banner

শেষ আপডেট ১৯ নভেম্বর ২০১৯,  ২২:২৬  ||   মঙ্গলবার, ১৯ই নভেম্বর ২০১৯ ইং, ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

মানসিক স্বাস্থ্যের উন্নয়নের জন্য মনকে পরিচর্যা করতে হবে

মানসিক স্বাস্থ্যের উন্নয়নের জন্য মনকে পরিচর্যা করতে হবে

১৪ অক্টোবর ২০১৯ | ২১:২২ |    নিজস্ব প্রতিবেদক
  • মানসিক স্বাস্থ্যের উন্নয়নের জন্য মনকে পরিচর্যা করতে হবে

প্রেস বিজ্ঞপ্তিঃ মানসিক স্বাস্থ্যসেবা শুধু মানসিক রোগীদের জন্য নয়। বরং এই সেবাকে সবার জন্য বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় মানসিক স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালের পরিচালক  ও বিশিষ্ট মনোরোগ বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. মোহিত কামাল।

তিনি বলেন, মানসিক স্বাস্থ্যের উন্নয়নের জন্য মনকে পরিচর্যা করতে হবে। মন কি-তা সাধারণ মানুষকে চিনিয়ে দিতে হবে।
তিনি আরো বলেন, মনের জানালা হলো পঞ্চ-ইন্দ্রিয়। শিশুর সুস্থ্য মানসিক ও সামাজিক বিকাশের জন্য শিশু প্রতিপালন ব্যবস্থা জোরদার করতে হবে এবং এজন্য বাবা-মায়ের প্রশিক্ষণ প্রয়োজন।
আজ ১৪ অক্টোবর সোমবার বিশ্বমানসিক স্বাস্থ্য দিবস উপলক্ষে ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশন আয়োজিত  একটি আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
অনুষ্ঠানে মুল প্রবন্ধ উপস্থাপনকালে ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশনের মনোযতœ কেন্দ্রের সমন্বয়ক ও চিকিৎসা মনোবিজ্ঞানী মো. আমির হোসেন  বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার বরাত দিয়ে জানান, প্রতিবছর সারাবিশ্বে ৩০০ মিলিয়ন মানুষ বিষন্নতায় ভুগছে এবং এদের মধ্যে ৮ লক্ষ মানুষ আত্মহত্যা করে। ২০১২ সালে, ১৫-২৯ বয়সিদের মধ্যে মৃত্যুর দ্বিতীয় মুখ্য কারণ হলো আত্মহত্যা। বিশ্বজুড়ে ঘটে যাওয়া আত্মহত্যার ৭৫% ই নিম্ন ও মধ্যম আয়ের দেশে ঘটে থাকে যাদের বেশীর ভাগই বয়স ১৮-৪০ এর মধ্যে। বিশ্বে আত্মহত্যার কারণে প্রতি ৪০ সেকেন্ডে ১ জন ব্যক্তির মৃত্যু ঘটে।
উল্লেখ্য এবারের বিশ্বমানসিক স্বাস্থ্য দিবসের মূল প্রতিপাদ্য হলো “মানসিক স্বাস্থ্যের উন্নয়ন ও আত্মহত্যা প্রতিরোধ”
আমির হোসেন আরো জানান, আত্মহত্যা করছেন এমন মানুষগুলোর বেশীর ভাগই মানসিক সমস্যায় ভুগে থাকে। এদিক থেকে বলতে গেলে আত্মহত্যার প্রধান কারণ হিসেবে মানসিক সমস্যাকেই ধরা হয়।

তিনি জানান, বাংলাদেশে মেয়েদের মধ্যে আত্মহত্যার প্রবণতা বেশি।
ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশনের সাধারণ সম্পাদক ডঃ এস এম খলিলুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে  বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসা মনোবিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক কামাল উদ্দিন আহমেদ চৌধুরী ও জাতীয় মানসিক স্বাস্থ্য ইন্সটিটিউট ও হাসপাতালের কমিউনিটি এন্ড সোসাল সাইকিয়াট্রি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. ফারজানা রহমান (দিনা)।  অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশনের স্বাস্থ্য সেক্টরের সহকারী পরিচালক মো. মোখলেছুর রহমান।
উল্লেখ্য, সম্প্রতি ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশনের বাংলাদেশে মাদক ব্যবহারকারীদের মধ্যে পুন:নির্ভরশীলতা এবং এ সংশ্লিষ্ট বিষয়গুলোর ওপর জাতীয় পর্যায়ের একটি গবেষণা কার্যক্রম চালায়। এখানে অংশগ্রহণকারী ৯০০ জন পুন:মাদক নির্ভরশীল ব্যক্তির মধ্যে ২২৪ জনের মধ্যে আত্মহত্যার চিন্তা করে, ১৫৩ জনের মধ্যে আত্মহত্যার চেষ্টা চালায় এবং ৫৯৫ জন বিষন্নতায় ভোগার কথা উল্লেখ করে। এছাড়াও ৮৯৬ জনের মধ্যে ২৫৯ জনের কাছ থেকে নিজেকে আঘাত করার প্রবণতার বিষয়টি গবেষণায় উঠে আসে।