banner

শেষ আপডেট ২৬ অক্টোবর ২০২০,  ২০:০৩  ||   সোমবার, ২৬ই অক্টোবর ২০২০ ইং, ১১ কার্তিক ১৪২৭

 কক্সবাজারের খুরুশকুল থেকে ভিকটিম মেয়ে শিশু উদ্ধার ও মুল আসামীসহ আটক ৩

 কক্সবাজারের খুরুশকুল থেকে ভিকটিম মেয়ে শিশু উদ্ধার ও মুল আসামীসহ আটক ৩

১৭ অক্টোবর ২০২০ | ১১:২২ |    নিজস্ব প্রতিবেদক
  •  কক্সবাজারের খুরুশকুল থেকে ভিকটিম মেয়ে শিশু উদ্ধার ও মুল আসামীসহ আটক ৩

প্রেস বিজ্ঞপ্তি: কক্সবাজার সদর থানাধীন কস্তুরাঘাট ও খুরুশকুল এলাকায় অভিযান চালিয়ে একটি মেয়ে শিশুকে দীর্ঘদিন আটকে রেখে ধর্ষণের ঘটনায় প্রধান আসামি ও তার অপর তিন সহযোগীকে আটক এবং ভিকটিম মেয়ে শিশুকে উদ্ধার করেছে র‌্যাব-৭,।
কিছুদিন পূর্বে ভিকটিমের মা র‌্যাব-৭, চট্টগ্রাম এ অভিযোগ করেন যে, গত ১ সেপ্টেম্বর মোঃ শাহাবদ্দিন (২৮) ও তার ৩ জন সহযোগী মিলে তার ছোট মেয়েকে অপহরণ করে নিয়ে প্রায় দেড় মাস যাবত অজানা স্থানে আটকে রেখে ধর্ষণ করছে।

অভিযোগের ভিত্তিতে র‌্যাব-৭ ঘটনার সত্যতা যাছাই এবং আসামীদের গ্রেফতারের লক্ষ্যে ছায়া তদন্ত শুরু করে। একপর্যায়ে র‌্যাব-৭ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উক্ত ধর্ষণকারী ও তার সহযোগীরা কক্সবাজার জেলার সদর থানাধীন এলাকায় অবস্থান করছে। টানা ৩৬ ঘন্টার শ্বাসরুদ্ধকর অভিযানে ভিকটিমকে উদ্ধার এবং প্রধান আসামী মোঃশাহাবউদ্দীন ও তার অপর তিন সহযোগীকে আটক করতে সক্ষম হয় র‍্যাব-৭, চট্টগ্রাম। আসামিরা তাদের অবস্থান পরিবর্তন করায় তাদের আটকের কাজটি ছিল কষ্টসাধ্য।

র‍্যাব-৭ জানতে পারে আসামিরা কক্সবাজার জেলার সদর থানাধীন কস্তুরা ঘাট এলাকায় অবস্থান করছে।উক্ত তথ্যের ভিত্তিতে গত ১৫ অক্টোবর র‌্যাব-৭ এর একটি দল বর্ণিত স্থানে অভিযান পরিচালনা করলে র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে র‌্যাব সদস্যরা প্রধান আসামি মোঃ শাহাব উদ্দিন (২৮),’কে আটক করে।

পরবর্তীতে তার দেওয়া তথ্য মতে অপর ৩ আসামি আরমান হোসেন (২৭), মোঃ নুরুল আলম (৩৮), এবং লোকমান হাকিম (৩৪), ’কে কক্সবাজার জেলার সদর থানাধীন খুরুশকুল এলাকা থেকে আটক করে।

এসময় ঘটনাস্থল হতে ভিকটিমকে উদ্ধার করা হয়। পরবর্তীতে উপস্থিত সাক্ষীদের সম্মুখে আসামীদের ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদে আসামি মোঃ শাহাব উদ্দিন (২৮) অপর ৩জন আসামিকে নিয়ে ভিকটিমকে অপহরণ ও ধর্ষণের কথা স্বীকার করে।
গ্রেফতারকৃত আসামী এবং উদ্ধারকৃত ভিকটিম সংক্রান্তে পরবর্তী আইনানুগ ব্যববস্থা গ্রহণের নিমিত্তে সদর মডেল থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।