banner

শেষ আপডেট ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯,  ২৩:১৫  ||   রবিবার, ২২ই সেপ্টেম্বর ২০১৯ ইং, ৭ আশ্বিন ১৪২৬

আলমডাঙ্গায় পুলিশ কনস্টেবল জামাইয়ের ছুরিকাঘাতে শ্বাশুড়ি নিহত: আহত ৩

আলমডাঙ্গায় পুলিশ কনস্টেবল জামাইয়ের ছুরিকাঘাতে শ্বাশুড়ি নিহত: আহত ৩

৮ জুন ২০১৯ | ১১:৪৪ |    নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আলমডাঙ্গায় পুলিশ কনস্টেবল জামাইয়ের ছুরিকাঘাতে শ্বাশুড়ি নিহত: আহত ৩

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধিঃ চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গায় সিআইডি কনস্টেবল জামাইয়ের ছুরিকাঘাতে শ্বাশুড়ি নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন স্ত্রী, শ্যালক ও শ্বশুর। আহতদের গুরুতর অবস্থায় উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের মধ্যে দু’জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন চিকিৎসক।

শুক্রবার দিনগত রাত ২টার দিকে উপজেলার শহরের মাদ্রাসা পাড়ায় ওই ঘটনা ঘটে। নিহত শেফালী অধিকারী একই পাড়ার সদানন্দ অধিকারীর স্ত্রী। নিহতের মৃতদেহ উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ। ঘটনার পর পলাতক রয়েছেন অভিযুক্ত অসীম কুমার অধিকারী।

স্থানীয়রা জানান, আলমডাঙ্গা শহরের মাদ্রাসা পাড়ার সদানন্দ অধিকারী ও শেফালী অধিকারী দম্পতির মেয়ে ফাল্গুনী অধিকারীর ৯ বছর আগে বিয়ে দেওয়া হয় খুলনার দৌলতপুরে। জামাই অসীম কুমার অধিকারী পুলিশের সি আই ডি কনস্টেবল।  বর্তমানে তিনি চুয়াডাঙ্গায় কর্মরত। তাদের ৬ বছরের একটি পুত্র সন্তান  রয়েছে।

স্ত্রী – সন্তান নিয়ে অসীম শ্বশুরবাড়ির নিকটবর্তী কলেজপাড়ায় ভাড়াবাড়িতে বসবাস করতেন। শুক্রবার রাতে পরকিয়ার সন্দেহে তিনি স্ত্রীকে শারীরিকভাবে নির্যাতন করেন।পরে স্ত্রী পালিয়ে বাবার বাড়ি গিয়ে উঠেন। রাত দেড়টার সময় অসীম অধিকারী শ্বশুরবাড়ি গিয়ে স্ত্রীর নাম ধরে ডাকাডাকি শুরু করেন। স্ত্রী ঘরের দরজা খুলে দিলে তিনি হাতে থাকা ছুরি দিয়ে স্ত্রী ফাল্গুনী অধিকারীর বুকে ও তলপেটে আঘাত করেন। তার চিৎকারে শ্বাশুড়ি শেফালী অধিকারী ও  শ্যালক আনন্দ অধিকারী ছুটে গেলে অসীম তাদেরকেও ছুরিকাঘাত করে। এতে ঘটনাস্থলেই মারা যান শ্বাশুড়ি শেফালী অধিকারী। শ্বশুর সদানন্দ ঘুম থেকে জেগে ছুটে গেলে তাকেও মারধর করে আহত করেন। পরে স্থানীয়রা গুরুতর আহত অবস্থায় ফাল্গুনী অধিকারী, আনন্দ অধিকারী ও সদানন্দ অধিকারীকে উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেন। আহতদের মধ্যে ফাল্গুনী অধিকারী ও আনন্দ অধিকারীর অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন কর্তব্যরত চিকিৎসক।
খবর পেয়ে রাতেই অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ কলিমুল্লাহ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। খুনের ঘটনায় জড়িত সিআইডি কনস্টেবল অসীম কুমার অধিকারীকে আটক করতে কাজ করছে পুলিশ