banner

শেষ আপডেট ১০ ডিসেম্বর ২০১৮,  ২১:০২  ||   সোমবার, ১০ই ডিসেম্বর ২০১৮ ইং, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৫

বিএসটিআই চট্টগ্রাম আঞ্চলিক অফিসের উদ্যোগে ৪৯তম বিশ্বমান দিবস উদযাপন

বিএসটিআই চট্টগ্রাম আঞ্চলিক অফিসের উদ্যোগে ৪৯তম বিশ্বমান দিবস উদযাপন

১৫ অক্টোবর ২০১৮ | ১৮:৪৫ |    নিজস্ব প্রতিবেদক
  • বিএসটিআই চট্টগ্রাম আঞ্চলিক অফিসের উদ্যোগে ৪৯তম বিশ্বমান দিবস উদযাপন
প্রেস বিজ্ঞপ্তিঃ   ১৪ অক্টোবর’২০১৮- ৪৯তম বিশ্বমান দিবস উদযাপন উপলক্ষে বিএসটিআই চট্টগ্রাম আঞ্চলিক অফিসের উদ্যোগে ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারের ‘বঙ্গবন্ধু কনফারেন্স হল’-এ এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভায় দি চিটাগাং চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রিজ এর প্রেসিডেন্ট মাহবুবুল আলম প্রধান অতিথি হিসাবে তাঁর বক্তব্যে বলেন,Different quality for different countries, Quality depends on money। তিনি খাদ্যপণ্য, শিশু খাদ্য ও ড্রিংকিং ওয়াটারের ক্ষেত্রে গুনগত মানের বিষয়ে কোন রকম ছাড় না দেওয়ার জন্য ব্যবসায়ী ও বিএসটিআইকে অনুরোধ করেন। এছাড়া তিনি আগামী এক বছরের মধ্যে বিএসটিআই চট্টগ্রামকে সব পণ্যের মান পরীক্ষণ সক্ষমতা অর্জনের জন্য পরামর্শ প্রদান করেন। তিনি বিএসটিআইকে আধুনিকীকরণে চেম্বারের পক্ষে থেকে সকল ধরনের সহযোগীতারও আশ্বাস দেন। তিনি ডিজিটাল প্রযুক্তির এ যুগে অনলাইনে কেনা-কাটায় গ্রাহক প্রতারনা রোধে কার্যকর উদ্যোগ নেবার এবং এখাতে নীতি প্রণয়ণের জন্য সরকারের কাছে দাবি জানান।
বিশেষ অতিথি কনজুমার এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ক্যাব), চট্টগ্রাম এর সভাপতি এস এম নাজের হোসাইন বলেন যে, বর্তমান ডিজিটাল বাংলাদেশ বির্নিমানে শিল্প বিপ্লবে উদ্যোক্তা ও ব্যবসায়ীরা অগ্রণী ভূমিকা রাখছে। বাংলাদেশে উৎপাদিত ওষুধ, বেকারী, গামের্ন্টসসহ বিভিন্ন পণ্য পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে রূপ্তানি হচ্ছে, যা দেশের অর্থনীতির ভিতকে মজবুত করছে। তবে সমাজে ফেয়ার ট্রেড(ন্যায্য ব্যবসা) প্রসার ঘটলে প্রকৃত ব্যবসায়ীরা উপকৃত হবেন, একই সাথে ভোক্তারাও লাভবান হবেন। প্রসাধন সামগ্রী, ইলেকট্রিক এন্ড ইলেকট্রিক্যাল সামগ্রী, ডিজিটাল সিকিউরিটি উপকরণসহ সব ধরনের মানহীন পণ্যে বাজার সয়লাব। এ ধরনের মানহীন ও নিন্মমানের ভোগ্য পণ্যের বিরুদ্ধে প্রচলিত আইনে ব্যবস্থা নিয়ে গুণগত মানসম্পন্ন পণ্যের বাজার সম্প্রসারণে ভূমিকা রাখার জন্য ব্যবসায়ী, বিএসটিআইকে অনুরোধ করেন। একই সাথে ভোক্তারা যাতে মানসম্পন্ন পণ্য যাচাই-বাছাই করে কিনতে পারে সে বিষয়ে সক্ষমতা তৈরীতে উদ্যোগ নেবার আহবান জানান। 
সভাপতির ভাষণে বিএসটিআই আঞ্চলিক অফিস, চট্টগ্রাম এর পরিচালক প্রকৌশলী মোঃ সেলিম রেজা বলেন অশুল্ক বাঁধা অতিক্রম করতে আন্তর্জাতিক মান অনুসরণ করতে হয়। যে সকল শিল্পোদ্যোক্তা পণ্যের যথাযথ মান বজায় রেখে পণ্যের উৎপাদন, বিক্রয় ও বিপণণ করেন তারাই বিশ্ব বাজারে সমাদৃত হন। বিএসটিআই আন্তর্জাতিক মানের সাথে সামঞ্জস্য রেখে পণ্যের মান প্রনয়ন করে এবং ভেজাল বিরোধী অভিযান, সার্ভিল্যান্স টিম ও ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনাসহ বিবিধ কার্যক্রম গ্রহণ করে থাকে যার ফলে বিএসটিআই’র কার্যক্রম সম্পর্কে জনমনে ইতিবাচক প্রভাব পড়েছে।
ভোক্তাদের জন্য মান সম্পন্ন পণ্য নিশ্চিত করার জন্য প্রশাসন ও বিএসটিআই যৌথভাবে কাজ করে যাচ্ছে। ভেজাল পণ্য উৎপাদনকারীদের সাথে কোনরূপ আপোষ করা হবে না। ভেজাল পণ্য উৎপাদনকারীদের সচেতন ও সংশোধনের লক্ষ্যে তাদের বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার মাধ্যমে অভিযান অব্যহত রাখা হবে।
অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম চেম্বারের ভাইস প্রেসিডেন্ট সৈয়দ জামাল আহমদ, পরিচালক কামাল মোস্তফা, অঞ্জন শেখর দাশ, বনফুল এন্ড কোং এর জেনারেল ম্যানেজার আমানুল আমান, সিএন্ড এফ এসোসিয়েশন এর আইন সম্পাদক জয়নাল আবেদিন (রানা),  চট্টগ্রাম ড্রিংকিং ওয়াটার ম্যানুফ্যাকচারার্স এসোসিয়েশন এর সাধারণ সম্পাদাক য়সাল আবদুল্লাহ্ আদনান, ক্যাব চট্টগ্রাম মহানগরের যুগ্ন সম্পাদক তৌহিদুল ইসলাম, ক্যাব ডিপিও জহিরুল ইসলাম, কামাল বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি খালেদ খানসহ বিভিন্ন শিল্প কারখানার মালিক/প্রতিনিধিগণ। তাঁরা সকলে বিএসটিআইকে আরো আধুনিক ও গতিশীল করে সেবার মান উন্নত করার ব্যাপারে বিভিন্ন পরামর্শ প্রদান করেন।
সভায় বিএসটিআই চট্টগ্রাম আঞ্চলিক অফিসের পরিচালক জনাব ইঞ্জিঃ মোঃ সেলিম রেজা তাঁর স্বাগত ভাষণে দেশের শিল্পায়ন তরান্বিত করার স্বার্থে উৎপাদনকারীদেরকে পণ্য উৎপাদনে যথাযথ মান অনুসরণ করার বিষয়ে তাগিদসহ উপস্থিত সকলকে ধন্যবাদ প্রদানের মাধ্যমে সভার সমাপ্তি ঘোষণা করেন।