banner

শেষ আপডেট ২০ এপ্রিল ২০১৯,  ১৮:৪৮  ||   বুধবার, ২৪ই এপ্রিল ২০১৯ ইং, ১১ বৈশাখ ১৪২৬

আগামী দুই বছরে ৫৪৭ টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ওয়াইফাই জোন করে দেওয়া হবে : তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী

আগামী দুই বছরে ৫৪৭ টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ওয়াইফাই জোন করে দেওয়া হবে : তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী

৬ এপ্রিল ২০১৯ | ২০:১১ |    নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আগামী দুই বছরে ৫৪৭ টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ওয়াইফাই জোন করে দেওয়া হবে : তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী

ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেছেন, আগামী দুই বছরের মধ্যে ৫৪৭টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ওয়াইফাই জোন করে দেওয়া হবে। যাতে শিক্ষার্থীরা ইন্টারনেট ব্যবহার করে প্রযুক্তিগত জ্ঞান আহরণে উদ্বুদ্ধ হয়।আজ শনিবার ঢাকার মিরপুর সেনানিবাসস্থ বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালস্ (বিইউপি)-এর বিজয় অডিটোরিয়ামে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
‘বিইউপি টেকসারজেন্স-২০১৯’ প্রতিযোগিতার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।
বিইউপি’র তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের অধীনে বিইউপি ইনফো টেক এবং রোবোট্কিস ক্লাব যৌথভাবে দুই দিনব্যাপী এই প্রতিযোগিতার আয়োজন করে।
ডাক, টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান যাতে ডিজিটাল প্রযুক্তি আওতার বাইরে না থাকে, তার জন্যে তিনি সকলকে পদক্ষেপ নেওয়ার আহবান জানান।
আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তরের (আইএসপিআর) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানানো হয়েছে।
মোস্তাফা জব্বার বলেন, চতুর্থ ইন্ডাস্ট্রিয়াল রেভুলেশনে টিকে থাকতে হলে বিজ্ঞান পড়ুয়া ছাত্র-ছাত্রীদের প্রযুক্তিগত উন্নয়ন ছাড়া সম্ভব নয়।
বাংলাদেশের প্রযুক্তিগত উন্নয়নে ডিজিটাল রূপান্তরের ক্ষেত্রে বিভিন্ন সেক্টরে প্রধানমন্ত্রীর আইসিটি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের দূরদৃষ্টি ও চিন্তা ভাবনার কথাও তিনি উল্লেখ করেন।
আইএসপিআর জানায়, ‘বিইউপি টেকসারজেন্স-২০১৯’ প্রতিযোগিতায় বিভিন্ন ইভেন্টসমূহের মধ্যে ছিল ইন্টার-ইউনিভার্সিটি প্রোগ্রামিং কনটেস্ট, হ্যাকাথন, রোবোসকার, ম্যাথ অলিম্পিয়াড, আইসিটি অলিম্পিয়াড, প্রজেক্ট শোকেসিং, পোস্টার প্রেজেন্টেশন, গেমিং প্রতিযোগিতা, লাইট ফলোয়ার রোবট প্রতিযোগিতা ও আইটি বিজনেস আইডিয়া প্রতিযোগিতা ইত্যাদি।
এবারের প্রতিযোগিতায় ২০টি কলেজ ও ৬০টি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রায় ১৪০০ শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিইউপি’র ভাইস চ্যান্সেলর মেজর জেনারেল মো. এমদাদ উল বারী এবং বিইউপির প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. এম আবুল কাশেম মজুমদার।
এছাড়া, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের আমন্ত্রিত অতিথি, গণমাধ্যমকর্মীসহ বিইউপির সকল স্তরের শিক্ষক, কর্মকর্তা ও শিক্ষার্থীবৃন্দ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।