুল ইসলাম শেখ। সঞ্চালনা করেন, আইইবি’র কৃষিকৌশল বিভাগের সম্পাদক, ইঞ্জিনিয়ার মো. মিছবাহুজ্জামান চন্দন।