banner

শেষ আপডেট ২৩ জানুয়ারী ২০১৯,  ২২:০৮  ||   বুধবার, ২৩ই জানুয়ারী ২০১৯ ইং, ১০ মাঘ ১৪২৫

২০১৯ সাল আপনার কেমন যাবে

২০১৯ সাল আপনার কেমন যাবে

২৭ ডিসেম্বর ২০১৮ | ২০:০২ |    নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ২০১৯ সাল আপনার কেমন যাবে

৩০ ডিসেম্বর একাদশ সংসদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ। ভোটের ঝঞ্ঝাটে ভুলে যেতে পারেন আপনার রাশিফল মিলিয়ে নিতে।


সৌরজগতে গ্রহের প্রভাবে যেমন জোয়ার-ভাটা বা পুর্ণিমা-অমাবস্যা হয়, ঠিক তেমনই এই সৌরচক্রের প্রতিটি গ্রহের প্রদক্ষিণে শুভ-অশুভ প্রভাব পড়ে আমাদের জীবনে। জ্যোতিষ শাস্ত্র এক জটিল ও বিস্ময়কর বিজ্ঞান। এ নিয়ে লেখালেখি করা অত্যন্ত কঠিন। তবু একটা লেখার প্রয়াস করা। আশা করি প্রতি বছরের মত আসন্ন বছরও, পাঠকদের কিছু সুরাহা হবে। মহান স্রষ্টার প্রতি অগাধ বিশ্বাস রেখে দেওয়া হলো, নতুন বছর – ২০১৯ কেমন যাবে

মেষরাশি (২১ মার্চ – ২০ এপ্রিল)

আপনার রাশির অধিপতি মঙ্গল। এই রাশির জাতক-জাতিকাদের উপর মঙ্গলের প্রভাব খুব বেশী থাকে। একরোখা মনোভাব থাকার ফলে কোনো কিছু করার চিন্তা থাকলে সেটা শেষ না করা অবধি ক্ষান্ত হয় না। কাজটা ভালো বা মন্দ সে বিষয়ে চিন্তা করে না। তবে এই জেদি মনোভাব থাকার ফলে অনেক সময়ই সাফাল্য লাভে সক্ষম হন। বছরটায় উপার্জন বৃদ্ধিযোগ মোটামুটি থাকবে। চাকুরী ক্ষেত্রে একটা অনিশ্চয়তা দেখা দিতে পারে বা পদন্নোতির বিলম্ব ঘটতে পারে। তবে চাকরি ছাড়া একাধিক উপায়ে উপার্জন হবে। ব্যয়বাহুল্যের ফলে খুব একটা সঞ্চয়ের যোগ থাকবে না। মাঝারি ও ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের বিভিন্ন সমস্যার মধ্য দিয়ে চলতে হবে। ঔষধ ব্যবসায় ও মজুত ব্যবসায় লাভবান হতে পারেন। উচ্চশিক্ষার ক্ষেত্রে নানা বাধাবিঘ্ন দেখা দিতে পারে। সঠিক যোগাযোগ ও আর্থিক দিক দিয়ে বিঘ্ন দেখা দিতে পারে। দাম্পত্য জীবন মোটামুটি সুখের বলা যায়। তবে পারিপাশ্বিক কারণে দাম্পত্য খুব একটা স্বাচ্ছন্দের মধ্যে থাকবে না। স্বাস্থ্যভাব ভালোই থাকবে। তবে বছরটায় শরীরের প্রতি সতর্ক থাকা প্রয়োজন। উচ্চরক্তচাপ, মুধুমেহ ও কিডনির রোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভবনা আছে।

শুভরত্ন: প্রবাল। শুভরঙ: লাল। শুভধাতু: তামা। শুভদিক: পুর্বদিক। শুভসংখ্যা: ৯। শুভবার: রবি ও মঙ্গলবার। মিত্ররাশি: সিংহ, তুলা ও ধনুরাশি। শত্রুরাশি: মিথুন ও কন্যারাশি।

বৃষরাশি (২১ এপ্রিল – ২১ মে)

আপনার রাশির অধিপতি শুক্র। বছরটার প্রথমভাগে আর্থিক ও মানসিক নানান কষ্ট পেয়ে থাকবেন। মধ্যভাগ থেকে ভাগ্যোন্নতি ঘটবে। বিদেশী প্রতিষ্ঠানে কাজ নিয়ে দীর্ঘদিন প্রবাসে বা বিদেশে বসবাস করতে পারেন। সুন্দরী নারীর সান্নিধ্য আপনারা পেয়ে থাকেন। এঁদের মধ্যে কোনো কোনো নারী আপনাকে বিপথে চালিত করতে পারে। তবে পারিবারিক সদস্যদের প্রতি ন্যায়বিচার ও শান্তি সমৃদ্ধির দিকে আপনারা খেয়াল রাখেন। চাকুরীক্ষেত্রে সুনাম ও সুখ্যাতি বৃদ্ধি পেলেও আশা-আশঙ্খা অনুযায়ী শুভ নয়। ক্ষেত্র বিশেষ চাকুরীক্ষেত্রে পদোন্নতি, আর্থিক উন্নতি বা নতুন চাকুরী আসতে পারে। প্রতিযোগীতামুলক পরীক্ষায় ভালো ফল লাভ এবং ভালো চাকরি লাভ হবে। ব্যবসা ক্ষেত্রে নানা জটিলতা দেখা দিলেও একাধিক উপায়ে ধনাগমের আশা করতে পারেন। কিছু ক্ষেত্রে অর্থ বিনিয়োগে সুফল পেলেও অর্থ আমাদানিতে বিলম্বের আশঙ্কা থাকবে। শিক্ষার্থীদের ও পরীক্ষার্থীদের বছরটি শুভ বলা যায়। রাজনৈতিক ব্যক্তিদের বছরটি শুভ হলেও বেপরোয়া মনভাব ও বিশেষ কোনো ঝুকির কাজ নেওয়া সম্পর্কে সাবধান থাকা দরকার। কন্যা সন্তানের কৃতিত্বে গর্বিত হতে পারেন। বছরটায় দৈহিক ভাবে শুভ নয়। শারীরিক অসুস্থতা ও পারিকবারিক ঘটনাবলী আপনাকে নানাভাবে বিব্রত করতে পারে। চিকিৎসা ও পারিবারিক কারনে অর্থব্যয় বৃদ্ধি পাবে। যকৃতের রোগ, হাঁটুর ব্যথা ও মধুমেহ রোগেও ভুগত পারেন।

শুভরত্ন: হীরা। শুভরঙ: সাদা। শুভধাতু: প্ল্যাটিনাম। শুভদিক: দক্ষিনদিক। শুভসংখ্যা: ৯। শুভবার: শুক্র ও শনিবার। মিত্ররাশি: মকর ও কুম্ভরাশি। শত্রুরাশি: সিংহ, ধনু ও মীনরাশি।

মিথুন রাশি (২২মে – ২১ জুন) 

আপনার রাশির অধিপতি বুধ। জাতক-জাতিকাদের প্রতিভাগত ব্যপারে ও সৃজনশীল কাজে অনুকুল হতে পারে। এই রাশির মধ্যে যেমন দৃঢ়তা ও কর্মশক্তি রয়েছে তেমনি রয়েছে নম্রতা ও স্নেহ-মমতা। আপনাদের মধ্যে উদারতা ও পরমদুঃখকাতরতা দেখা যায়। যে কোনো অবস্থায় যে কোনো ব্যক্তির সঙ্গে আপনি নিজের প্রভাব বিস্তারে সমর্থন হন। অপরের প্রশংসাবানী আপনাকে বালকের মত উৎফুল্ল করে তোলে। আপনাদের মধ্যে মানসিক দ্বন্দ অত্যন্ন বেশী হওয়ার ফলে কোনো কিছুতেই মনকে স্থির রাখতে পারেন না। আপনাদের রাশির ধনপতি হলেন চন্দ্র। এই রাশির ধনাভাব অনেকটা চন্দ্রের মত ক্ষয় এবং বৃদ্ধিশীল। কখনো প্রচুর ধনাগম হয় আবার অর্থকষ্ট দেখা দেয়। তবে কাউকে সেটা বুঝতে দেন না। বিভিন্ন কর্মপ্রচেষ্টার দ্বারা উপার্জনে সমর্থন হন। বছরটায় চাকুরীর ব্যপারে শুভ ইঙ্গিত আছে। অধ্যাপক ও আইজীবিদের পক্ষে বছরটি নানাভাবে সুযোগ দিতে পারে। চাকুরী ক্ষেত্রে শুভ হলেও ব্যবসায়ীদের একাধিকবার সংকট দেখা দিতে পারে। বৈষয়িক ব্যপারে অশান্তি হতে পারে। বছরটিতে ব্যসায়িক কথাবার্তা সতর্ক ভাবে বলা দরকার। তবে আপনারা ব্যসায়িকভাবেই বেশী প্রতিষ্ঠিত। সন্তান বা পত্নীর স্বাস্থ্য সম্পর্কে সাবধানি থাকা দরকার। আপনাদের সাধারনত স্বাস্থ্য বেশ সুদৃঢ় ও রমণীমোহন হয়ে থাকে। স্নায়ূবিক দুর্বলতা, রক্তহীনতা ইত্যাদি রোগে আক্রান্ত হবার সম্ভবনা প্রবল। দুর্ঘটনাজনিত কারনে আঘাত প্রাপ্তির সম্ভবনাও প্রবল।

শুভরত্ন: পান্না। শুভরঙ: সবুজ। শুভধাতু: সোনা। শুভদিক: পশ্চিমদিক। শুভসংখ্যা: ৫। শুভবার: বুধ ও শুক্রবার। মিত্ররাশি: মেষ, সিংহ, কন্যা ও কুম্ভরাশি। শত্রুরাশি: কর্কটরাশি।

কর্কট রশি (২২ জুন – ২২ জুলাই)  

আপনার রাশির অধিপতি চন্দ্র। চন্দ্র জলরাশি হওয়ার ফলে আবেগ বেশী থাকে। আপনাদের ভাবপ্রবনতা ও কল্পনাশক্তি প্রবল। নমনীয় ও মৌন স্বভাবের বলে সকলকে আকর্ষিত করতে পারেন। মুলত আপনারা ব্যবসা এবং চাকুরী উভয় ক্ষেত্রে অর্থোপার্জন করতে সক্ষম। বছরটায় কঠোর প্ররিশ্রমের মধ্য দিয়ে উপার্জন করতে হবে। তবে শুভাশুভ গ্রহের অবস্থান থাকায় জটিলতার মধ্যে জাতক-জাতিকা কর্মক্ষেত্রে সুযোগ থাকবে। সরকারী বা বেসরকারী প্রতিষ্ঠানে যারা উচ্চপদে রয়েছেন, তাদের দায়িত্ব বৃদ্ধির সম্ভবনা আছে। এসময় কোনো ঝুকির কাজে সতর্ক থাকা প্রয়োজন। পুলিশ, সৈন্যবিভাগের কাজে যারা রয়েছেন তাদেরও দায়িত্ব বৃদ্ধির সম্ভবনা। শিক্ষার্থীদের পরীক্ষায় সাফল্য লাভ হলেও ব্যবসায়ীদের প্রতিযোগীতার সম্মুক্ষীন হতে হবে। চাকুরীক্ষেত্রে উন্নতি হলেও বদলির সম্ভবনা আছে। দাম্পত্য জীবনে পারষ্পরিক সহযোগীতার অভাব দেখা দিতে পারে। সন্তানদের শিক্ষাভাব শুভ হলেও স্বাস্থ্যভাব শুভ নয়। আপনাদের দেহশ্রী সুন্দর হলেও স্বাস্থ্য বিশেষ ভালো যাবে না। শ্লেষ্মা জাতীয় পীড়া বিশেষ কষ্ট দেবে। হজমের সমস্যা কষ্ট দিতে পারে। দুর্ঘটনাজনিত কারনে শয্যাশায়ী হওয়ার সম্ভবনা প্রবল। এছাড়া মস্তিষ্কের রোগ ও রক্তদোষ জনিত রোগ দেখা দিতে পারে।

শুভরত্ন: মুক্তা। শুভরঙ: সাদা ও ক্রীম। শুভধাতু: সোনা, রূপা ও তামা। শুভদিক: পশ্চিমদিক। শুভসংখ্যা: ২। শুভবার: সোমবার। মিত্ররাশি: তুলা, বৃশ্চিক ও মীনরাশি। শত্রুরাশি: মেষ, মিথূন, সিংহ, ধনু, মকর ও কুম্ভরাশি।

সিংহ রাশি (২৩ জুলাই  – ২৩ আগস্ট) 

রাশিচক্রের পঞ্চমরাশি সিংহরাশি। আপনার রাশির অধিপতি রবি। আপনাদের আভিজাত্যের সঙ্গে সৃষ্টিধর্মী শক্তি ও অন্যদের আকর্ষন করার বিশেষ ক্ষমতা থাকে। চন্দ্র ও রবির মধ্যে ক্ষেত্র বিনিময় হলে আপনাদের মধ্যে সৃজনীশক্তি ও প্রতিভার উন্মেষ ঘটে থাকে। প্রভুত্ব ও শাসন ক্ষমতার শক্তি দেয় এই সিংহরাশি। মঙ্গল ও বৃহস্পতির অবস্থান ও প্রভাবে তা বিশেষ নির্ভরশীল। এই রাশির বিরুদ্ধ গ্রহের দ্বারা পীড়িত হলে জাতক স্বার্থান্ধ ও অনিষ্ঠের কারন হয়ে উঠতে পারে। ধনপতি বুধ বিভিন্ন ভাবে আপনাকে অর্থলাভ ঘটাবে। বুদ্ধি ও পরিশ্রম দ্বারা নিজেদের প্রতিষ্ঠা করতে পারবেন। আপনারা অসীম মানসিক শক্তির অধিকারী হয়ে থাকেন। টেকনিক্যল ব্যপারে যারা আছেন তাদের কর্মক্ষেত্রে শুভফল পাবার সম্ভবনা আছে। চাকুরীপক্ষে বছরের শেষাংশ শুভ হতে পারে। ব্যবসায় ও পুজিপতিদের বছরটি নানাভাবে প্রতিকুলতা সৃষ্টি করতে পারে। রাজনীতিতে যারা রয়েছেন তাদের পক্ষে মনের ওপর বিশেষ চাপ পড়তে পারে এবং নিজের উদ্দেশ্য সিদ্ধির পথে বাধা পড়তে পারে। সাহিত্যি ও বিনোদন জগতের কলাকুশলীদের কোনো বিশেষ সুযোগ সুনাম আসতে পারে। স্বজন ও প্রিয়জনের কোনো দুশ্চিন্তার কারন ঘটতে পারে। পরিচ্ছন্ন ও নিয়মানুবর্তীতা থাকলে স্বাস্থ্য অনিন্দনীয় থাকবে। উচ্চরক্তচাপ, মধুমেহ বা চোখের রোগে ভোগার সম্ভবনা আছে।

শুভরত্ন: চুনী বা রক্তবর্নের হীরা। শুভরঙ: সাদা ও হলদে। শুভধাতু: তামা। শুভদিক: পুর্বদিক। শুভসংখ্যা: ৭। শুভবার: রবি ও বুধবার। মিত্ররাশি: মেষ, কন্যা ও ধনুরাশি। শত্রুরাশি: বৃষ, তুলা, মকর ও কুম্ভরাশি।

কন্যারাশি (২৪ আগস্ট – ২৩ সেপ্টেম্বর) 

আপনার রাশির অধিপতি বুধ। আপনাদের আকর্ষনীয় শক্তি আছে। মহত্ত্বের বিকাশই তার সার্থকতা। আপনাদের যেমন পবিত্র, সরলতা ও সদ্বগুনের সক্রিয়তা থাকে তেমনই জন্ম সময়ে বুধ দুর্বল বা ম্রিয়মান থাকলে অশুভ গ্রহের প্রভাবে আপনাদের জীবনে কমনা-বাসনা অনেকটা ত্যাগ করতে হতে পারে। মুলত আপনারা অত্যন্ত সহনাভুতিশীল ও আমোদ আহ্লাদপ্রিয় হয়ে থাকেন। যেকোনো অবস্থার সঙ্গে মোকাবিলা করার প্রভুত ক্ষমতা আপনাদের মধ্যে পরিলক্ষিত হয়। তবে মাঝেমধ্যে আপনাদের মধ্যে উদাসীনতাও প্রকাশ পেয়ে থাকে। আপনাদের বুদ্ধিবৃত্তি সুক্ষ এবং তীক্ষ্ণ হলেও দ্বৈত মানসিকতা থাকায় সঠিক পরিকল্পনা করে উঠতে পারেন না। অভিজ্ঞ ব্যক্তির সৎ বুদ্ধি ও পরামর্শ অনুযায়ী চললে আর্থিক ভাবে লাভবান হবেন এবং আয়বৃদ্ধি পাবে। চাকুরী ক্ষেত্রে আয়বৃদ্ধির সম্ভবনা আছে। ব্যবসায়িক প্রতিযোগীতা বৃদ্ধি পেলেও পরিশ্রমের দ্বারা প্রতিষ্ঠা লাভ করবেন। কিন্তু সাংসারিক জীবনে যেকোনো ভাবে শান্তি বিলম্বিত হতে পারে। পারষ্পরিক সহযোগিতা না থাকলে দাম্পত্য জীবন সুখের হবেনা। সন্তানদের শিক্ষাযোগ শুভ হলেও স্বাস্থ্য নিয়ে উদ্বেগ থাকবে। গলা, ফুসফুস জনিত রোগে ভুগতে পারেন। রক্তচাপ ও শর্করা বৃদ্ধিতে সাময়িক সমস্যা দেখা দিতে পারে।

শুভরত্ন: পান্না। শুভরঙ: সবুজ। শুভধাতু: সোনা ও তামা। শুভদিক: দক্ষিণদিক। শুভসংখ্যা: ৫। শুভবার: রবি ও বুধবার। মিত্ররাশি: মেষ, মিথুন, সিংহ, ও তুলারাশি। শত্রুরাশি: কর্কটরাশি।

তুলারাশি (২৪ সেপ্টেম্বর  – ২৩ অক্টোবর)

আপনার রাশির অধিপতি শুক্র। প্রেম, ভালোবাসার মত পার্থিব ব্যাপারে আপনাদের আসক্তি। সবকাজ নিখুঁত করার দিকে দৃষ্টি থাকে। আপনারা পরিশ্রমী ও কষ্টসহিষ্ণু। আপনাদের স্পষ্টবাদীতা ও ন্যায়নিষ্ঠা অনেক সময় অপরের কাছে অপ্রিয় করে তোলে। আপনাদের চরিত্র বাইরে থেকে বোঝা সম্ভব নয়। তবে আপনাদের বিচার বিশ্লেষন ও লোকচরিত্র বোঝার অসীম ক্ষমতা থাকে। ভবিষ্যৎ ঘটনার ছায়া আপনাদের মনে অনেক আগেই রেখাপাত করে। আপনাদের দায়িত্ববোধ প্রবল থাকে। তাই আপনারা সুখদুঃখ সমান ভাবে গ্রহন করে নিতে পারেন। চাকুরীক্ষেত্রে উচ্চপদে বা গুরুত্বপুর্ণ কাজে রবি ও বুধ বিশেষ সহায়ক ও মর‌্যাদাবৃদ্ধি কারক হবে। নতুন বছরেও ব্যবসাক্ষেত্রে প্রতিযোগীতা থাকবে। উপযুক্ত ব্যক্তির সহযোগীতা ও সমর্থন পাবেন। ব্যবসাক্ষেত্রে শত্রুতার মোকাবিলা করতে হতে পারে। তবে ব্যবসায় বাড়তি অর্থ বিনিয়োগ দ্বারা ব্যবসার প্রসার ঘটাতে হবে। সাংসারিক অশান্তি থাকলেও দাম্পত্য জীবনে সুখী হবেন। উচ্চশিক্ষার ক্ষেত্রে বাধাবিঘ্নের মধ্য দিয়ে আপনার সাফল্য আসবে। সন্তানের কৃতিত্বে গর্বিত হতে পারেন। সাহিত্যিকদের রচনা সম্মান পেতে পারে। আন্ত্রিকপ্রদাহ, শিরায় রক্ত চলাচলের ব্যঘাত এবং পা ও পায়ের পাতা স্বমন্ধে কোনো অসুবিধা দেখা দিতে পারে। পরিবারে কোনো দুর্ঘটনা ঘটার সম্ভবনা আছে। ধৈর‌্য ও সহনশীলতা একান্ত প্রয়োজন।

শুভরত্ন: হীরা। শুভরঙ: সাদা। শুভধাতু: তামা ও রূপা। শুভদিক: পশ্চিমদিক। শুভসংখ্যা: ৬। শুভবার: শুক্রবার। মিত্ররাশি: ধনু, মিথুন, কর্কট ও কুম্ভরাশি। শত্রুরাশি: সিংহরাশি।

বৃশ্চিক রাশি (২৪ অক্টোবর – ২২ নভেম্বর)

আপনার রাশির অধিপতি মঙ্গল। মঙ্গল বাধাবিঘ্নের মধ্যে যুদ্ধ করে মাথা তুলে দাড়াবার শক্তি যোগায়। স্বাধীনতা প্রিয়, আত্মমর‌্যাদা সম্পন্ন ও উচ্চাকাঙ্খী হলেও আপনারা অসিহিষ্ণু হয়ে থাকেন। কর্তব্যে গাফিলতি আপনাদের সহ্য হয়না। বৃহস্পতি শুভ থাকলে আপনারা বিশেষ ভাবে সফল হয়ে থাকেন, কিন্তু মঙ্গল ও বৃহস্পতি জন্মছকে একসাথে অশুভ ঘরে প্রবেশ করলে বিপথে চালিত করতে পারে। আবার শনি শুভ হলে আপনাদের মধ্যে দৈবানুভুতি, প্রেম, ভালোবাসা এবং উদারতা থাকবে। কিন্তু আবার শনি প্রতিকুল হলে আপনারা স্বার্থপর ও প্রতিহিংসাপরায়ণ হয়ে উঠতে পারেন। তবে আপনি সবসময় সাধারনের থেকে উচুতে থাকতে চান। চাকুরীজীবিদের জীবনে বিশেষ কোনো সমস্যা দেখা দিতে পারে। বিজ্ঞানী ও চিকিৎসক ব্যক্তিদের বছরটায়  সুযোগ আসবে। কিন্তু নিজের ও আপনজনের স্বাস্থ্য এবং দাম্পত্য ক্ষেত্রে দুর্ভাবনার কারন ঘটতে পারে। আপনার সচারচর স্পষ্ট কথা বলার জন্য আপনার হিতকারী ব্যক্তিও বিরূপ হয়ে উঠতে পারে। এবিষয়ে সতর্ক থাকবেন। ব্যবসায়ীদের ব্যবসায় প্রতিযোগীতা থাকলেও লাভ হবে। শিক্ষার্থীদের বছরটা শুভ বলা যায়। বছরটায় স্বাস্থ্য ভালো থাকলেও প্রায়শই কোনো না কোনো ব্যধিতে ভুগতে পারেন। মস্তিষ্কে রোগ, মুত্রাশয়ে কষ্ট, পায়ে আঘাত বা পায়ের কোনো ব্যথায় ভোগার সম্ভবনা আছে।

শুভরত্ন: প্রবাল। শুভরঙ: লাল। শুভধাতু: সোনা। শুভদিক: উত্তরদিক। শুভসংখ্যা: ৯। শুভবার: রবি ও মঙ্গলবার। মিত্ররাশি: কর্কট ও মীনরাশি। শত্রুরাশি: মেষ, সিংঞ ও ধনুরাশি।

ধনুরাশি (২৩ নভেম্বর – ২১ ডিসেম্বর)

আপনার রাশির অধিপতি বৃহস্পতি। শুভ গ্রহগুলির ও বৃহস্পতি অনুকুলে থাকলে আপনি সহজে লক্ষ্যপথে এগিয়ে যেতে পারবেন। আপনারা পরিশ্রমী, আদর্শবাদী ও দৃঢ়চেতা হলেও আপনাদের মধ্যে স্নেহ ভালোবাসার দুর্বলতা থাকে। আপনারা অন্যায়কে সহ্য করতে পারেননা বলে অপ্রিয় সত্য কথা বলার ফলে অযথা শত্রু সৃষ্টি করে ফেলেন। আপনাদের খুটিনাটি দিকে বিশেষ লক্ষ্য থাকে। আপনারা স্বাধীন থাকতে পছন্দ করেন। আপনাদের সাহস ও আত্মসম্মান প্রবল থাকে। বাস্তববাদী হলেও আপনাদের উদারতা ও ক্ষমা করার বিশেষ গুনও থাকে। আদর্শবাদ ও খামখেয়ালীপনার জন্য অর্থ উপার্জনে বিঘ্ন ঘটে। কিন্তু নানাবাধা বিপত্তির মধ্যে দিয়ে আপনাদের ভাগ্যন্নোতি হয়ে থাকে। অসদুপায় অর্থোপার্জন আপনাদের প্রকৃতি বিরুদ্ধ। চাকুরীর পাশাপাশি ব্যবসাতেও আপনাদের অর্থাগম হয়ে থাকে। বছরটায় গবেষণাক্ষেত্রেও সম্মান লাভ ঘটবে। উচ্চতর চাকুরীরক্ষেত্রে দায়িত্ববৃদ্ধি এবং রাষ্ট্র সম্পর্কীয় দায়িত্বে থাকলে দুশ্চিন্তাগ্রস্ত থাকতে পারেন। লোকহিতকর কাজের জন্য বিশেষ সুযোগ ও সুনাম বৃদ্ধির যোগ রয়েছে। বিশিষ্টজনের সহায়তায় নতুন কর্মলাভের সম্ভবনা আছে। দাম্পত্য জীবনে শান্তি বজায় থাকবে। বছরটায় ব্যবসায় আশানুরূপ লাভ হবেনা। কোনোভাবে রক্তপাতের সম্ভবনা আছে। তাছাড়া কোষ্ঠবধ্যতা, ফুসফুসের রোগ এবং হাড়বৃদ্ধি প্রভৃতি কারনে শয্যাশায়ী হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

শুভরত্ন: পোখরাজ। শুভরঙ: সাদা, হলুদ ও নীল। শুভধাতু: সোনা, তামা, ব্রোঞ্জ ও সীসা। শুভদিক: পশ্চিমদিক। শুভসংখ্যা: ৩। শুভবার: বৃহস্পতিবার। মিত্ররাশি: সিংহ ও মেষরাশি। শত্রুরাশি: কর্কট, বৃশ্চিক ও মীনরাশি।

মকররাশি (২২ ডিসেম্বর – ২০ জানুয়ারি) 

রাশি বলয়ের দশম রাশি মকর রাশি। আপনার রাশির অধিপতি শনি। শনি প্রকৃতপক্ষে দুঃখযন্ত্রনা থেকে মুক্তি পাবার সংগ্রামী শক্তি যোগায়। কর্তব্য, প্রেম ও সামাজিকতার ব্যপারে আপনারা স্বতন্ত্র। আপনারা পরিশ্রমী অধ্যবসায়ী ও তীক্ষবুদ্ধির অধিকারী হয়ে থাকেন। সংগ্রামীশক্তির সঙ্গে থাকে অর্ন্তদৃষ্টি। সব কাজ নিখুত ভাবে করতে চান। তবে ক্রোধান্বিত হলে হিতাহিত জ্ঞানশুণ্য হয়ে পড়েনে। কিন্তু পরোপকারের বেলায় জাতি-ধর্মের বিচার করে না। জীবন ও জগৎ সম্পর্কে আপনি দার্শনিক ভাব পোষন করে থাকেন। তবে বছরটায় আপনাকে অনেক উত্থান-পতনের মধ্য দিয়ে চলতে হবে। নিজের চেষ্টা ও পরিশ্রমের দ্বারা অর্থোপার্জন করতে পারবেন। আপনি স্বাধীনচেতা হওয়ার ফলে ব্যবসার দ্বারাই অর্থোপার্জনে বেশী আগ্রহী হবেন এবং প্রতিষ্ঠা অর্জন করবেন। চাকুরীক্ষেত্রে বিদেশী প্রতিষ্ঠানের কর্মরতদের বিশেষ উন্নতি ঘটবে। বৃহস্পতির শুভকারতায় হঠাৎ প্রাপ্তিযোগ রয়েছে। শিল্পী, কারিগর ও প্রযুক্তিবিদের কর্মক্ষেত্রে শুভ ইঙ্গিত রয়েছে। চিকিৎসাবিদ্যার বিশেষ শাখায় বুৎপত্তি অর্জন করার সম্ভবনা আছে। দাস্পত্যজীবনে দুর্ভাবনা দেখা দেওয়ার সম্ভবনা আছে। রাজনীতিরক্ষেত্রেও জটিলতা বৃদ্ধি পাবে। জাতিকাদের শিক্ষাক্ষেত্রে অথবা কর্মক্ষেত্রে শুভফল পাবার সম্ভবনা আছে। এবছর স্নায়ুঘটিত দুর্বলতায় ও চর্মরোগে ভোগার আশঙ্কা রয়েছে। জাতিকাদের আভ্যন্তরীন প্রদাহ বিশেষ কষ্ট দিতে পারে, কঠিন অস্ত্রপ্রচারও অসম্ভব নয়।

শুভরত্ন: নীলা। শুভরঙ: কালো ও নীল। শুভধাতু: লোহা ও সীসা। শুভদিক: পশ্চিমদিক। শুভসংখ্যা: ৮। শুভবার:শুক্র ও শনিবার। মিত্ররাশি: কুম্ভরাশি। শত্রুরাশি: সিংহরাশি।

কুম্ভরাশি (২১ জানুয়ারি – ১৮ ফেব্রুয়ারি) 

আপনার রাশির অধিপতি শনি। কুম্ভরাশিগনদের মধ্যে আত্মবিশ্বাস, নিষ্ঠা ও প্রফুল্লতা বিরজা করে থাকে। বুধ, শুক্র ও শনি আপনাদের অনুকুলে থাকলে বিশেষ সাফ্যল্য লাভের শক্তি অর্জন করবেন। আপনারা একাধারে আবদারপ্রিয় ও আত্মভিমানী হয়ে থাকেন। ভোগ ও ত্যাগ উভয় বিষয়ই আপনাদের কাছে সমান গুরুত্ব পেয়ে থাকে। আপনাদের মধ্যে বুধের প্রভাবে সরলতা থাকলেও স্পষ্ট কথা সোজাসুজি বলার ফলে অনেক সময় ক্ষতির সম্মুখীন হয়ে থাকেন। চাকুরীদ্বারা উন্নতি হলেও পাশাপাশি ব্যবসাতেও অর্থাগম ঘটে থাকে। আপনাদের সঞ্চয়ের নেশা প্রবল বলে খুব একটা আর্থিক কষ্ট পেতে হয় না। হঠাৎ প্রাপ্তিযোগে আপনাদের অর্থভাগ্য সুপ্রসন্ন হয়ে থাকে। বছরটায় ভাগ্য উন্নতির দিকে যাবে। ফলে আপনাদের শুভাশুভ লাভ হবে। ব্যবসাক্ষেত্রে দুশ্চিন্তার কারন থাকলেও ধৈর‌্য ও পরিশ্রম দ্বারা প্রতিষ্ঠিত হতে পারবেন। চাকুরীক্ষেত্রেও উন্নতির আশা আছে। শিক্ষক, চিকিৎসক ও প্রযুক্তিবিদদের বছরটায় শুভ ফল দেবে। ব্যয়বাহুল্যের ফলে সাংসারিক অশান্তির বৃদ্ধি পাবে। শরিকিবিবাদের নিষ্পত্তি ও সম্পত্তি পুরুদ্ধার হবার সম্ভবনা আছে। সন্তানের কারনে গর্বিত হওয়ার সম্ভবনা আছে। পত্নীর স্বাস্থ্যের কারনে উদ্বেগ দেখা দিতে পারে। নিজের শারীরিক অবস্থা খুব একটা ভালো যাবে না। রক্তচাপের তারতম্য, জীবানু সংক্রামক ও জ্বরাদিপীড়ায় ভোগার আশঙ্কা আছে।

শুভরত্ন: নীলা। শুভরঙ: কালো, নীল ও আকাশি। শুভধাতু: লোহা ও সীসা। শুভদিক: পশ্চিমদিক। শুভসংখ্যা: ৮।শুভবার: শক্র ও শনিবার। মিত্ররাশি: বৃষ, মকর ও মীনরাশি। শত্রুরাশি: মেষ, কর্কট ও সিংহরাশি।

মীন: (১৯ ফেব্রুয়ারি – ২০ মার্চ)

আপনার রাশির অধিপতি বৃহস্পতি। রাশিকক্ষে চন্দ্র, রবি ও বৃহস্পতির আনুকুল্য বা গুরুত্ব সর্বাপেক্ষা অধিক। আপনাদের স্বাধীনচেতা স্পৃহা প্রবল থাকে। তারসঙ্গে থাকে উদারতা, পরদুঃখকাতরতা ও দয়ালুতা। কারো কাছে মাথানত করা আপনাদের পক্ষে সম্ভব নয়। প্রয়োজনে আপনারা সুখসমৃদ্ধি হেলায় ত্যাগ করতে পারেন। আপনারা ধার্মিক দিকে খুবই উন্নত হয়ে থাকেন। তবে তার সাথে আপনারা যুক্তিকতা দিয়ে বিচার করে থাকেন। আপনাদের বিবেকবুদ্ধি অত্যন্ত সুতীক্ষ্ণ হয়ে থাকে। কর্মবছরের প্রথমাংশে নানা বাধাবিত্তি মধ্য দিয়ে আপনাকে অগ্রসর হতে হবে। তবে ব্যবসা বা চাকুরী উভয় ভাবে উপার্জন করতে পারেন। বেসরকারী চাকুরীতে ক্রমান্বয়ে ছোট থেকে দায়িত্বশীল পদাধিকার লাভ করে থাকবেন। বছরটায় শারীরিক ও পারিবারিক দিক থেকে কষ্ট দিতে পারে। বৃদ্ধদের স্বাস্থ্য সম্পর্কে সতর্ক থাকা দরকার। শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ায় ও উচ্চতর গবেষণারক্ষেত্রে শুভ ইঙ্গিত রয়েছে। বিজ্ঞানচর্চার শিক্ষার্থীরা বিশেষ কৃতিত্ব দেখাতে পারেন। রাজনীতিবিদদের উদ্দেশ্য সফল হবে। দাম্পত্যজীবনে শান্তি বজায় থাকবে। তবুও অবৈধ প্রেমের দিকে আপনি আকৃষ্ট হয়ে থাকেন। কন্ঠ ও ফুসফুস স্বমন্ধীয় অসুখ এবং চর্মরোগে আক্রান্ত হতে পারেন। অস্থিসংক্রান্ত পীড়ায় কষ্ট পাওয়ার আশঙ্কা আছে।

শুভরত্ন:: পোখরাজ, চুনী ও রক্তপ্রবাল। শুভরঙ: হলুদ, গোলাপী ও হালকা মেরুন। শুভধাতু: সোনা ও তামা। শুভদিক: উত্তরদিক। শুভসংখ্যা: ৩। শুভবার: শুক্রবার। মিত্ররাশি: সিংহ, মেষ ও বৃশ্চিকরাশি। শত্রুরাশি: মিথুন ও কুম্ভরাশি।