banner

শেষ আপডেট ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯,  ২২:১৭  ||   সোমবার, ১৬ই সেপ্টেম্বর ২০১৯ ইং, ১ আশ্বিন ১৪২৬

মিনি চাইনিজ রেষ্টুরেন্টে নগর গোয়েন্দা বিভাগের অভিযানঃ ৪টি রেস্টুরেন্ট বন্ধ

মিনি চাইনিজ রেষ্টুরেন্টে নগর গোয়েন্দা বিভাগের অভিযানঃ ৪টি রেস্টুরেন্ট বন্ধ

৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ১৯:৩১ |    নিজস্ব প্রতিবেদক
  • মিনি চাইনিজ রেষ্টুরেন্টে নগর গোয়েন্দা বিভাগের অভিযানঃ ৪টি রেস্টুরেন্ট বন্ধ
নিজস্ব প্রতিবেদকঃ বানিজ্যিক নগরী চট্টগ্রামের চকবাজারস্থ গুলজার মোড়, পাঁচলাইশ মোড়,চট্টেশ্বড়ী রোড,জিইসি মোড় ও বহদ্দারহাট এলাকায় ব্যাঙের ছাতার মতো বেশ কিছু মিনি চাইনিজ রেস্টুরেন্ট গড়ে উঠেছে। আলো-আঁধারি এ সব রেষ্টুরেন্টগুলোর আঁড়ালে চলছে অসামাজিক কার্য্যকলাপ।
 চট্টগ্রাম মহানগর গোয়েন্দা বিভাগ নগরীর চকবাজার এলাকায় অভিযান চালিয়ে এরকম ৪টি মিনি চাইনিজ রেস্টুরেন্ট বন্ধ করে দিয়েছে । এ সময় এসব রেস্টুরেন্টগুলোতে বিশেষ কায়দায় তৈরি ছোট ছোট অন্ধকার ও গোপনীয় কক্ষ থেকে বিভিন্ন স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীদের আটক করা হয় এবং পরে অভিভাকদের জিম্মায় তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়।
 দীর্ঘদিন ধরে চকবাজার এলাকায় মিনি চাইনিজের নামে  চকবাজার গুলজার মোড় এলাকায় যথাক্রমে,কাশেম টাওয়ারের ২য় তলায় লেগুন মিনি চাইনিজ,নীচ তলায় হারমোনি মিনি চাইনিজ,মদিনা মার্কেটের ৪র্থ তলায় প্যারাডাইস মিনি চাইনিজ, ফুলকলি মিষ্টির দোকানের ২য় তলায় সিটি হার্ট মিনি চাইনিজ,ফরচুন টাওয়ারের ৩য় তলায় নাইস মিনি চাইনিজ, চকবাজার মোড়ে রয়েছে আড্ডা, ড্রীমস, প্যারাডাইজ ও ফেইসবুক মিনি চাইনিজ। গুলজার মোড়ের শাহেন শাহ মার্কেটের ২য় তলায় কফি আইল্যান্ড মিনি চাইনিজ। এই কফি আইল্যান্ড মিনি চাইনিজটি জনৈক পুলিশ ইন্সপেক্টর আনোয়ার কামালের ছোট ভাই জনৈক সুজার বলে পরিচয় দেয় কর্মচারীরা।
এ ছাড়া মতি টাওয়ারের তৃতীয় তলায় শাপলা ফুডস, বনসাই, রেড রোজ, ওয়ান মিনিট, চকবাজার বৌদ্ধ মন্দিরের পাশে পিজা হাউস মিনি চাইনিজ,চট্টেশ্বড়ী রোডে কপি ম্যাক্স,গুলজার টাওয়ারে মামা ক্যাপ,ও ৪র্থ তলায় গ্রীন চিলি,কেয়ারীর সামনে পালভিউ মিনি চাইনিজ, গুলজার টাওয়ারের তৃতীয় তলায় তৃপ্তি ফুডস,সিগাল, রিসতা মিনি চাইনিজ রেস্টুরেন্ট, রাকিব মিনি চাইনিজ সহ আরো অনেক মিনি চাইনিজ রেষ্টুরেন্ট রয়েছে।
চকবাজার এলাকায় স্কুল-কলেজ ও কোচিং সেন্টারগুলোতে পড়তে আসা শিক্ষার্থীরাই এসব মিনি চাইনিজ রেস্টুরেন্টের মূল গ্রাহক বলে জানা গেছে। তাদের টার্গেট করেই গড়ে উঠেছে এসব মিনি চাইনিজ রেস্টুরেন্ট। এসব মিনি চাইনিজ রেষ্টুরেন্টে প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে স্কুল-কলেজের নানা বয়সী ছাত্র-ছাত্রীরা ভিড় করছে। এসব মিনি চাইনিজ রেস্টুরেন্টগুলোতে নানা রঙ্গের কাপড়ের পর্দা দিয়ে আটকানো ছোট ছোট আলো-আধারি ও অন্ধকার রুম রয়েছে। কোন কোনটি আবার শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত এবং মৃদু আলো আর ছোট টুল-টবিলে পরিবেষ্টিত এসব রুম। ওই এলাকার দেড় কিলোমিটারে প্রায় ১৫টি কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে। কলেজগুলোর মধ্যে প্রাচীন চট্টগ্রাম কলেজ ও মহসিন কলেজ এবং ইসলামিক বিশ্ববিদ্যালয়।এছাড়া রয়েছে পুরনো আরো দুটি বিদ্যাপীঠ যেগুলো সম্প্রতি কলেজে উন্নীত হয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠান ছাড়া বাকি ১১টি প্রতিষ্ঠানই বেসরকারি। আর রয়েছে অসংখ্য কোচিং সেন্টার।
গত বুধবার (৪ সেপ্টেম্বর) চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার  মোঃ মাহাবুবর রহমান বিপিএম, পিপিএম এর নির্দেশক্রমে মহানগর গোয়েন্দা (উত্তর)  বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার মোঃ মিজানুর রহমানের তত্ত্বাবধানে সহকারী পুলিশ কমিশনার (ডিবি-দক্ষিণ) পিযুষ চন্দ্র দাস এর নেতৃত্বে গোয়েন্দা (উত্তর) বিভাগের চারটি টিম চকবাজার থানাধীন চকবাজার মোড়স্থ আড্ডা, ড্রীমস, প্যারাডাইজ ও ফেইসবুক নামীয় মিনি চাইনিজ রেষ্টুরেন্টগুলোতে বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে। অভিযান পরিচালনা কালীন সময় রেস্টোরেন্ট গুলোতে বিশেষ কায়দায় তৈরি ছোট ছোট  অন্ধকার ও গোপনীয় কক্ষে বিভিন্ন স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যয়নরত ছাত্র ছাত্রীরা স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় ফাঁকি দিয়ে বন্ধু/বান্ধবী নিয়ে রেস্টুরেন্টগুলোতে মূল্যবান সময় নষ্ট করছিল। এই ছাত্র-ছাত্রীরা উক্ত আলো-আধারী রেস্টুরেন্টগুলোতে যে কোন ধরনের অশ্লীল কার্মকান্ডে লিপ্ত হওয়ার সুযোগ পায় এবং বিনিময়ে রেস্টুরেন্ট কর্তৃপক্ষ মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নেয়। আটককৃত ছাত্র ছাত্রীদের ভবিষ্যতের বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে তাদেরকে অভিবাবকদের নিকট তাদের হস্থান্তর করা হয়এবং ভবিষ্যতে যেন এ ধরনের আলো-আধারী রেস্টুরেন্টের ব্যবসা পরিচালনা করে উদিয়মান ছাত্র-ছাত্রীদের বিপথে গমনে সুযোগ করে দিতে না পারে সেই জন্য পরবর্তী নিদের্শ না দেওয়া পর্যন্ত উল্লেখিত ৪ (চার) টি রেস্টুরেন্টকে তাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার নির্দেশ প্রদান করা হয়।
নগর গোয়েন্দা বিভাগের এধরণের ঝটিকা অভিযানে এলাকাবাসী এবং অভিভাবক মহল সাধুবাদ ও প্রসংশা জানিয়েছে। এ ছাড়া বাকী রেষ্টুরেন্টগুলু ও তদন্ত পূর্বক তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার অনুরোধ জানিয়েছে।