banner

শেষ আপডেট ১২ ডিসেম্বর ২০১৮,  ২০:০৯  ||   বৃহষ্পতিবার, ১৩ই ডিসেম্বর ২০১৮ ইং, ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৫

গাজীপুরের নুহাশ পল্লীতে হুমায়ূন আহমেদের জন্মদিন পালন

গাজীপুরের নুহাশ পল্লীতে হুমায়ূন আহমেদের জন্মদিন পালন

১৩ নভেম্বর ২০১৮ | ২২:০১ |    নিজস্ব প্রতিবেদক
  • গাজীপুরের নুহাশ পল্লীতে হুমায়ূন আহমেদের জন্মদিন পালন

গাজীপুর জেলা প্রতিনিধি : নানা আয়োজনে ভালোবাসা ও শ্রদ্ধায় জনপ্রিয় ও নন্দিত কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের ৭০তম জন্মদিন পালন করা হয়েছে।মোমবাতি প্রজ্জ্বলন, কবরে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা, কেক কেটে ও পায়রা উড়িয়ে আজ ১৩ নভেম্বর মঙ্গলবার সকালে গাজীপুরের নুহাশ পল্লীতে প্রয়াত হুমায়ূন আহমেদের জন্মদিন উদযাপন করা হয়।
জন্মদিন উপলক্ষে গাজীপুর সদর উপজেলার পিরুজালী এলাকায় অবস্থিত নুহাশ পল্লীতে সোম দিবাগত রাত ১২টা ১ মিনিটে মোমবাতি প্রজ্জ্বলন করা হয়। মঙ্গলবার সকালে হুমায়ূন আহমেদের স্ত্রী মেহের আফরোজ শাওন, তাদের দুই ছেলে নিশাদ ও নিনিতসহ স্বজন এবং ভক্তদের নিয়ে কেক কাটেন এবং হুমায়ূন আহমেদের কবরে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন, কবর জিয়ারত ও দোয়া করেন।
কবর জিয়ারত শেষে মেহের আফরোজ শাওন সাংবাদিকদের বলেন, ‘হুমায়ূন আহমেদ আছেন এখানে, নুহাশ পল্লীতে। হুমায়ূন আহমেদের আলোয় আসলে গাজীপুরটাও আলোকিত হয়ে আছে, নুহাশ পল্লী আলোকিত হয়ে আছে। এক অর্থে বলব, বাংলাদেশ আলোকিত হয়ে আছে।’
তিনি বলেন, ‘দূর-দূরান্ত থেকে যারা হুমায়ূন আহমেদের কবর জিয়ারত করতে আসেন তারা সবাই রাস্তার কথাটা সবসময় বলেন। রাস্তার বিষয়টি আমরা প্রতিবারই আশা করি। কিছু দূর ঠিক হয় আবার পরবর্তী বর্ষায় দেখা যায় রাস্তাটা নষ্ট হয়ে যায়, আবার ভেঙে যায়। চলাচলের খুব অসুবিধা হয়। আমার মনে হয় যে, হুমায়ূন আহমেদের এই স্বপ্নের নুহাশ পল্লী পর্যন্ত আসার রাস্তাটি তথা এলাকার রাস্তাটির দিকে একটু নজর রাখা উচিত। হুমায়ূন আহমেদের ভক্তদের দিকে তাকিয়ে এটুকু করা উচিত। কারণ প্রতিদিন অসংখ্য হুমায়ূন ভক্ত এখানে আসেন।’
এদিকে, সকালে গাজীপুর হিমু পরিবহনের ২০ জন হিমু গাজীপুর শহর থেকে বাইসাইকেল নিয়ে নুহাশ পল্লীতে আসেন। তারা হুমায়ূন আহমেদের কবরে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবদেন করেন।
উল্লেখ্য, সাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদ ১৯৪৮ সালের ১৩ নভেম্বর নেত্রকোনার কেন্দুয়া থানার কুতুবপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। দূরারোগ্য ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে ২০১২ সালের ১৯ জুলাই তিনি মৃত্যুবরণ করেন। পরে গাজীপুরের নুহাশ পল্লীতে তাকে সমাহিত করা হয়।

গাজীপুরে বনের জমিতে ‘নুহাশ পল্লী’
গাজীপুরে নন্দিত কথাসাহিত্যিক প্রয়াত হুমায়ূন আহমেদের নুহাশ পল্লীর ভেতরে ও প্রবেশপথে বন বিভাগের জমি রয়েছে দাবি করে সাইনবোর্ড টাঙানো হয়েছে।
জেলার রাথুরা রেঞ্জের বন কর্মকর্তা মোঃ মোশারফ হোসেন ভুঁইয়া বলেন, “ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নির্দেশে এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।”
১৩ নভেম্বর মঙ্গলবার হুমায়ূনের ৭০তম জন্মদিনে তার স্ত্রী মেহের আফরোজ শাওন সাংবাদিকদের বলেন, ‘হুমায়ুন আহমেদ ১৯৯৬ সালে যখন ওই জমিতে নুহাশ পল্লী গড়ে তোলেন তখন কেউ বলেনি যে এখানে বনের জমি রয়েছে।’
“এখন বনবিভাগ বলছে, নুহাশ পল্লীর শূন্য দশমিক ৬০ একর জমি তাদের। সংরক্ষিত বনভূমি উল্লেখ করে একটা সাইবোর্ড ও তাদের বেড়া দেওয়া হয়েছে। এছাড়া তারা প্রবেশপথে গর্ত খুঁড়েছে।”
বনবিভাগ এত দিন বিষয়টি দেখেনি কেন, এখন কিভাবে তাদের নজরে এল এ বিষয়ে বিস্তারিত বলতে পারেননি বন কর্মকর্তা মোশারফ।
শাওন বলেন, “জমি কেনার পর হুমায়ূন আহমেদ ১৯৭১ সাল স্মরণে রাখতে বিভিন্ন এলাকা থেকে এনে ৭১টি উন্নত প্রজাতির আমগাছ নিজ হাতে লাগিয়েছেন, যাদের বয়স এখন প্রায় ২২ বছর। এটা নিয়ে আমরা খুবই আবেগতাড়িত হয়ে পড়েছি।”