banner

শেষ আপডেট ২২ অক্টোবর ২০১৯,  ১৯:১৪  ||   মঙ্গলবার, ২২ই অক্টোবর ২০১৯ ইং, ৭ কার্তিক ১৪২৬

রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশের জন্মসনদ না দিতে পৌর মেয়রদের সতর্ক—তাজুল ইসলাম

রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশের জন্মসনদ না দিতে পৌর মেয়রদের সতর্ক—তাজুল ইসলাম

১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ২১:৩৮ |    নিজস্ব প্রতিবেদক
  • রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশের জন্মসনদ না দিতে পৌর মেয়রদের সতর্ক—তাজুল ইসলাম

ঢাকা অফিসঃ বাংলাদেশে আশ্রয় পাওয়া রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর কেউ যেন বাংলাদেশি নাগরিক হিসেবে জন্মসনদ না পায় সে বিষয়ে পৌরসভার মেয়রদের সতর্ক থাকতে বলেছেন স্থানীয় সরকারমন্ত্রী তাজুল ইসলাম। আজ রোববার দেশের ৩২৮টি পৌরসভার মেয়রদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় তাজুল ইসলাম এসব কথা বলেন। রাজধানীর জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের মিলনায়তনের এই মতবিনিময় সভার আয়োজন করে স্থানীয় সরকার বিভাগ।

তিনি বলেছেন, মিয়ানমারের নাগরিক রোহিঙ্গাদের মানবিক কারণে আশ্রয় দেওয়া হয়েছে। কোনো রোহিঙ্গা ব্যক্তি মিথ্যা তথ্য দিয়ে বাংলাদেশের জন্মসনদ না নিতে পারে সে বিষয়ে পৌরসভার মেয়রদের আরও সতর্ক হতে হবে।

দেশে বর্তমানে প্রায় ১১ লাখ রোহিঙ্গা আশ্রয় নিয়েছে। মিয়ানমারের নাগরিক হলেও রোহিঙ্গা বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলায় মিথ্যা তথ্য দিয়ে জন্মসনদ, পাসপোর্ট করছে বলে অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে। স্থানীয় পর্যায়ে জন্মসনদ দেওয়ার কাজটি করে থাকে পৌরসভা।

পৌর মেয়রদের সঙ্গে আলোচনায় স্থানীয় সরকারমন্ত্রী পরিস্থিতি তুলে ধরে বলেন, রোহিঙ্গারা মিয়ানমারের নাগরিক। তারা যেন কোনোভাবেই বাংলাদেশের জন্মসনদ না পায়। এ বিষয়টি নিয়ে আরও সতর্ক হতে হবে। এডিস মশা ও ডেঙ্গু জ্বর মাথাব্যথার কারণে হয়ে দাঁড়িয়েছে উল্লেখ করে তাজুল ইসলাম বলেন, এডিস মশা নিয়ন্ত্রণে পৌর মেয়রদের অগ্রণী ভূমিকা রাখতে হবে।

সভায় পৌর মেয়রেরা তাদের নানা সমস্যার কথা তুলে ধরেন। তারা বলেন, বর্জ্য ব্যবস্থাপনা প্রতিটি পৌরসভার জন্য সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। কোনো এলাকাতে ময়লা ফেলার ভাগাড় নেই। সড়কের পাশে ময়লা ফেলায় জনগণকে দুর্ভোগ পোহাতে হয়।

পৌরসভার পর্যাপ্ত আয় না থাকায় পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন-ভাতা দেওয়া যাচ্ছে না বলে জানান মেয়রেরা। তারা বলেন, একদিকে পৌরসভাগুলোতে কর্মকর্তা সংকট রয়েছে। অন্যদিকে নতুন বেতন কাঠামোয় কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন কয়েকগুণ বেড়েছে, কিন্তু সে অনুপাতে পৌরসভার আয় বাড়েনি। ফলে পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নিয়মিত বেতন-ভাতা দিতে পারছে না অনেক পৌরসভা।