banner

শেষ আপডেট ২৪ অগাস্ট ২০১৯,  ২২:৪১  ||   শনিবার, ২৪ই আগষ্ট ২০১৯ ইং, ৯ ভাদ্র ১৪২৬

নির্বাচনের পর পশ্চিম তীরকে ইসরালের অন্তর্ভুক্ত করা হবে : নেতানিয়াহু

নির্বাচনের পর পশ্চিম তীরকে ইসরালের অন্তর্ভুক্ত করা হবে : নেতানিয়াহু

৭ এপ্রিল ২০১৯ | ২৩:০৪ |    নিজস্ব প্রতিবেদক
  • নির্বাচনের পর পশ্চিম তীরকে ইসরালের অন্তর্ভুক্ত করা হবে : নেতানিয়াহু

আন্তর্জাতিক : ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু শনিবার দেশটির আসন্ন সাধারণ নির্বাচনে নির্বাচিত হলে অধিকৃত পশ্চিম তীরকে ইসরাইলের অন্তর্ভুক্ত করার অঙ্গীকার করেছেন।
আগামী ৯ এপ্রিল নির্বাচনকে সামনে রেখে তিনি এ মন্তব্য করেন।
তার এ মন্তব্যকে ডানপন্থী ভোটারদের কাছে ভোটের আবেদন হিসেবে দেখা হচ্ছে। এরা ফিলিস্তিনের সঙ্গে কোন ধরনের শান্তি চুক্তিতে বিশ্বাসী নয়।খবর বার্তা সংস্থা এএফপি’র।
চ্যানেল ১২ টেলিভিশনকে দেয়া এক সাক্ষাতকারে তিনি বলেন, ‘আমি ইসরাইলের সার্বভৌমত্ব প্রতিষ্ঠিত করব। তবে আমি বিচ্ছিন্ন ও সংযোজিত বসতিগুলোর মধ্যে কোন পার্থক্য দেখি না।’
১৯৬৭ সালের ছয় দিনের যুদ্ধের পর দখলকৃত এলাকাগুলোতে ইসরাইল বসতিগুলো স্থাপন করে। আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় এই বসতিগুলোর বৈধতা স্বীকার করে না। এই এলাকাগুলোতে তাদের চলমান নতুন নতুন বসতি নির্মাণকে শান্তির পথে বড় ধরনের বাধা হিসেবে দেখা হচ্ছে।
নেতানিয়াহুর অঙ্গীকার অনুযায়ী পশ্চিম তীরকে ইসরাইলের অন্তর্ভূক্ত করা হলে দুই রাষ্ট্র সমাধান প্রক্রিয়ার ইতি ঘটতে পারে।
শুক্রবার নেতানিয়াহুর সাক্ষাতকারটি সম্প্রচারিত হয়।
তিনি আমেরিকান ভবিষ্যত শান্তি পরিকল্পনার অংশ হিসেবে কোন বসতি বা জনগনকে উচ্ছেদ করবেন না বলে মার্কিন প্রেসিডন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে জানিয়েছেন।
নেতানিয়াহু চ্যানেল ১৩ টেলিভিশনকে বলেন, ‘আমি তাকে বলেছি যে অধিকৃত পশ্চিমতীর থেকে একটি বসতিও উচ্ছেদ করা উচিত না।’
ইসরাইলের সামরিক আগ্রাসনের অংশ হিসেবে দখলকৃত পশ্চিম তীরের বসতিগুলোতে ৪ লাখের বেশি ইসরাইলি বাস করে। এখানে ফিলিস্তিনী বাস করে ২৫ লাখেরও বেশি।
এছাড়াও জেরুজালেমের পূর্বে দখলকৃত বসতিগুলোতে আরো দুই লাখ ইসরাইলি বাস করে। এই এলাকাটিতে ইসরাইল ইতোমধ্যেই তার সম্পূর্ণ সার্বভৌমত্ব প্রতিষ্ঠা করেছে।