banner

শেষ আপডেট ১ অক্টোবর ২০২০,  ২২:৩৭  ||   বৃহষ্পতিবার, ১ অক্টোবর ২০২০ ইং, ১৬ আশ্বিন ১৪২৭

৯০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে প্রতি বছর ৩৫ কোটি টাকা ভর্তুকি দিচ্ছে চসিক—মেয়র

৯০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে প্রতি বছর ৩৫ কোটি টাকা ভর্তুকি দিচ্ছে চসিক—মেয়র

১১ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২০:৩৭ |    নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ৯০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে প্রতি বছর ৩৫ কোটি টাকা ভর্তুকি দিচ্ছে চসিক—মেয়র

ক্রাইম প্রতিবেদকঃ চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন পরিচালিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অবকাঠামো ও শিক্ষারমান উন্নয়নে মাষ্টারপ্ল্যান প্রণয়নের উপর গুরুত্বারোপ করেছেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। তিনি আজ বুধবার সকালে নগর ভবন সম্মেলন কক্ষে চসিক পরিচালিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পরিচালনা পর্ষদের সভায় সভাপতির বক্তব্যে একথা বলেন।

এ সময় চসিক সচিব মো. আবু সাহেদ চৌধুরী, মেয়রের একান্ত সচিব মো. আবুল হাসেম, শিক্ষা কর্মকর্তা সাইফুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।

সভায় শেরশাহ কলোনী স্কুল সহ ৯টি স্কুল ও কলেজের পরিচালনা পর্ষদের সদস্যদের মধ্যে কদম মোবারক সিটি কর্পোরেশন বালক উচ্চ বিদ্যালয়ের অভিভাবক সদস্য এ এ এম সাইফুদ্দিন, শেখ মুজিবুর রহমান, এ এ এম মঈন উদ্দিন, এ এস এম আবদুল মালেক, নুরজাহান বেগম, সদস্য সচিব  প্রধান শিক্ষক মোখলেছুর রহমান, কাট্টলী সিটি কর্পোরেশন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের  সদস্য সচিব অধ্যক্ষ মো. আবুল কশেম, অভিভাবক সদস্য গিয়াস উদ্দীন চৌধুরী, দীপক ঘোষ, কোহিনুর আক্তার, শিক্ষক প্রতিনিধি ইয়াছমিন বেগম ও নাজমুল হাসান, ফতেয়াবাদ সিটি কর্পোরেশন বালিকা ডিগ্রী কলেজের সদস্য সচিব অধ্যক্ষ মোহাম্মদ ইদ্রিস, অভিভাবক সদস্য এড. ফরিদুল আলম, মর্তুজা গুলশান হায়াত, মো. সাইফুল ইসলাম, মো. ইউসুফ মিয়া, মোহাম্মদ আবু জাহেদ, গাজী মঈনুদ্দীন, সুলতানুল আলম চৌধুরী, সৈয়দ মঞ্জুর আলম, সৈয়দ মো. মহসীন, পতেঙ্গা সিটি কর্পোরেশন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সদস্য সচিব প্রধান শিক্ষক মিলন কান্তি আচার্র্য প্রমূখ ছিলেন।
সভাপতির বক্তব্যে সিটি মেয়র বলেন, চসিক পরিচালিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার মান উন্নয়ন ও ভৌত অবকাঠামো উন্নয়নে একটি সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা থাকা বাঞ্চনীয়। পরিকল্পনাই একটি জাতি বা প্রতিষ্ঠানকে অভিষ্ট লক্ষ্যে পৌছাতে সাহার্য্য করে। তাই আমাদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান মানোন্নয়ন ও অবকাঠামো উন্নয়নে স্বল্প, মধ্যম ও দীর্ঘ মেয়াদী পরিকল্পনা গ্রহণ করতে হবে। এ ব্যাপারে চসিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের গুণগত মান বৃদ্ধি ও অবকাঠামো উন্নয়নের ক্ষেত্রে মাষ্টারপ্ল্যান প্রণয়নের জন্য সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা দেন মেয়র। তিনি শিক্ষকদের উদ্দেশ্য করে বলেন, শুধু প্রাতিষ্ঠানিক ফলাফল ভালো হলে চলবে না,আলোকিত ও ভালো মানুষ হিসেবে শিক্ষার্থীদের গড়ে তুলতে হবে। তাই তিনি ক্লাসে পাঠদানের পূর্বেই মানবিক, নৈতিক মূল্যবোধ সম্পর্কে আলোচনা করার উপর গুরুত্বারোপ করেন। এ প্রসঙ্গে মেয়র বলেন, আলোকিত মানুষ গড়ার প্রত্যয়ে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নগরীতে প্রায় ৯০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করে আসছে। এ খাতে প্রতি বছর ৩৫ কোটি টাকা ভর্তুকি দিচ্ছে চসিক। মধ্যবিত্ত ও নিম্নবিত্ত নগরবাসীর সন্তানদের শিক্ষাদান, নিরক্ষরতা দুরীকরণ, সরকারের পরিকল্পনা বাস্তবায়নে প্রত্যয়ে চসিক নগরীতে স্কুল ও কলেজ প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করছে।

তিনি বলেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের দেখভাল শুধু প্রধান শিক্ষকের নয়। এ ক্ষেত্রে পরিচালনা পর্ষদ ও অভিভাবকদেরও দায়িত্ব রয়েছে। তারা প্রতিষ্ঠান প্রধানকে সহযোগিতার মাধ্যমে শিক্ষার মান উন্নয়নে কার্যকর ভূমিকা রাখবে বলে তিনি মন্তব্য করেন।  মেয়র পরিচালনা কমিটির সকলকে সততা, আন্তরিকতা ও নিষ্ঠার সাথে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মান উন্নোয়ন ও প্রসার,সুনাম-সুখ্যাতি বৃদ্ধি জন্য নিরলসভাবে দায়িত্ব পালন করার আহবান জানান। সভার শুরুতে ম্যানেজিং কমিটি ও গভর্নিং বডির সদস্যরা মেয়রকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান।