banner

শেষ আপডেট ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০,  ২১:৪১  ||   বৃহষ্পতিবার, ১ অক্টোবর ২০২০ ইং, ১৬ আশ্বিন ১৪২৭

কর্মস্থলে অযোগ্য ও কাজে অবহেলাকারীর স্থান নেই–প্রশাসক সুজন 

কর্মস্থলে অযোগ্য ও কাজে অবহেলাকারীর স্থান নেই–প্রশাসক সুজন 

১৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ | ২২:০৮ |    নিজস্ব প্রতিবেদক
  • কর্মস্থলে অযোগ্য ও কাজে অবহেলাকারীর স্থান নেই–প্রশাসক সুজন 
কর্মস্থলে অযোগ্য ও কাজে অবহেলাকারী কারো স্থান নেই। সময়ের সাথে তাল মিলিয়ে নিজেদের যোগ্যতা প্রমাণ করে টিকে থাকতে হবে, জনগণকে প্রত্যাশিত সেবা দিতে হবে। আজ সকালে টাইগারপাসস্থ চসিক নগরভবনের সম্মেলন কক্ষে চসিক বিদ্যুৎ বিভাগের সাথে সমন্বয় সভায় চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্রশাসক মোহাম্মদ খোরশেদ আলম সুজন একথা বলেন।
এসময় চসিক প্রধান প্রকৌশলী লে.কর্ণেল সোহেল আহমেদ, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী ঝুলন কুমার দাশ, প্রকৌশলী আনোয়ারুল হক চৌধুরী, সালমা খাতুন, রেজাউল বারী, কামরুল ইসলাম সেলিম, বাতি পরিদর্শক জাহিদুল আলম চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন।
প্রশাসক বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চট্টগ্রাম নগরীর আমূল পরিবর্তন ও উন্নয়নের লক্ষ্যে নানাবিধ কর্মপরিকল্পনা গ্রহণ করেছেন। চট্টগ্রামের উন্নয়নে প্রধানমন্ত্রী সবসময় উদার। প্রধানমন্ত্রীর উদারতার মূল্যায়ন করতে হবে। আন্তরিকতা নিয়ে জনগণের পাশে দাঁড়াতে হবে।
তিনি বলেন, শহরের সড়কবাতির আলোকায়ন সিটি কর্পোরেশন দেখভাল করে। তাই এ বিভাগ যদি সচল না থাকে তা হলে সকল কার্যক্রম স্থবির হয়ে পড়ে। একটি শহরে সভ্যতার বিকাশ ঘটাতে বিদ্যুতায়ন অপরিহার্য।
খোরশেদ আলম সুজন বলেন, আপনাদের মাধ্যমে এ শহরের চিত্র দেখতে পাওয়া যায়। তাই আপনারা সচেতন ও সজাগ হোন। আপনাদের দায়িত্ব জনগণের সেবা করা। জনগণই আপনাদের কাজের যোগ্যতার বিচার করবেন। যার যোগ্যতা আছে তার যোগ্যতার মর্যাদা দিবেন বলে তিনি মন্তব্য করেন।
প্রশাসক জানান, কর্মস্থলে অযোগ্য কাউকে স্থান দেওয়া হবে না। অফিসে হাজিরা দিয়েই মাসশেষে কেউ বেতন পাবে না। জনগণের টাকায় বেতন নিতে হলে জনগণের সেবার চাহিদা বুঝতে হবে।
কর্মচারীদের তিনি বলেন, কাজের মাধ্যমে যোগ্যতার প্রমাণ দিন, যোগ্যতার আসনে আসীন করা হবে। শত প্রতিকূলতায়ও রাস্তায় থাকার নির্দেশ দেন তিনি। বিদ্যুৎ বিভাগে দীর্ঘদিন যারা কাজ করছেন তাদের অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগানোর আহ্বান জানান।
কাজের ক্ষেত্রে একে অন্যের সহযোগী হয়ে ভুলগুলো সংশোধন করে নতুনভাবে এগিয়ে যেতে নির্দেশ দেন। বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম কেনার সময় তা গুণগত মান যাচাই করে ক্রয় করার নির্দেশনা দেন প্রশাসক।