banner

শেষ আপডেট ৯ ডিসেম্বর ২০১৮,  ২৩:২০  ||   সোমবার, ১০ই ডিসেম্বর ২০১৮ ইং, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৫

১৪৩ রানে অল-আউট হয়ে গেল স্বাগতিক বাংলাদেশ

১৪৩ রানে অল-আউট হয়ে গেল স্বাগতিক বাংলাদেশ

৪ নভেম্বর ২০১৮ | ১৯:৩২ |    নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ১৪৩ রানে অল-আউট হয়ে গেল স্বাগতিক বাংলাদেশ

একেই হয়তো বলে ‘ভাবলাম এক আর হলো আরেক!’ জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে বাংলাদেশের এমন পারফর্মেন্স কেউ কল্পনা করেছে? সেই অকল্পনীয় ঘটনাই আজ ঘটল সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে। ম্যাচের দ্বিতীয় দিনের শেষ দুই সেশন শেষ না হতেই ১৪৩ রানে অল-আউট হয়ে গেল স্বাগতিক বাংলাদেশ। অভিষিক্ত আরিফুল হক খেলেছেন সর্বোচ্চ ৪১ রানের অপরাজিত ইনিংস। সফরকারীদের থেকে ১৩৯ রানে পিছিয়ে রইল মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের দল।

দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নেমে দ্বিতীয় দিন শেষে জিম্বাবুয়ের স্কোর বিনা উইকেটে ১ রান। হ্যামিল্টন মাসাকাজা ১ ও ব্রায়ান চারি ০ রানে অপরাজিত আছেন।

আজ রবিবার সিলেট টেস্টে নিজেদের প্রথম ইনিংসে দলীয় ১৯ রানের মধ্যে ৪ ব্যাটসম্যানকে হারায় বাংলাদেশ। শুরুটা হয়েছে ইনফর্ম ইমরুল কায়েসকে দিয়ে। লাঞ্চের পরপরই দলীয় ৮ রানে চাতারার বলে বোল্ড হয়ে যান তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে দুটি সেঞ্চুরি এবং একটি ৯০ রানের ইনিংস খেলা ইমরুল কায়েস (৫)।

ইমরুল কায়েসের পর অপর ওপেনার লিটন দাসও হতাশ করেন। ইমরুল আউট হওয়ার ৬ রানের ব্যবধানে জার্ভিসের বলে উইকটকিপার চাকাভার গ্লাভসবন্দি হলেন লিটন (৯)। নাজমুল হোসেন শান্ত আবারও ব্যর্থ। মাত্র ৫ রান করে চাতারার বলে চাকাভার গ্লাভবন্দি হন। এমন বিপদে হাল ধরার অন্যতম যোগ্য মানুষটি হলেন অধিনায়ক মাহমুদ উল্লাহ রিয়াদ। কিন্তু চাতারার বলে ‘ডাক’ মেরেই প্যাভিলিয়নে ফিরেন বাংলাদেশ অধিনায়ক।

এরপর দলের হাল ধরার চেষ্টা করছিলেন মুমিনুল হক এবং মুশফিকুর রহিম। কিন্তু জুটিতে ৩০ রান আসতেই ছন্দপতন। ‘টেস্ট স্পেশালিস্ট’ খ্যাত মুমিনুল হক মাত্র ১১ রান করে শিকার হলেন সিকান্দার রাজার। যার ওপর সবচেয়ে বেশি ভরসা করা যায়, সেই ‘মি. ডিপেন্ডেবল’ খ্যাত মুশফিকুর রহিমও কোনো ভরসা দিতে পারেননি। ৩১ রান করে চাকাভার গ্লাভসবন্দি হযেছেন জার্ভিসের বলে। ব্যাটিংয়ের লম্বা সুযোগ কাজে লাগাতে না পেরে উইলিয়ামসের বলে কট অ্যান্ড বোল্ড হয়েছেন মেহেদী মিরাজ (২)।

তাইজুল ইসলাম ‘নাইটওয়াচম্যান এর ভূমিকা রাখতে পারেননি। ৮ রান করে আউট হয়েছেন সিকান্দার রাজার বলে চাকাভার গ্লাভসবন্দি হয়ে। শর্টে ক্যাচ দিয়ে রাজার তৃতীয় শিকার হন নাজমুল ইসলাম অপু (৪)। অভিষিক্ত আরিফুল হক বেশ ভালোই খেলছিলেন। কিন্তু সঙ্গী পেলেন না। আবু জায়েদ (০) রান-আউট হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে শেষ হলো বাংলাদেশের ইনিংস। ৪১ রানে অপরাজিত রইলেন আরিফুল।

জিম্বাবুয়ের হয়ে ৩টি করে উইট নিয়েছেন চাতারা এবং সিকান্দার রাজা। ২ উইকেট নিয়েছেন জার্ভিস আর শন উইলিয়ামস নিয়েছেন ১ উইকেট।

এর আগে টসে জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে প্রথম ইনিংসে ২৮২ রানে অল-আউট হয় জিম্বাবুয়ে। ১৭৩ বলে ৯ বাউন্ডারিতে ৮৮ রানের দারুণ এক ইনিংস খেলেন উইলিয়ামস। ৫২ রান করেন অধিনায়ক হ্যামিল্টন মাসাকাদজা। পিটার মুর অপরাজিত থাকেন ৬৩ রানে। ৩৯.৩ ওভার বোলিং করে মাত্র ২.৭৩ ইকনোমিতে ১০৮ রান দিয়ে ৬ উইকেট নিয়ে বাংলাদেশে সেরা বোলার তাইজুল ইসলাম। এছাড়া অপর স্পিনার অভিষিক্ত নাজমুল ইসলাম নেন ২ উইকেট। ১টি করে উইকেট নেন অভিষিক্ত আবু জায়েদ এবং অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ।