banner

শেষ আপডেট ২১ জানুয়ারী ২০২০,  ২১:৪৫  ||   বুধবার, ২২ই জানুয়ারী ২০২০ ইং, ৯ মাঘ ১৪২৬

আবৃত্তি সেই প্রাচীনকাল থেকে আজ পর্যন্ত সর্বপ্রধান ও সর্বপ্রথম বাচিকশিল্প—ডালিয়া বসু সাহা

আবৃত্তি সেই প্রাচীনকাল থেকে আজ পর্যন্ত সর্বপ্রধান ও সর্বপ্রথম বাচিকশিল্প—ডালিয়া বসু সাহা

৭ জানুয়ারী ২০২০ | ১৯:২৩ |    নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আবৃত্তি সেই প্রাচীনকাল থেকে আজ পর্যন্ত সর্বপ্রধান ও সর্বপ্রথম বাচিকশিল্প—ডালিয়া বসু সাহা

প্রেস বিজ্ঞপ্তিঃ আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন আবৃত্তিশিল্পী ও গবেষক ডালিয়া বসু সাহা বলেছেন, প্রয়োগ শিল্পের কনিষ্ঠতম হলেও আবৃত্তি সেই প্রাচীনকাল থেকে আজ পর্যন্ত সর্বপ্রধান ও সর্বপ্রথম বাচিকশিল্প। একজন আবৃত্তিশিল্পী নৈপুণ্যময় আবৃত্তির মাধ্যমে শ্রোতাদের শ্র“তি-অনুভবে এবং চোখের সামনে কবিতার রূপায়িত দৃশ্যকে উপস্থাপন করতে পারেন। আবৃত্তিকার কবির বাণী ও অনুভূতির প্রচারক নন। কবিতার অনুবাদকও নন। এক্ষেত্রে তার শতভাগ সৃজনশীল ভূমিকার কারণেই আবৃত্তিকার একজন শিল্পী এবং আবৃত্তি একটি শিল্প।
আবৃত্তিকে শিল্পীর স্মৃতির ধারাবাহিক সবাক চিত্র উল্লেখ করে ভারতের খ্যাতিমান নাট্যাভিনেত্রী ডালিয়া বসু আরো বলেন, শিল্পী যে কাজ করেন রঙ দিয়ে, কবি যে কাজ করেন শব্দ দিয়ে, আবৃত্তি শিল্পী সে কাজ করেন কণ্ঠস্বর দিয়ে। আবৃত্তিকারের নিজস্ব আবেগ, অনুভব, মেধা, মনন, বোধ ইত্যাদির সমন্বিত প্রয়োগে উচ্চারণের বিশুদ্ধতা রক্ষা করে কবিতার অন্তর্নিহিত মর্মার্থের বাচিক উপস্থাপনাই হচ্ছে আবৃত্তি।

ভারতের রেজিস্টার্ড বাচিক সংগঠন ছন্দ বীথিকা ও সাংস্কৃতিক সংগঠন কথা কনভেনটোরিয়াম-এর প্রধান ডালিয়া বসু সাহা আরো বলেন, সাংগঠনিক আবৃত্তিচর্চার ফলে আবৃত্তিশিল্পী, প্রশিক্ষক, সাংগঠনিক কর্মী, সংবাদ উপস্থাপক, রিপোর্টার, অনুষ্ঠান উপস্থাপক এবং নাট্যকর্মীসহ অন্য মাধ্যমে অনেক বাচিকশিল্পী সৃষ্টি হয়েছে। এরা বাংলা ভাষাভাষী মানুষকে মেলবন্ধনে আবদ্ধ রাখতে সব সময় সচেষ্ট। আবৃত্তিচর্চা এখন শুধু আবৃত্তি শিল্পীই তৈরি করে না, একজন ব্যক্তির ব্যক্তিত্ব পরিস্ফুটনেও আবৃত্তিচর্চা মুখ্য ভূমিকা পালন করতে পারে। শুদ্ধ ও স্পষ্ট উচ্চারণ, সুন্দর বাচনভঙ্গি, সঙ্গে ভাবের একটু সঠিক ব্যবহার একজন ব্যক্তির ব্যক্তিত্বকে অসাধারণ করে তোলে। এ ক্ষেত্রে আবৃত্তিচর্চার বিকল্প নেই।
ডালিয়া বসু সাহা’র বাংলাদেশ আগমন উপলক্ষে সমাজ, সংস্কৃতি, উন্নয়ন, মানবাধিকার ও জবাবদিহিমূলক সংগঠন আমরা করবো জয় (ডাব্লিউএসও) আয়োজিত আবৃত্তি আড্ডায় তিনি এসব কথা বলেন।
গতকাল নগরীর পিটস্টপ রেস্তোরায় আমরা করবো জয়-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও লেখক-সাংবাদিক শওকত বাঙালির সভাপতিত্বে আবৃত্তি আড্ডায় প্রধান অতিথি ছিলেন একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি চট্টগ্রাম জেলা সভাপতি প্রকৌশলী দেলোয়ার মজুমদার।

প্রধান আলোচক ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা ইনস্টিটিউটের পরিচালক প্রফেসর প্রণব মিত্র চৌধুরী।

বিশেষ অতিথি ছিলেন চিত্রশিল্পী-সাংবাদিক আজিজুল কদির, একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি চট্টগ্রাম জেলার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাবিব উল্ল্যা চৌধুরী ভাস্কর, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক রুবা আহসান, সহ-মহিলা বিষয়ক সম্পাদক সূচিত্রা গুহ টুম্পা, সাংস্কৃতিক সম্পাদক রাজীব চৌধুরী প্রমুখ।

আড্ডা শেষে ডালিয়া বসু সাহাকে শুভেচ্ছা স্মারক তুলে দেন অনুষ্ঠানের অতিথিবৃন্দ।