banner

শেষ আপডেট ২২ অক্টোবর ২০১৯,  ১৯:৩০  ||   মঙ্গলবার, ২২ই অক্টোবর ২০১৯ ইং, ৭ কার্তিক ১৪২৬

গান-নাচ-কবিতায় তিন কবিকে স্মরণ উদীচী’র

গান-নাচ-কবিতায় তিন কবিকে স্মরণ উদীচী’র

২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ২০:৫৭ |    নিজস্ব প্রতিবেদক
  • গান-নাচ-কবিতায় তিন কবিকে স্মরণ উদীচী’র

বিনোদন প্রতিবেদকঃ চট্টগ্রামে উদীচীর আয়োজনে ‘রবীন্দ্র-নজরুল-সুকান্ত স্মরণ’ অনুষ্ঠান হয়েছে। সম্মিলিত ও একক গান, আবৃত্তি, নাচ, কথামালাসহ বিভিন্ন আয়োজনে উপভোগ্য হয়ে ওঠে স্মরণসন্ধ্যাটি। গত শনিবার সন্ধ্যায় নগরীর ফুলকি স্কুলে এ কে খান স্মৃতি মিলনায়তনে এই অনুষ্ঠান হয়। এতে কথামালায় অংশ নেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা বিভাগের অধ্যাপক আবুল মনসুর।
আবুল মনসুর বলেন, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, কাজী নজরুল ইসলাম ও সুকান্ত ভট্টাচার্য- তিন কবিই তাদের রচিত সাহিত্যের মধ্য দিয়ে বাঙালির মনে দ্রোহের সঞ্চার করেছিলেন। সাম্প্রদায়িকতা, ধর্মান্ধতা, নারীর উপর অত্যাচার, দুর্বলের প্রতি শোষণসহ সমাজে আজ নানা ধরনের অস্থিরতা চলছে। এই অস্থিরতা আর অন্ধকার থেকে মুক্তির জন্য প্রয়োজন তিন কবির দেখানো পথ ধরে দ্রোহের জাগরণ।
তিনি বলেন, রবীন্দ্রনাথ, নজরুল, সুকান্ত এক প্রজন্মের কবি নন। তিনজন তিন প্রজন্মের কবি। রবীন্দ্রনাথ রচনায় আমরা প্রকৃতিকে পাই, বর্ষাকে পাই। প্রেম-বিরহ, জাগতিক জীবনের সবকিছুই কবি তাঁর সাহিত্যে ধারণ করেছেন। সবচেয়ে বেশি যেটা পেয়েছি, সেটা হচ্ছে সমাজের পটভূমিকে আধুনিক চিন্তার জায়গায় নিয়ে যাওয়া। সবকিছুকে ভেঙ্গেচুরে নতুন কাঠামো তৈরি করেছেন রবীন্দ্রনাথ।
নজরুল ইসলামের কবিতা-গানে আমরা সমাজের অন্যায়-অবিচারের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ দেখেছি। অন্যায়ের বিরুদ্ধে যে সাহিত্যের মধ্য দিয়ে বলিষ্ঠ কন্ঠে কথা বলা যায়, সেটা এর আগে বাঙালির জানা ছিল না। তাঁর কবিতায় আবেগের দ্রোহ ছিল, যৌবনের তাড়না ছিল। আর সুকান্ত লিখেছেন একেবারে রাজনৈতিক মতাদর্শ মাথায় রেখে। তিনি কমিউনিস্ট রাজনীতি করতেন। সেজন্য তার লেখায় বারবার সমাজ বিপ্লবের কথা উঠে এসেছে।
আবুল মনসুর আরও বলেন, রবীন্দ্রনাথ আধুনিকতা আর মুক্তচিন্তার পথ দেখিয়েছেন। নজরুল অন্যায়-অবিচারের বিরুদ্ধে দ্রোহের পথ দেখিয়েছেন। সংস্কারের আগল ভেঙ্গে মানবতার কথা বলেছেন। আর সুকান্ত বিপ্লবের পথ দেখিয়েছেন। তিন কবিই বাঙালির মনে দ্রোহের সঞ্চার করেছেন।
উদীচী চট্টগ্রামের সংগঠক অধ্যাপিকা শীলা দাশগুপ্তার সঞ্চালনায় সভাপতির বক্তব্য রাখেন শহীদ জায়া বেগম মুশতারী শফী। অনুষ্ঠানে তিন কবির লেখা গান, নাচ ও কবিতা দলীয় ও এককভাবে পরিবেশন করেন উদীচীর শিল্পীরা। এছাড়া আবৃত্তিতে অংশ নেন বোধন আবৃত্তি পরিষদের শিল্পীরা। নৃত্য পরিবেশন করেন শুভ্রা সেন গুপ্তা এবং হিল্লোল দাশের দল।