banner

শেষ আপডেট ১৫ জুন ২০১৯,  ১৯:২৩  ||   রবিবার, ১৬ই জুন ২০১৯ ইং, ২ আষাঢ় ১৪২৬

রেলস্টেশন থেকে পাচারকারীসহ তিন রোহিঙ্গা গ্রেফতার

রেলস্টেশন থেকে পাচারকারীসহ তিন রোহিঙ্গা গ্রেফতার

২০ মে ২০১৯ | ২০:৩৬ |    নিজস্ব প্রতিবেদক
  • রেলস্টেশন থেকে পাচারকারীসহ তিন রোহিঙ্গা গ্রেফতার

ক্রাইম প্রতিেদকঃ  চট্টগ্রাম রেলস্টেশন থেকে নারীসহ এক রোহিঙ্গা দম্পতিকে গ্রেফতার করেছে রেলওয়ে পুলিশ। ট্রেনযোগে সিলেট যাওয়ার পথে এদের গ্রেফতার করা হয়। সিলেট থেকে সীমান্ত পার হয়ে ভারতে যাওয়ার পরিকল্পনা ছিল তাদের, এমনটাই জানিয়েছে রেলওয়ে পুলিশ। এসময় সীমান্ত পার করে দেওয়ার নাম করে তাদের ক্যাম্প থেকে নিয়ে আসার অভিযোগে এক বাঙালি যুবককে গ্রেফতার করেছে রেলওয়ে পুলিশ। গত রোববার রাতে এই তিন রোহিঙ্গাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। গ্রেফতারকৃতরা হল আলী হোসেন (৬০), তার স্ত্রী সাহেরা খাতুন (৫৫) ও মেয়ে সাবেকুন নাহার (১৭)। তারা কুতুপালং ক্যাম্পের বাসিন্দা।

অন্যদিকে এ ঘটনায় পাচারকারী হিসেবে অভিযুক্ত আব্দুল মান্নান সিলেটের কানাইঘাট উপজেলার দোনা চা-বাগিচা গ্রামের বাসিন্দা। সে পেশায় একজন গরু ব্যবসায়ী বলে জানিয়েছেন চট্টগ্রামের রেলওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাফিজ ভূঁইয়া।
এদিকে পুলিশের সন্দেহ গ্রেফতারকৃত আব্দুল মান্নান (৩০) পাচারকারী। ভারতীয় সীমান্ত রক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) সাহায্য নিয়ে এ তিন রোহিঙ্গাকে সীমান্ত পার করে দেওয়ার পরিকল্পনা ছিল তার, এমনটাই জানিয়েছে মান্নান।
রেলওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাফিজ ভূঁইয়া বলেন, গত রাতে স্টেশনে সন্দেহজনকভাবে ঘোরাঘুরি করতে দেখে তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করি। ভাষা নিয়ে সন্দেহ হওয়ায় তাদেরকে আটক করি। পরে তারা জানিয়েছে তারা রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে ভারত যাওয়ার জন্য সিলেটে যাচ্ছে। চুক্তির ভিত্তিতে তাদের পার করে দেওয়ার দায়িত্ব নেওয়া মান্নানের সাথে তাদের কোন পূর্ব পরিচয় নেই বলে জানিয়েছে তারা।

তিনি আরও বলেন, আলী হোসেন বলেছে সলিম নামে আরেক রোহিঙ্গা যুবকের সাথে ৩৫ হাজার টাকার চুক্তি করেছেন তিনি। সেই সলিমই মান্নানের মাধ্যমে তাদের ভারত পাঠানোর ব্যবস্থা নেয়।

অন্যদিকে মান্নান বলছে, ভারতের জনৈক জসিম তাকে বলেছে আলী হোসেনদের ভারত পার করে দিতে। তবে আলী হোসেন বলছে ভারতে কারো সাথে তার কোন যোগাযোগ হয়নি। তিনি বলেন, দুজনের কথা মিল নেই। এছাড়া সীমান্তের একটা চেইনের কথা উঠে আসছে। আমরা ধারণা করছি এখানে একটা চক্র কাজ করছে। যারা রোহিঙ্গাদের ভুল বুঝিয়ে পাচার করছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে মান্নান জানিয়েছে বিএসএফের সাহায্য নিয়ে এদেরকে সীমান্ত পার করার পরিকল্পনা ছিল তার। এই ঘটনায় পাচারকারী হিসেবে অভিযুক্ত আব্দুল মান্নান ও সলিমের বিরুদ্ধে মানব পাচার আইনে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।