banner

শেষ আপডেট ১৯ জুলাই ২০১৯,  ২১:৪২  ||   শনিবার, ২০ই জুলাই ২০১৯ ইং, ৫ শ্রাবণ ১৪২৬

ধর্মীয় শিক্ষায় শিক্ষিত হচ্ছে বান্দরবানের সনাতনী সম্প্রদায়ের ক্ষুদে শিক্ষার্থীরা

ধর্মীয় শিক্ষায় শিক্ষিত হচ্ছে বান্দরবানের সনাতনী সম্প্রদায়ের ক্ষুদে শিক্ষার্থীরা

১৪ মে ২০১৯ | ২০:০৬ |    নিজস্ব প্রতিবেদক

রাহুল বড়ুয়া ছোটন, বান্দরবান॥ ধর্মীয় শিক্ষায় শিক্ষিত হচ্ছে বান্দরবানের সনাতনী সমাজের ক্ষুদে ছাত্র-ছাত্রীরা। প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার পাশাপাশি ধর্মীয় শিক্ষায় নিজেদের আলোকিত করার এই বৃহৎ প্রয়াসে খুশি শিক্ষক, ছাত্র-ছাত্রী ও গীতা শিক্ষা কার্যক্রম সংশ্লিষ্টরা।
বান্দরবানের বালাঘাটা সার্বজনীন শ্রী শ্রী রক্ষাকালী মন্দির। জেলা সদরের কয়েকটি সনাতনী সম্প্রদায়ের মন্দিরের মধ্যে এই মন্দিরের কার্যক্রম অনেকটাই ব্যতিক্রম। ধর্মের পথ থেকে যখন অনেকেই বিচ্যুত হয়ে নানান অপকর্মের সাথে যুক্ত হচ্ছে, ঠিক সেই সময়ে সনাতনী সম্প্রদায়ের ক্ষুদে শিক্ষার্থীদের ধর্মীয় অন্যতম ধর্মগ্রন্ত গীতা শিক্ষা প্রশিক্ষণ দিচ্ছে এই মন্দিরের উদ্যোগে। আর প্রতি শুক্রবার সকালে গীতা শিক্ষা ও ধর্মীয় জ্ঞান পেয়ে আনন্দিত শিশু শিক্ষার্থীরা।
গীতা পাঠ কার্যক্রমে অংশ নেয়া শিক্ষার্থী স্বপ্না দাশ বলেন, আমরা প্রতি শুক্রবার সকালে বালাঘাটা সার্বজনীন শ্রী শ্রী রক্ষাকালী মন্দিরে চলে আসি। ধর্মীয় জ্ঞান লাভ আর শুদ্ধ গীতা শিক্ষার জন্য আমরা সবাই এখানে সমবেত হয়, আর শিক্ষকরা আমাদের ভালোভালো গীতা শিক্ষা দেন।
গীতা পাঠ কার্যক্রমে অংশ নেয়া শিক্ষার্থী রাহুল দাশ বলেন, আমরা ধর্মীয় জ্ঞান লাভ করছি এই গীতা শিক্ষা কার্যক্রমের মাধ্যমে। আমরা সবাই মিলে মনোযোগ সহকারে এখানে ধর্মীয় শিক্ষা গ্রহণ করি, আমরা মনে করি এই শিক্ষা আমাদের অনেক কাজে আসবে।
২০১৫ সালের মার্চ মাসে শুরু হয় বিনামুল্যে এই গীতা শিক্ষা কার্যক্রম। প্রথম অবস্থায় মাত্র ১৫ জন ছাত্র-ছাত্রী এই গীতা স্কুলে ভর্তি হলে ও পরে ধীরে ধীরে বাড়তে থাকে ছাত্র-ছাত্রীদের আনাগোনা, আর এখন ১শত ৬০ জন ছাত্র-ছাত্রী এই স্কুলে ধর্মীয় শিক্ষায় শিক্ষা গ্রহণ করছে।
গীতা শিক্ষা কার্যক্রম সংশ্লিষ্টরা জানান, বিদ্যালয়ে সনাতনী ধর্মীয় শিক্ষায় রয়েছে যতেষ্ঠ ঘাটতি। শুধু শ্রেনী পাশ করা আর মানযুক্ত শিক্ষা গ্রহণ করাই বিদ্যালয়ের কার্যক্রম হলে ও ধর্মীয় শিক্ষায় সনাতনী সমাজের ছাত্র-ছাত্রীরা এখনো রয়েছে অনেক পিছঁনে। বিদ্যালয়ে সনাতনী সম্প্রদায়ের শিক্ষার্থীরা সঠিক ভাবে ধর্মীয় রীতিনীতি সর্ম্পকে বিশদ ধারণা পায় না, আর সে অনুভুতি থেকেই সনাতনী সমাজের কল্যাণে এই গীতা শিক্ষা কার্যক্রম।
বালাঘাটা সার্বজনীন শ্রী শ্রী রক্ষাকালী মন্দিরের গীতা পাঠদান শিক্ষক হরিপদ নাথ বলেন, শিশু কিশোরদের পর্যাপ্ত ধর্মীয় শিক্ষা প্রদানের লক্ষ্য নিয়ে আমরা এই গীতা শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা করছি আর এই গীতা শিক্ষার মাধ্যমে সনাতনী ক্ষুদে শিক্ষার্থীরা অনেক এগিয়ে যাবে বলে আশা আমাদের সকলের।
বালাঘাটা সার্বজনীন শ্রী শ্রী রক্ষাকালী মন্দিরের সভাপতি প্রিয়তোষ দাশ বলেন, শিশু কিশোরদের মধ্যে পাঠদানের শুরুতেই বিদ্যালয়ের পাশাপাশি নিজস্ব উদ্যোগে ধর্মীয় জ্ঞান পাঠদান ও গীতা শিক্ষা কার্যক্রমের এই উদ্যোগ প্রশংসনীয়তার দাবিদার। আর ধর্র্মীয় এই জ্ঞানলাভে আজকের ক্ষুদে শিক্ষার্থীরা আগামীতে একজন ধার্মিক ও সৎ ব্যক্তি হিসেবে সমাজে সামাজিক কর্মকান্ডে অংশ নেবে।
বালাঘাটা সার্বজনীন শ্রী শ্রী রক্ষাকালী মন্দিরের সভাপতি প্রিয়তোষ দাশ আরো বলেন, আমরাই প্রথম বান্দরবানে শিশু কিশোরদের মধ্যে গীতা শিক্ষা পাঠদানের কার্যক্রম শুরু করি এবং ১৫ জন ছাত্র-ছাত্রী নিয়ে যাত্রা করে আজ ১৬০ জন শিক্ষার্থীকে গীতা শিক্ষা দিচ্ছি।
সনাতনী নেতৃবৃন্দরা জানান, সরকারি ও বেসরকারি সহায়তা অব্যাহত থাকলে সনাতনী সমাজের এই গীতা শিক্ষা কার্যক্রম ছড়িয়ে পড়বে পাহাড়ের বিভিন্ন দুর্গম গ্রামে, আর এই গীতা শিক্ষা কার্যক্রমে অংশ নিয়ে আজকের শিশুরা আগামী দিনে সুন্দর দেশ গড়তে অংশ নেবে।