banner

শেষ আপডেট ৫ মার্চ ২০২১,  ২৩:১৮  ||   শনিবার, ৬ই মার্চ ২০২১ ইং, ২২ ফাল্গুন ১৪২৭

পেকুয়ায় মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের কর্মচারীর বিরুদ্ধে বই বিতরণে অর্থ আদায়ের অভিযোগ!

পেকুয়ায় মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের কর্মচারীর বিরুদ্ধে বই বিতরণে অর্থ আদায়ের অভিযোগ!

৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ১৯:০৩ |    নিজস্ব প্রতিবেদক
  • পেকুয়ায় মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের কর্মচারীর বিরুদ্ধে বই বিতরণে অর্থ আদায়ের অভিযোগ!

মুহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন, পেকুয়া: কক্সবাজার জেলার পেকুয়া উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের কর্মচারী রফিকের বিরুদ্ধে টাকার বিনিময়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বিনামূল্যের (সরকারি) পাঠ্যবই সরবরাহসহ নানা অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। অভিযুক্ত কর্মচারীর বিরুদ্ধে শাস্তির ব্যবস্থা গ্রণের জন্য শিক্ষা বিভাগের উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্টান। অভিযুক্ত কর্মচারীর নাম মো: রফিকুল ইসলাম। তিনি পেকুয়া উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসে অস্থায়ী ভিত্তিতে ‘অফিস সহায়ক’ পদে মাসিক ৪ হাজার টাকা বেতনে কর্মরত রয়েছে। এছাড়াও উক্ত কর্মচারী পেকুয়া উপজেলার ফাসিয়াখালী ইসলামিয়া কামিল মাদ্রাসায় নৈশ প্রহরী পদে কর্মরত রয়েছে। তার বাড়ি উপজেলার টইটং ইউনিয়নের হাজি বাজার এলাকায়।
অভিযোগ রয়েছে, উক্ত কর্মচারী ফাসিয়াখালী ইসলামিয়া মাদ্রাসায় নৈশ প্রহরী পদে এমপিওভূক্ত চাকুরী থাকলেও অনিয়মের মাধ্যমে পেকুয়া উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসে ‘অফিস সহায়ক’ পদে কর্মরত রয়েছে এবং প্রতি মাসের শেষে বেতন-ভাতা গ্রহণ করছেন উভয় প্রতিষ্টান থেকে!
খোঁজ নিয়ে জানা যায়, চলতি বছরের জানুয়ারির বই উৎসব পালনের আগে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের মাধ্যমে বিনামূল্যের সরকারি পাঠ্যবই বিতরণ করা হচ্ছিল। ওইসব বই সরবরাহের আগে পেকুয়া উপজেলা কিন্ডারগার্টেন ও ইবতেদায়ী মাদ্রাসার কাছ থেকে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের ‘অফিস সহায়ক’ রফিকুল ইসলাম টাকা আদায় করেছে। সরেজমিনে যাচাই করে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগের সত্যতাও পেয়েছেন এ প্রতিবেদক।
গত ৩১ জানুয়ারী দুপুরে পেকুয়া মডেল সরকারী জিএমসি ইনষ্টিটিশন এর গুদাম থেকে বই সরবরাহের আগে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিদের কাছ থেকে বখশিসের কথা বলে ২য় দফায় টাকা আদায় করেছেন মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের কর্মচারী রফিকুল ইসলাম।
মগনামা মাঝির পাড়া শাহ রশিদিয়া সিনিয়র মাদ্রাসার অফিস সহায়ক জানান, বই বিতরনের সময় মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের কর্মচারী রফিক তার কাছ থেকে ২০০টাকা নিয়েছেন।
রাজাখালী ডিগ্রি মাদ্রাসার সহকারী লাইব্রেরীয়ান অভিযোগ করে জানান, কর্মচারী রফিক জানুয়ারীর শুরুর দিকে বই বিতরনের জন্য তার কাছ থেকে ১ হাজার টাকা নিয়েছৈন। এরপরেও ৩১ জানুয়ারী জিএমসি স্কুলের গুদামঘর থেকে বই নেওয়ার সময় আবারো ১০০ টাকা ঘুষ নিয়েছেন।
পেকুয়া সদর ইউনিয়নের আয়েশা ছিদ্দিকা মাদ্রাসার প্রধান শিক্ষক মাওলানা ছৈয়দ নুর জানান, তার কাছ থেকে এক হাজার টাকা ঘুষ নিয়েছেন কর্মচারী রফিক।
মগনামা আদর্শ শিক্ষা নিকেতনের পরিচালক আশেক বিন জলিল অভিযোগ করে জানান, গত ১৮.০১.২১ ইংরেজী তারিখ নতুন বর্ষের বিনামূল্যে সরকারী বই বিতরণের সময় তার কাছ থেকে ৫ হাজার টাকা ঘুষ দাবি করেছিলেন পেকুয়া মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের কর্মচারী রফিকুল ইসলাম।  এ কর্মচারীর অব্যাহত চাপের মুখে তিনি ৪ হাজার টাকা দিয়ে কোনমতে রক্ষা পান। এরপরেও আরো ৫ শত টাকা ঘুষ দাবি করছেন কর্মচারী রফিক।
আশেক বিন জলিল আরো জানান, বই বিতরনের সময় পেকুয়া উপজেলার বিভিন্ন ইবতেদায়ী মাদ্রাসা ও কেজি স্কলের প্রধান শিক্ষক ও প্রতিনিধিদের কাছ থেকে হাজার হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছে পেকুয়া মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের কর্মচারী মো: রফিক। যাহা সরেজমিনে তদন্ত করলে সত্যতা পাওয়া যাবে বলে তিনি মন্তব্য করেন।
বই বিতরণের সময় টাকা আদায় প্রসঙ্গে জানতে চাইলে পেকুয়া মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের কর্মচারী মো: রফিকুল ইসলাম এ বিষয়ে কোন কথা বলতে রাজি হননি।
পেকুয়া মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার উলফাত জাহান জানান, তিনি বিষয়টি তদন্ত কওে দেখে ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। তবে তার জানামতে, বই বিতরণের সময় কেউ টাকা আদায় করেনি। এরপরেও তিনি বিষয়টি তদন্ত করবেন।