banner

শেষ আপডেট ১৩ নভেম্বর ২০১৯,  ২০:০৭  ||   বৃহষ্পতিবার, ১৪ই নভেম্বর ২০১৯ ইং, ৩০ কার্তিক ১৪২৬

বহুমাত্রিক গুণের অধিকারী ও জনদরদী ছিলেন আখতারুজ্জামান চৌধুরী বাবু

বহুমাত্রিক গুণের অধিকারী ও জনদরদী ছিলেন আখতারুজ্জামান চৌধুরী বাবু

৫ নভেম্বর ২০১৯ | ২০:০৯ |    নিজস্ব প্রতিবেদক
  • বহুমাত্রিক গুণের অধিকারী ও জনদরদী ছিলেন আখতারুজ্জামান চৌধুরী বাবু

প্রেস বিজ্ঞপ্তিঃ মানুষের কল্যাণে কাজ করে যাওয়া অনুকরণীয় ব্যক্তিত্ব আখতারুজ্জামান চৌধুরী বাবু মিয়া গণমানুষের হৃদয়ে চিরকাল স্মরণীয় হয়ে থাকবেন। তিনি অসংখ্য স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা, ব্যাংক, বীমা, শিল্পপ্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেছিলেন। সমাজ এবং দেশকে উন্নয়নের মাধ্যমে আমূল পরিবর্তনের যে সংগ্রাম তিনি করে গেছেন তাতে তিনি সফল হয়েছেন।

আজকের বাংলাদেশ আখতারুজ্জামান চৌধুরী বাবু’দের সংগ্রামের ফসল বলে মন্তব্য করেন প্রধান অতিথি আনোয়ারা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা বাহাউদ্দিন খালেদ শাহ্জী।

প্রধান বক্তার বক্তব্যে সাবেক ছাত্রনেতা মহানগর শ্রমিকলীগের নেতা আবুল হোসেন আবু বলেন আওয়ামী লীগের দুর্দিনে আওয়ামী লীগকে সুসংগঠিত করেছিলেন বাবু ভাই। মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু ঘনিষ্ঠ সহচর বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাবেক প্রেসিডিয়াম সদস্য আখতারুজ্জামান চৌধুরী বাবু’র ৭ম মৃত্যুবার্ষিকীর স্মরণে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস ও সাহিত্য চর্চা পরিষদের উদ্যোগে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল সংগঠনের সভাপতি এম. নুরুল হুদা চৌধুরীর সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক ডা. শওকত ইমরান এর সঞ্চালনায় গতকাল ৪ নভেম্বর সোমবার সকাল ১১টায় লালদীঘির পশ্চিম পাড় ছিদ্দিকী হলে অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক উপ কমিটির সদস্য মাওলানা রবিউল আলম ছিদ্দিকী বলেন,  ধর্ণাঢ্য পরিবারের সন্তান হয়েও তিনি জীবনের মায়া ত্যাগ করে আজীবন গণমানুষের অধিকার আদায়ের সংগ্রাম করে গেছেন।

বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বাস্তবায়ন সংগ্রাম পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির আহবায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা এম.এ সালাম, ডা. রতন চক্রবর্তী, বিল্লাল হোসেন, রোকন উদ্দিন আহমদ, ডা. তপন ভৌমিক, সমিরুল ইসলাম তুহিন, কৃষকলীগ নেতা মো. ইলিয়াছ, শ্রমিকলীগ নেতা মো. ফরিদ, মো. নাছির উদ্দিন, প্রকাশ ঘোষ পিকলু, তাপস দাশ, ডা. মোহাম্মদ ইসমাইল, মো. আবদুস সোবহান, ডা. রাজিনা ফেরদৌসী প্রমুখ।

সভায় আখতারুজ্জামান চৌধুরী বাবুকে মরনোত্তর স্বাধীনতা পুরস্কারে ভূষিত করার দাবী জানানো হয়।