banner

শেষ আপডেট ২০ এপ্রিল ২০১৯,  ১৮:৪৮  ||   শনিবার, ২০ই এপ্রিল ২০১৯ ইং, ৭ বৈশাখ ১৪২৬

চক্ষু সেবার পরিধি বাড়াতে দক্ষ অপটোমেট্রিস্ট ভূমিকা রাখবে–ডা. রবিউল হোসেন

চক্ষু সেবার পরিধি বাড়াতে দক্ষ অপটোমেট্রিস্ট ভূমিকা রাখবে–ডা. রবিউল হোসেন

১৭ জানুয়ারী ২০১৯ | ২০:৫৭ |    নিজস্ব প্রতিবেদক
  • চক্ষু সেবার পরিধি বাড়াতে দক্ষ অপটোমেট্রিস্ট ভূমিকা রাখবে–ডা. রবিউল হোসেন

 

 

ক্রাইম প্রতিবেদকঃ ব্যাচেলর অব সায়েন্স ইন অপটোমেট্রি কোর্সের ১০ তম ব্যাচের নবীন বরণ আজ বৃহস্পতিবার সকাল ৯ টায় চট্টগ্রাম চক্ষু হাসপাতাল ও প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের ইমরান সেমিনার হলে অনুষ্ঠিত হয়।

হাসপাতালের ইনস্টিটিউট অব কমিউনিটি অফথালমোলোজি (আইসিও)’র উদ্যোগে আয়োজিত অনুষ্ঠান মাওলানা হাফিজ আহমেদ ভূঁইয়ার কোরআন তেলাওয়াতের মাধ্যমে সূচনা হয়।

আইসিও’র পরিচালক অধ্যাপক ডা. খুরশীদ আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অতিথি ছিলেন, হাসপাতালের ম্যানেজিং ট্রাস্টি উপমহাদেশের প্রখ্যাত চক্ষু বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. রবিউল হোসেন, আগ্রাবাদ মা ও শিশু হাসপাতাল মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ডা. এ এস এম মোশতাক আহমেদ, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের ইউরোলোজী ডিপার্টমেন্টের এসোসিয়েট প্রফেসর ডা. মনোয়ারুল হক শামীম, চট্টগ্রাম চক্ষু হাসপাতালের মেডিকেল ডিরেক্টর ডা. মো. কামরুল ইসলাম, আইসিও’র অধ্যাপক ডা. মনিরুজ্জামান ওসমানী, হাসপাতালের কনসালটেন্ট এন্ড ফ্যাকো সার্জন ডা. রাজীব হোসেন।

আইসিও’র জুনিয়র রিসার্স অফিসার মিস তানজিলা মোহনার উপস্থাপনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন, আইসিও’র লেকচারার জুয়ের দাস গুপ্ত।

অনুষ্ঠানে ব্যাচেলর অব সায়েন্স ইন অপটোমেট্রি কোর্সের ১ম, ২য় ও ৩য় বর্ষের সমাপনী পরিক্ষায় প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয়স্থান অধিকারী ৯ জন মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীকে বৃত্তি ও শিক্ষা সনদ প্রদান করা হয়। হাসপাতালের কনসালটেন্ট ডা. মর্তুজা নুর উদ্দিন,কনসালটেন্ট ডা. শামস নোমান, ডা. সাহেলা বেগমসহ অতিথিবৃন্দ এদের হাতে বৃত্তির অর্থ ও সনদ তুলে দেন।
সারা দেশে চক্ষু সোবার পরিধি বাড়ানোর লক্ষ্যে দক্ষ অপটোমেট্রিস্ট ব্যাপক ভূমিকা রাখতে পারে উল্লেখ করে হাসপাতালের ম্যানেজিং ট্রাস্টি অধ্যাপক ডা. রবিউল হোসেন বলেন, উন্নত বিশ্বে অপটোমেট্রি বহুল প্রচলিত নাম হলেও আমাদের দেশে এটি একেবারে নতুন।
এখানে অপটোমেট্রি গ্রেজুয়েশন কোর্স শুরু হয়েছে ১০ বছর আগে। একমাত্র এই চক্ষু হাসপাতালে দেশের প্রথম কোর্সটি চালুর পর থেকে দিন দিন চাহিদা বৃদ্ধি পাচ্ছে। যার ফলে আমরা চাচ্ছি অপটোমেট্রি বিভাগকে আরো সম্প্রসারিত করতে।

ডা. রবিউল হোসেন আশা করেন, আগামীতে শিক্ষার্থীর সংখ্যা আরো বৃদ্ধির পাশাপশি কোর্সটির মানের উন্নয়ন হবে। তিনি একজন চিকিৎসকের সাথে চারজন অপটোমেট্রি থাকার কথা থাকলেও দেশে তার সংখ্যা একেবারে সীমিত বলে উল্লেখ করেন।

অনুষ্ঠানে আগ্রাবাদ মা ও শিশু হাসপাতাল মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ডা. এ এস এম মোশতাক আহমেদ নবাগত ছাত্র-ছাত্রীদের উদ্দেশ্যে বলেন, পড়ালেখায় মনোযোগী হয়ে নিজেকে সুশিক্ষিত ও দক্ষ অপটোমেট্রিস্ট হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। তাহলে দেশ ও জাতি উপকৃত হবে।

অনুষ্ঠানে সমাপনী বক্তব্যে আইসিও’র পরিচালক অধ্যাপক ডা. খুরশীদ আলম নবাগত শিক্ষার্থীদের পরিচিতির পাশাপাশি পেশাগত উৎকর্ষতা অর্জনের জন্য বিভিন্ন দিক নির্দেশনা দেন।