banner

শেষ আপডেট ১৪ নভেম্বর ২০১৮,  ১১:৩৩  ||   বুধবার, ১৪ই নভেম্বর ২০১৮ ইং, ৩০ কার্তিক ১৪২৫

হাটহাজারীতে সরকারি জায়গায় ঝুঁকিপূর্ণ বহুতল ভবন নির্মাণের পাঁয়তারা!

হাটহাজারীতে সরকারি জায়গায় ঝুঁকিপূর্ণ বহুতল ভবন নির্মাণের পাঁয়তারা!

১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮ | ১৭:৩৪ |    নিজস্ব প্রতিবেদক
  • হাটহাজারীতে সরকারি জায়গায় ঝুঁকিপূর্ণ বহুতল ভবন নির্মাণের পাঁয়তারা!

মোহাম্মদ আলী, হাটহাজারী: বৈধ কোন অনুমতি ছাড়া দুই শ্রমিক নেতার বিরুদ্ধে হাটহাজারী পৌরসভাধীন বাসস্ট্যান্ড মোড়ে সরকারি জায়গায় ঝুঁকিপূর্ণ বহুতল ভবন নির্মাণের পাঁয়তারার অভিযোগ উঠেছে। অভিযুক্ত এ নেতারা হলেন হাটহাজারী-নাজিরহাট-খাগড়াছড়ি বাস শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মোঃ জসিম ও সম্পাদক মোঃ হারুন। ভবন নির্মাণ বন্ধে সংগঠনটির শ্রমিকরাই তাদের বিরুদ্ধে হাটহাজারী উপজেলা নির্বাহী অফিসার, চট্টগ্রাম সড়ক ও জনপদ বিভাগ, পৌর প্রশাসক, সহকারী কমিশনার (ভূমি), বিদ্যুত উন্নয়ন ও বিতরণ বিভাগ, বাস শ্রমিক ইউনিয়ন বরাবর তাদের বিরুদ্ধে লিখিত এ অভিযোগ দায়ের করেন। অগ্রিম কোটি টাকা নিয়ে দোকান বরাদ্ধ ও ভবন নির্মাণকে কেন্দ্র করে শ্রমিকদের মধ্যে সংঘর্ষের আশংকাও করা হচ্ছে।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, শ্রমিক ইউনিয়নের পুরাতন কার্যালয়টি ভেঙ্গে হাটহাজারী বাসস্টেশন মোড়ে পিডিবির খুঁটি সংলগ্ন সড়ক ও জনপদ বিভাগের জায়গা দখল করে মাত্র একশতক জায়গার উপর ৫তলা বিশিষ্ট একটি ভবন নির্মাণের পাঁয়তারা করছেন শ্রমিক নেতা মো. জসিম ও হারুন। ইমারত নির্মাণ আইন লঙ্গন করে ও শ্রমিকদের না জানিয়ে ঝুঁকিপূর্ণ এ ভবন নির্মাণ করে তা ভাড়া দিতে গোপণে একাধিক গ্রাহক থেকে প্রায় কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন তারা।
জানতে চাইলে শ্রমিক নেতা মোঃ জসিম ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ হারুন জানান, সরকারি জায়গায় আমরা কোন ভবন করছি না। শ্রমিক ইউনিয়নের মাত্র এক কড়া জায়গার উপর ৫তলা একটি ভবন নির্মাণের জন্য পৌরসভায় আবেদন করা হয়েছে। কার্যকরী পরিষদ ও শ্রমিকদের মতামত নিয়ে রেজুলেশন করে ভবন নির্মাণের জন্য পুরাতন কার্যালয়টি ভাঙ্গা হয়েছে। পৌর কর্তৃপক্ষ অনুমতি দিলে নতুন ভবন নির্মাণের কাজ শুরু করবো। আমরা কারো থেকে দোকান বরাদ্ধের জন্য আর্থিক কোন লেনদেন করিনি। গুটি কয়েক শ্রমিক অহেতুক আমাদের বিরুদ্ধে এ নিয়ে অপপ্রচার চালাচ্ছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে পৌরসভার প্রকৌশলী মোঃ বেলাল আহমেদ খাঁন বলেন, শ্রমিক ইউনিয়নের পক্ষ থেকে ৫তলা ভবন নির্মাণের একটি আবেদন পেয়েছি। তবে আইন অনুযায়ী এত অল্প পরিমাণ জায়গায় নিয়ম অনুযায়ি ৫তলা ভবন নির্মাণ করা যায় না। আবার ভবন নির্মাণের বিরুদ্ধেও একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও পৌরসভা প্রশাসক আক্তার উননেছা শিউলী বলেন, একটি অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।