banner

শেষ আপডেট ১৩ জুলাই ২০২০,  ২৩:২০  ||   সোমবার, ১৩ই জুলাই ২০২০ ইং, ২৯ আষাঢ় ১৪২৭

বাংলাদেশে অবিলম্বে রেশন কার্ড পদ্ধতি চালু করা হউক

বাংলাদেশে অবিলম্বে রেশন কার্ড পদ্ধতি চালু করা হউক

৭ এপ্রিল ২০২০ | ২০:৪৬ |    নিজস্ব প্রতিবেদক
  • বাংলাদেশে অবিলম্বে রেশন কার্ড পদ্ধতি চালু করা হউক
দেশে বিতরণ ব্যবস্থায় অদক্ষতার কারণে ত্রাণ বিতরণ,সার বিক্রিসহ সরকারি বিভিন্ন সুবিধা বণ্টনে দুর্নীতিতে ঐতিহ্য রয়েছে আমাদের।আমাদের দেশে যদি বিভিন্ন সরকারি বরাদ্দ চুরি/লুটপাটের সুযোগ না থাকতো তাহলে দেশের বিভিন্ন পর্যায়ের বিভিন্ন নির্বাচনে প্রার্থী খুজে পাওয়াও দুস্কর হতো বলে মনে হয়।করোনা ভাইরাসের কারণে সৃষ্ট অর্থনৈতিক মন্দাবস্থা মোকাবিলায় সরকার ৭২ হাজার ৭৫০ কোটি টাকা প্রণোদনা ঘোষনা করেছে। কিন্তু এই প্রণোদনার বেশীরভাগ কোথায় যাবে এটি মানুষ জানে।যদিও প্রধানমন্ত্রী এই বরাদ্দের নয়ছয় করার বিরুদ্ধে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন।একটি হিসেবে দেখা যায়,আমাদের দেশে মোট জনসংখ্যা প্রায় ১৮ কৌটি। এই ১৮ কৌটি মানুষের মধ্যে প্রত্যেক পরিবারে গড়ে ৩ জন করে সদস্য সংখ্যা ধরা হলে,পরিবার সংখ্যা দাঁড়ায় ৬ কোটি। প্রত্যেক পরিবারে ১ মাসের জন্যে ৫০ কেজি চাউল-১৫০০ টাকা,৫ কেজি ডাল-৩০০ টাকা,২’৫ কেজি তেল-২০০ টাকা,১০ কেজি আলু-২০০ টাকা,৩ কেজি পিয়াজ-১০০ টাকা,১ মাসের সবজি বাজারের জন্যে-৭০০টাকা খরচ হলে, মোট খরচ দাঁড়ায় ৩০০০ টাকা।  সে হিসেবে দেশের ৬ কৌটি পরিবারের জন্যে সরকারের ১ মাসে খরচ হয় ১৮ কৌটি টাকা।আর এটি একেবারেই সাধারণ মানুষের নূণ্যতম চাহিদা মাত্র। সরকার এই ১৮ কৌটি টাকা খরচ করে চাইলে পুরো দেশ ১মাসের জন্যে লকডাউন করে দিতে পারে। কিন্তু আশংকা রয়েছে সরকারের প্রনোদনার ৭২ হাজার ৭৫০ কৌটি টাকার ব্যবহার সঠিকভাবে হবে তো.?
এ দূর্যোগে ত্রাণের চাল চুরি নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর কঠোর সতর্ক বার্তার পরও থেমে নেই অপকর্ম। তাই সরকারের ৭২ হাজার ৭৫০ কৌটি টাকার প্রনোদনার বিভিন্ন প্রকল্পের মধ্যে এই মুহুর্তে মধ্যবিত্ত,নিম্ন মধ্যবিত্ত,অসহায় হত দরিদ্র দিনমজুর ও কৃষকসহ প্রত্যেক শ্রেনীর মানুষকে বাঁচানোর জন্যে নগর ও প্রতিটি গ্রামে গঞ্জে অবিলম্বে রেশন কার্ড চালু করা উচিত।মহামারির পর মন্দার কারনে বিশ্বজুড়ে দেখা দিবে খাদ্য সংকট। বাংলাদেশও বাদ যাবে না। এখনি আমাদের সতর্ক হতে হবে রেশন পদ্ধতি চালুর মাধ্যমে।বাঁচার জন্যে এই রেশন কার্ড ব্যবস্থা চালুর দাবী হউক এখন প্রতিটি মানুষের, প্রতিটি পরিবারের। কারণ এই মহা দূর্যোগ কালীন সময়েও দেখা যায় সরকারী ত্রাণ কেউ পাচ্ছে,কেউ ডাবল পাচ্ছে আবার কেউ একেবারেই পাচ্ছে না। এর মধ্যে মধ্যেবিত্ত ও নিম্ন মধ্যবিত্তদের অবস্থা একেবারেই খারাপ। তারা অসহায় অবস্থায় খেয়ে নাখেয়ে দিনাতিপাত করছে। তারা পারছে না চাইতে,পাচ্ছে না খাইতে। তাই সরকার কঠোর হস্তে প্রশাসনের তদারকিতে এই রেশনিং ব্যবস্থা চালু করে রেশন কার্ডের মাধ্যমে মানুষের বেঁচে থাকার নুণ্যতম বিভিন্ন নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য সমাগ্রী মানুষের ঘরে ঘরে পৌছে দিতে পারে।অতীতে গ্রামে গঞ্জেও ৭৫ সাল পর্যন্ত এই রেশন কার্ড ব্যবস্থা চালু ছিল।সরকারী উদ্যোগে এই রেশন কার্ড ব্যবস্থা চালু করা হলে অসৎ ব্যবসায়ীদের দৌরাত্ম্যও যেমনি কমে যাবে,তেমনি মানুষের ন্যায্য অধিকারও সুষম বন্টন হবে বলে বিশ্বাস করি।এতে একেবারে প্রান্তিক পর্যায়ে সরকারের সাহায্য সহায়তা পৌঁছে যাবে অনায়াসে। এ রেশন কার্ড কার্যক্রমের প্রয়োজনে আমাদের প্রত্যকের জাতীয় ভোটার আইডি কার্ড এবং জন্ম সনদও ব্যবহার করা যায়।এছাড়াও আরো সহায়তা নিতে দেশের প্রত্যক জেলায় নির্বাচন কমিশন অফিসেও আমাদের ভোটার আইডি কার্ড এবং জন্ম সনদের বিশাল ডাটাবেজ রয়েছে। এই রেশন কার্ড ব্যবস্থা চালু করা হলে বিভিন্ন শ্রেনীর প্রত্যেক পরিবারগুলো কার্ড দেখিয়ে ন্যায্য মূল্যে বা কম মূল্যে সহজেই তাদের খাদ্য সামগ্রী পেয়ে যাবে।প্রতিমাসে চাল, ডাল, তেল, চিনি, আটাসহ কিছু ভোগ্যপণ্য রেশন কার্ডের মাধ্যমে ন্যায্যমূল্যে বিতরণ করা গেলে বাজার নিয়ে অসাধুদের খেলা চিরতরে বন্ধ হয়ে যাবে। দুর্যোগকালে সরকারি খাদ্য সহায়তা প্রান্তিক পর্যায়ে পৌঁছে দেওয়া সহজ হয়ে যাবে।রেশন পদ্ধতি করা হলে তা চালু রাখতে সরকারকে সরাসরি  ধান, চাল, ডাল, চিনিসহ বিভিন্ন খাদ্যপণ্য সংগ্রহ করতে হবে। এসব আমাদের দেশের কৃষক থেকে সংগ্রহ করা হলে তাতে আমাদের কৃষক এবং চিনিকলগুলোও বাঁচবে।ফড়িয়াদের দৌরাত্ম্য অনেকটাই বন্ধ হয়ে যাবে।ভারতের মতো ১৩০ কোটি জনসংখ্যার দেশে রেশনিং ব্যবস্থা সম্ভব হলে বাংলাদেশে তা সম্ভব নয় কেন?বিশাল জনসংখ্যার দেশ ভারতে উচ্চবিত্ত,মধ্যবিত্ত,নিম্নবিত্ত দিনমজুরসহ জনসংখ্যাকে বিভিন্ন শ্রেনীতে  ভাগ করে তাদের জন্যে বিভিন্ন কালারের সাংকেতিক চিহ্নযুক্ত ভিন্ন ভিন্ন রেশন কার্ড ছাপানো হয়।এর পর একই রেশন সামগ্রী ভিন্ন ভিন্ন শ্রেনীর কাছে ভিন্ন ভিন্ন দরে সরবরাহ দেওয়া হয়। আমাদের দেশেও একইভাবে একই রেশন সামগ্রী ভিন্ন ভিন্ন শ্রেনীর কাছে ভিন্ন ভিন্ন দরে সরবরাহ দেওয়া যায়।
আমাদের দেশে এখনই রেশন কার্ড পদ্ধতি চালুর প্রয়োজনীয়তা রয়েছে এবং এব্যাপারে এখনই আমাদের জনমতও গড়ে তুলতে হবে। আমাদের দেশের মানুষের দুর্নীতি করার প্রবণতা আছে ঠিকই। তা কিন্তু পৃথিবীর সব দেশেই আছে। এর জন্যে আমাদের সিস্টেম ডেভেলপ করতে হবে, যাতে দূর্নীতিবাজরা দূর্নীতি করার সুযোগ না পায়। মাথাব্যথার জন্য মাথা কেটে ফেলে দেওয়া সমাধান নয়।