banner

শেষ আপডেট ১৯ জুলাই ২০১৯,  ২১:৪২  ||   শনিবার, ২০ই জুলাই ২০১৯ ইং, ৫ শ্রাবণ ১৪২৬

চসিকের হ্যোল্ডিং ট্যাক্স আদায় পক্ষ শুরু : প্রথম দিনে প্রায় ১১ লক্ষ ৩২ হাজার টাকা পরিশোধ

চসিকের হ্যোল্ডিং ট্যাক্স আদায় পক্ষ শুরু : প্রথম দিনে প্রায় ১১ লক্ষ ৩২ হাজার টাকা পরিশোধ

১৬ এপ্রিল ২০১৯ | ২১:৪২ |    নিজস্ব প্রতিবেদক
  • চসিকের হ্যোল্ডিং ট্যাক্স আদায় পক্ষ শুরু : প্রথম দিনে প্রায় ১১ লক্ষ ৩২ হাজার টাকা পরিশোধ

ক্রাইম প্রতিবেদকঃ প্রথমবারের মতো চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে শুরু হয়েছে হ্যোল্ডিং ট্যাক্স আদায় পক্ষ। আজ মঙ্গলবার সকালে চট্টগ্রাম শপিং কমপ্লেক্স-এ নীচ তলায় হ্যোল্ডিং ট্যাক্স আদায় পক্ষ উদ্যাপন কর্মসূচির উদ্বোধন করেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আ.জ.ম.নাছির উদ্দীন। হ্যোল্ডিং ট্যাক্স আদায় পক্ষ অনুষ্টানে বিভিন্ন মহল্লাবাসী এবং প্রতিষ্টানের পক্ষে প্রায় ১১ লক্ষ ৩২ হাজার টাকা নগদ এবং চেকের মাধ্যমে সিটি মেয়রের কাছে পরিশোধ করেন।

আগামী ৩০শে এপ্রিল পর্যন্ত চসিকের ৮টি রাজস্ব সার্কেলে একযোগে এ পক্ষ উদ্যাপন করা হচ্ছে। হ্যোাল্ডিং ট্যাক্স আদায় পক্ষ চলাকালিন সময়ে হ্যোল্ডিং মালিকগন স্ব-স্ব ওয়ার্ডের আওতাধীন রাজস্ব সার্কেল সমুহে সারচার্জ বিহীন পৌরকর প্রদানের সুযোগ রয়েছে।এছাড়া নগরীর হ্যোল্ডিং মালিকগন সহজে কর পরিশোধ করার যে সকল প্রক্রিয়া রয়েছে – তা জানতে পারবে।

উদ্বোধন উপলক্ষে আয়োজিত সমাবেশে সিটি মেয়র বলেন, নাগরিক সেবার স্বার্থে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের আর্থিক সক্ষমতা প্রয়োজন। সম্মাণিত নাগরিকদের সেবা এবং উন্নয়ন কার্যক্রম পরিচালনার জন্য রাজস্ব আদায় ছাড়া বিকল্প কোন পথ খোলা নেই। বাস্তবতাকে অনুধাবন করে তিনি নাগরিকদের নিয়মিত পৌরকর পরিশোধ করার আহবান জানান।

তিনি বলেন, সম্মানিত নাগরিকগণ পানি, বিদ্যুৎ, গ্যাসসহ অন্যান্য সুবিধার জন্য যেভাবে বিল পরিশোধ করে সেবা পেয়ে থাকেন, ঠিক একই ভাবে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের পৌরকর পরিশোধ করে নাগরিক সেবা গ্রহণ করতে হবে। সরকারি-বেসরকারি সকলের সমুন্নত পৌরকর প্রদানের পরিবেশ আমরা সৃষ্টি করতে চাই। সরকারী বেসরকারি মিলে যে ট্যাক্স সিটি কর্পোরেশন পায়, তা দিয়ে কর্পোরেশনের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন ভ্রাতাদিও হয় না। তারপরেও চসিক পরিচালিত শিক্ষাখাতে ৪৩ কোটি টাকা,স্বাস্থ্য খাতে ১৩কোটি সর্বমোট ৫৬ কোটি টাকা ভুতর্কি দিচ্ছে চসিক। এতে নগরবাসীর ৬০ হাজার সন্তান-সন্তানাদি পড়ালেখা করছে এবং বছরে লক্ষাধিক নগরবাসী সুলভ মুল্যে স্বাস্থ্য সেবা নিচ্ছে চসিক প্রতিষ্টান থেকে।

  অনুষ্টানে সিটি মেয়র কনজারবেন্সী নন-কনজারভেন্সী ওয়ার্ডে ট্যাক্স-সম্পর্কেরও কথা বলেন। এলক্ষে গণমাধ্যম কর্মীরা নগরবাসীকে পৌরকর পরিশোধে উদ্বুদ্ধ করার ক্ষেত্রে অগ্রনী ভুমিকা পালন করতে পারে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

সিটি মেয়র আরো বলেন, দায়িত্ব পালন করতে গেলে নানামুখি চ্যালেন্স ও প্রতিবন্ধকতা মোকাবেলা করতে হয়। তবে ধীরে ধীরে মানুষের দৃষ্টিভঙ্গির পরিবর্তন হচ্ছে পাশাপাশি অবকাঠামোগত উন্নয়ন ঘটছে ,এরই সাথে তাল মিলিয়ে নগরের সার্বিক উন্নয়ন চলমান রয়েছে। এই সকল উন্নয়নের পেছনে পৌরকর অবশ্যই গুরুত্বপূর্ণ। এই পৌরকর সহজীকরণের সুবিধার্থে ইতোমধ্যে ব্যাংকের সাথে চুক্তি করেছে চসিক। পৌরকর নিয়ে আমরা সবাই দায়িত্বশীল নাগরিক হয়ে চসিকের সহযোগী হলে চট্টগ্রামের বাস্তব চিত্র পরিবর্তন করা সম্ভব হবে এবং চট্টগ্রামকে নান্দনিক ও বিশ্বমানের নগরে পরিনত করা সম্ভব হবে। তাই তিনি সকল শ্রেণী ও পেশার সহযোগিতা প্রত্যাশা করেন।

অনুষ্টানে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের ভারপ্রাপ্ত প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা,সচিব মোহাম্মদ আবু শাহেদ চৌধুরী সভাপতিত্ব করেন।মঞ্চে কাউন্সিলর মোহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন,মোহাম্মদ শাহেদ ইকবাল বাবু,কফিল উদ্দিন খান,সংরক্ষিত ওয়ার্ড কাউন্সিলর মিসেস জেসমিন পারভীন জেসি রাজস্ব সার্কেলের কর,উপ-কর কর্মকর্তা এবং শপিং কম্েপ্লক্স ব্যবসায়ী সমিতির নেতৃবৃন্দ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।