banner

শেষ আপডেট ১৫ জুন ২০১৯,  ১৯:২৩  ||   সোমবার, ১৭ই জুন ২০১৯ ইং, ৩ আষাঢ় ১৪২৬

জিয়াউর রহমান তার জীবদ্দশায় নিজেকে কখনো স্বাধীনতার ঘোষক বলে দাবি করেননি–তথ্যমন্ত্রী

জিয়াউর রহমান তার জীবদ্দশায় নিজেকে কখনো স্বাধীনতার ঘোষক বলে দাবি করেননি–তথ্যমন্ত্রী

৭ মার্চ ২০১৯ | ২০:২৫ |    নিজস্ব প্রতিবেদক
  • জিয়াউর রহমান তার জীবদ্দশায় নিজেকে কখনো স্বাধীনতার ঘোষক বলে দাবি করেননি–তথ্যমন্ত্রী

তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেন, বিএনপি ইতিহাসবিকৃতির অপচেষ্টা করলেও বিশ্বব্যাপী আমাদের স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস লিপিবদ্ধ রয়েছে।তিনি আজ বৃহস্পতিবার রাজধানীর কাকরাইলে চলচ্চিত্র ও প্রকাশনা অধিদপ্তরে (ডিএফপি) ‘১৯৭১ সালের ৭ মার্চ সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে (তৎকালীন রেসকোর্স ময়দানে) জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বাধীনতার ঘোষণার ওপর চলচ্চিত্র প্রদর্শনী ও আলোচনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় একথা বলেন।
ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উপলক্ষে ডিএফপি এ প্রদর্শনীর আযোজন করে।
জিয়াউর রহমান তার জীবদ্দশায় নিজেকে কখনো স্বাধীনতার ঘোষক বলে দাবি করেননি উল্লেখ করে ড.হাছান বলেন, ২৫ মার্চ রাতে বঙ্গবন্ধুর দেয়া ঘোষণা তিনি (মেজর জিয়া) ২৭ মার্চ বঙ্গবন্ধুর পক্ষে পাঠ করেন। আর আমাদের স্বাধীনতা দিবস ২৬ মার্চ।
আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর স্বাধীনতার ঘোষণা দেশের বিভিন্ন জায়গায় অনেক মানুষই প্রচার করেছেন। ২৫ মার্চ দিবাগত রাতে ঢাকাসহ যেসব জায়গায় পাকবাহিনী হত্যাযজ্ঞ চালায়, তার মধ্যে বন্দরনগরী চট্টগ্রাম অন্যতম।
তিনি বলেন, সে-বিভীষিকাময় রাতের পরদিন চট্টগ্রামের আওয়ামী লীগকর্মী নূরুল হক শহরের বিভিন্ন স্থানে মাইকিং করে বঙ্গবন্ধুর স্বাধীনতার ঘোষণা প্রচার করতে থাকেন। কিন্তু জিয়াউর রহমান চার দেয়ালের মধ্যে নিরাপত্তারক্ষী পরিবেষ্টিত অবস্থায় বঙ্গবন্ধুর পক্ষে স্বাধীনতার ঘোষণা পাঠ করেন।
তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘নূরুল হক জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মাইকিং করে স্বাধীনতার ঘোষণা প্রচার করায় বঙ্গবন্ধুর স্বাধীনতার ঘোষণা প্রচারে জিয়ার চেয়ে চট্টগ্রামের নূরুল হকের কৃতিত্ব বেশি।’ তথ্যসচিব আবদুল মালেক এ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন। সভাপতিত্ব করেন চলচ্চিত্র ও প্রকাশনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মোহাম্মদ ইসতাক হোসন।
তথ্যমন্ত্রী এসময় বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণকে স্বাধীনতার জন্য প্রস্তুতির ডাক হিসেবে বর্ণনা করে বলেন, ‘জাতির পিতার এ ভাষণের মধ্য দিয়েই বাঙালির স্বাধীনতার আন্দোলন চুড়ান্ত সংগ্রামের দিকে এগিয়ে যায়।