banner

শেষ আপডেট ২০ অগাস্ট ২০১৯,  ২১:৩৬  ||   বুধবার, ২১ই আগষ্ট ২০১৯ ইং, ৬ ভাদ্র ১৪২৬

কুতুবদিয়ায় বড়ঘোপ ইউপির উপ-নির্বাচন: দেড় বছরের চেয়ারম্যান হতে সম্ভাব্য প্রার্থীরা মাঠে

কুতুবদিয়ায় বড়ঘোপ ইউপির উপ-নির্বাচন: দেড় বছরের চেয়ারম্যান হতে সম্ভাব্য প্রার্থীরা মাঠে

২৫ জুন ২০১৯ | ২২:৪৭ |    নিজস্ব প্রতিবেদক
  • কুতুবদিয়ায় বড়ঘোপ ইউপির উপ-নির্বাচন: দেড় বছরের চেয়ারম্যান হতে সম্ভাব্য প্রার্থীরা মাঠে

লিটন কুতুবী, কুতুবদিয়া : আগামী ২৫ জুলাই কুতুবদিয়া উপজেলা সদর বড়ঘোপ ইউনিয়ন পরিষদের উপ-নির্বাচন। বিগত ২০১৬ সালের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বিপুল ভোটে বিজয় ছিনিয়ে নিয়ে এই ইউপির চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছিলেন এডভোকেট ফরিদুল ইসলাম চৌধূরী। তিনি সদ্য ৫ম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় কুতুবদিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। যে কারনে বড়ঘোপ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদটি শূণ্য ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। পরিবর্তী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠানের আর মাত্র বাকি দেড় বছরের একটু বেশী সময়। এই স্বল্প সময়ের জন্য কে সুভাগ্যবান হতে যাচ্ছেন বড়ঘোপ ইউপির চেয়ারম্যান। এ নিয়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে কৌতুহলের শেষ নেয়।
ইউনিয়নটি ঘুরে দেখা যায়, উপজেলা সদর ইউনিয়ন হওয়ায় উপ-নির্বাচন হলেও নির্বাচন অনুষ্ঠান নিয়ে মানুষের আগ্রহ দেখা যাচেছ বেশী। সাধারণ মানুষের মধ্যে যে বিষয়টি সবচেয়ে বেশী দেখা গেছে সেটি হচ্ছে ব্যক্তি প্রাধান্যতা।
উপজেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা যায়, গত ১৮ জুন (মঙ্গলবার) তফসিল ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। আগামী ৩০ জুন মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ ও জমা দানের শেষ দিন। এরপর ২ জুলাই মনোনয়ন বাছাই এবং ৯ জুলাই প্রার্থীতা প্রত্যাহারের শেষ দিন। তারপর ১০ জুলাই প্রতীক বরাদ্দ শেষে ২৫ জুলাই অনুষ্ঠিত হবে নির্বাচন। বড়ঘোপ ইউনিয়নের মোট ভোটার ১৯ হাজার ২৬৩ জন। তৎমধ্যে পুরুষ ভোটার ৯ হজার ৯০৭ জন এবং মহিলা ভোটার ৯ হাজার ৩৫৬ জন। কেন্দ্র সংখ্যা ৯টি।
বড়ঘোপ ইউনিয়ন পরিষদের উপ-নির্বাচনে কুতুবদিয়ায় ক্ষমতাসীন দলের প্রার্থীদের তালিকায় অনেক নেতাকমীর নাম দেখা যাচ্ছে।
আওয়ামী লীগ সমর্থিত সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে এখন পর্যন্ত যাদের নাম শোনা যাচ্ছে তাঁরা হলেন-কুতুবদিয়া উপজেলা আ’লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও ছাত্রনেতা জাহেদুল ইসলাম ফরহাদ মাতবর, আ’লীগের বড়ঘোপ ইউনিয়নের সভাপতি ও বর্তমান বড়ঘোপ ইউপি প্যানেল চেয়ারম্যান আবুল কালাম , ইউনিয়ন আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান টিটু মাতবর, যুবলীগ নেতা রুস্তম আলী মাতবর, আ’লীগ নেতা আলহাজ ছাবের আহমদ কোম্পানি, উপজেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি, তরুন ছাত্রনেতা ওয়াহিদুল রহমান সুজন।
তবে জাতীয় পার্টির কুতুবদিয়া উজেলার সাবেক সভাপতি মরহুম মাস্টার তালেব উল্লাহ সুযোগ্য সন্তান কুতুবদিয়া প্রেসক্লাবের সভাপতি আ.ন.ম শহীদ উদ্দিন ছোটন।
লোকমুখে শুনা যাচ্ছে, জেলা বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মরহুম জালাল আহমদ চৌধুরীর সুযোগ্য পুত্র বিএনপি নেতা জিয়াউল করিম চৌধুরী ঝন্টু , উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মোবারক হোছাইনের পুত্র উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতি মোশাররফ হোসেন বাপ্পা, বড়ঘোপ ইউনিয়নের বিশিষ্ট ব্যবসায় আলহাজ্ব সিরাজুল ইসলাম কোম্পানীর সুযোগ্য পুত্র তৌহিদুল ইসলাম খোকন ,কুতুবদিয়া উপজলা মৎস্যজীবি সমিতির সভাপতি আবুল কালাম আযাদ।
তবে আগামী ৩০ জুন (রবিবার) মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিনে প্রার্থীদের তালিকা আরও দীর্ঘ হতে পারে ।
উল্লেখ্য, ২০১৬ সালে অনুষ্ঠিত হয়েছিলো উপজেলা বড়ঘোপ ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন। ওই নির্বাচনে আ’লীগের সমর্থিত আলহাজ্ব এডভোকেট ফরিদুল ইসলাম চৌধুরী চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। পরে তিনি উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আ’লীগের নৌকা প্রতীকে প্রার্থী হওয়ায় বড়ঘোপ ইউপি চেয়ারম্যান পদ থেকে পদত্যাগ করেন। সে কারণে বড়ঘোপ ইউপি‘র চেয়ারম্যান পদটি নির্বাচন কমিশন আবেদনের প্রেক্ষিতে শূন্য ঘোষণা করেন।