banner

শেষ আপডেট ২২ অক্টোবর ২০১৯,  ১৯:১৪  ||   মঙ্গলবার, ২২ই অক্টোবর ২০১৯ ইং, ৭ কার্তিক ১৪২৬

নজরুলের কবিতা ও গান মানুষকে যুগে যুগে শোষন ও বঞ্চনা থেকে মুক্তিপথ দেখায়–মেয়র

নজরুলের কবিতা ও গান মানুষকে যুগে যুগে শোষন ও বঞ্চনা থেকে মুক্তিপথ দেখায়–মেয়র

২৫ মে ২০১৯ | ২০:১৮ |    নিজস্ব প্রতিবেদক
  • নজরুলের কবিতা ও গান মানুষকে যুগে যুগে শোষন ও বঞ্চনা থেকে মুক্তিপথ দেখায়–মেয়র

 ক্রাইম প্রতিবেদক ঃ চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেছেন কবি কাজী নজরুল ইসলাম ছিলেন অসম্প্রাদায়িক চেতনার পথিকৃৎ। তাঁর লেখনী জাতীয় জীবনে অসম্প্রদায়িক চেতনা বিকাশে ব্যাপক ভূমিকা পালন করে। তার কবিতা ও গান মানুষকে যুগে যুগে শোষন ও বঞ্চনা থেকে মুক্তিপথ দেখিয়ে চলেছে। বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে তাঁর গান ও কবিতা ছিল প্রেরণার উৎস। তিনি আজ ২৫ মে শনিবার বিকেলে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে প্রথম বার জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১২০ তম জন্মজয়ন্তী উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন।

নগরীর থিয়েটার ইনস্টিটিউটে চসিক শিক্ষা স্বাস্থ্য স্ট্যান্ডিং কমিটির সভাপতি কাউন্সিলর নাজমুল হক ডিউকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় প্রফেসর হাসিনা জাকারিয়া বেলা মুখ্য আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সংরক্ষিত ওয়ার্ড কাউন্সিলর আবিদা আজাদ, পূর্ব বাকলিয়া সিটি কর্পোরেশন কলেজের অধ্যক্ষ আবু তালেব বেলাল।

সিটি মেয়র আরো বলেন, কবি কাজী নজরুল ইসলাম বাংলা সাহিত্য জগতে এক শক্তিমান কবি হিসেবে আবির্ভূত হন। তাঁর সাহিত্য জীবনের পরিধি মূলত ২৩ বছর। প্রথম ১০ বছর প্রধানত কবিতা, শেষ ১৩ বছর মূখ্যত সংগীত রচনা করেছে। কিছু কিছু উপন্যাস, ছোট গল্প ও প্রবন্ধ রচনা করলেও কবিতা আর গানের মধ্যে বিচিত্র মুখী প্রতিভার উজ্জ্বল স্ফরণ ঘটেছিল। কবি নজরুল মৃত্যুর আগ পর্যন্ত এই সাহিত্য কর্ম করতে পারলে বাংলা সাহিত্য সমৃদ্ধির ক্ষেত্রে আরো উচ্চতর মাত্রায় পৌছে যেত বলে তিনি উল্লেখ করেন।

এ প্রসঙ্গে মেয়র বলেন, সাহিত্য রচনা ক্ষেত্রে কাজী নজরুলের তুলনা নজরুলই। তিনি মনে প্রানে অসম্প্রদায়িক চেতনায় বিশ্বাসী ছিলেন। তাঁর রচনায় ধনিত হয়েছে শোষিত, বঞ্চিত মানুষের মুক্তির বার্তা। মানবতার মুক্তির পাশাপাশি সাম্প্রদায়িকতা, ধর্মান্ধতা ও কুসংস্কারের বিরুদ্ধে ছিল সোচ্চার ছিলেন নজরুল।