banner

শেষ আপডেট ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯,  ২২:১৭  ||   সোমবার, ১৬ই সেপ্টেম্বর ২০১৯ ইং, ১ আশ্বিন ১৪২৬

সঠিক তথ্য উপাত্ত না পাওয়ায় বিদেশে উচ্চ শিক্ষা গ্রহনের লালিত স্বপ্ন পূরণ ব্যর্থ হচ্ছে—মেয়র

সঠিক তথ্য উপাত্ত না পাওয়ায় বিদেশে উচ্চ শিক্ষা গ্রহনের লালিত স্বপ্ন পূরণ ব্যর্থ হচ্ছে—মেয়র

৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ১৯:৫৫ |    নিজস্ব প্রতিবেদক
  • সঠিক তথ্য উপাত্ত  না পাওয়ায় বিদেশে উচ্চ শিক্ষা গ্রহনের লালিত স্বপ্ন পূরণ ব্যর্থ হচ্ছে—মেয়র

ক্রাইম প্রতিবেদকঃ  চট্টগ্রামে বিগত বছরগুলোর সাফল্যের ধারাবাহিকতায় নগরীর পাঁচতারা হোটেল রেডিসন ব্লু বে ভিউ মেজবান হলে দুইদিন ব্যাপি শুরু হয়েছে মালয়েশিয়ান এডুকেশন এক্সপো ২০১৯। আজ শনিবার থেকে শুরু হওয়া এই শিক্ষা মেলা যৌথভাবে আয়োজন করেছে উইনিং ম্যাগনেটিউড মালয়েশিয়া এবং মেন্টর্স চট্টগ্রাম শাখা। শিক্ষার এই মেলায় মালয়েশিয়ার শীর্ষ স্থানীয় ইউনিভার্সিটি টেকনোলজি মালয়েশিয়া (ইউটিএম), কাটিন ইউনিভার্সিটি, টেইলর ইউনিভার্সিটিসহ ১১টি স্বনামধন্য বিশ্ববিদ্যালয় এর পক্ষ থেকে প্রতিনিধি স্টল খোলা হয়েছে। এই স্টলগুলোতে মালয়েশিয়ার বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি, যোগাযোগ, আবাসনসহ নানান তথ্য সংগ্রহ করার সুযোগ রয়েছে।আজ সকালে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন ফিতা কেটে এডুকেশন এক্সপো ২০১৯ উদ্বোধন করেন।

এ সময় উইনিং ম্যাগনেটিউড চট্টগ্রাম, মেন্টর্স চট্টগ্রামের প্রধান শাখা ব্যবস্থাপক মিস মানজুমা মোর্শেদ, উইনিং ম্যাগনেটিউড মালয়েশিয়ার ব্যবস্থাপনা পরিচালক কাবিলান মুনিয়ান্ডিসহ গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। এই সময় সিটি মেয়র মেলায় অংশগ্রহনকারী মালয়েশিয়ান শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমূহের প্রতিনিধিদের সাথে কুশল বিনিময় করেন এবং এ মেলার আয়োজক ও উদ্যোক্তাদের ধন্যবাদ জানান।
উদ্বোধনকালে সিটি মেয়র বলেন, শিক্ষার জন্য আগ্রহী মালয়েশিয়ানগামী শিক্ষার্থীরা এই মেলার মাধ্যমে সব ধরণের তথ্য পাবেন। বাংলাদেশে অনেক শিক্ষার্থী বিদেশে উচ্চ শিক্ষা গ্রহনে আগ্রহী হলেও সঠিক তথ্য উপাত্ত ও দিক নির্দেশনা না পাওয়ার কারণে দীর্ঘদিনের লালিত স্বপ্ন পূরণে ব্যর্থ হচ্ছে। ইএমজিএস এর উদ্যোগে চট্টগ্রামে  আয়োজিত এ মেলার মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা মালয়েশিয়ান শিক্ষা ব্যবস্থা সম্পর্কে স্বচ্ছ ধারণা লাভ করতে পারবে। সাধ ও সামর্থ্য থাকা আমাদের শিক্ষার্থীদের জন্য এই মেলা কার্যকর এবং সহায়ক ভূমিকা পালন করবে বলে তিনি অভিমত ব্যক্ত করেন।

তিনি আরো বলেন বর্তমান প্রেক্ষাপটে মালয়েশিয়া শিক্ষা ব্যবস্থা আমাদের চেয়ে এগিয়ে রয়েছে। তবে চিকিৎসা বিজ্ঞানে বাংলাদেশ অনেকদূরে এগিয়ে গেছে। বর্তমানে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ, ইউএসটিসি, বিজিসি ট্রাস্টসহ বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে বিদেশী শিক্ষার্থীরা লেখাপড়া করছে। শিক্ষা প্রসঙ্গে মেয়র বলেন আমাদের শিক্ষার হার উর্ধ্বমুখী। এটা খুবই সন্তোষজনক। সরকারের লক্ষ্য হচ্ছে এটিকে শতভাগে উন্নীত করা। সরকারের শিক্ষা মন্ত্রণালয় এ ব্যাপারে নিরন্তর প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। যার ফলে গত ১০ বছরে বাংলাদেশে সঠিক স্বাক্ষরতার হার ২৬ দশমিক ২৪ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়ে ৭২ দশমিক ৯০ শতাংশে উন্নীত হয়েছে। সরকারের এ ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকলে অচিরেই বাংলাদেশে শিক্ষার হার শতভাগে উন্নীত হবে বলে সিটি মেয়র প্রত্যাশা করেন।

মেলায় অংশগ্রহনকারী স্টলগুলোতে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের ব্যাপক ভিড় লক্ষ করা যায়। মেলায় আগত শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা মালয়েশিয়ান শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং ইএমজিএস এর প্রতিনিধিদের সাথে সরাসরি কথা বলে ভর্তি,বৃত্তি সুবিধা এবং ভিসা সংক্রান্ত বিস্তারিত তথ্য সংগ্রহ করেন। এতে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান মেধার ভিত্তিতে শতভাগ বৃত্তি দেয়ার ঘোষনা দেয়। তবে যারা মেলা অংশগ্রহন করতে পারেনি কিন্ত মালয়েশিয়ায় উচ্চ শিক্ষা গ্রহণে আগ্রহী, তারা উইনিং ম্যাগ্নিটিউড চট্টগ্রাম এর কার্যালয় থেকে তথ্য সংগ্রহ করা যাবে বলে আয়োজকরা জানান। মেলায় সকল শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের জন্য সম্পূর্ণ উন্মুক্ত।