banner

শেষ আপডেট ২৩ জুলাই ২০১৮,  ২১:০৪  ||   সোমবার, ২৩ই জুলাই ২০১৮ ইং, ৮ শ্রাবণ ১৪২৫

পুরুষের শরীর ফিট রাখবে যে খাবার

পুরুষের শরীর ফিট রাখবে যে খাবার

১৭ ফেব্রুয়ারী ২০১৮ | ১২:০১ |    নিজস্ব প্রতিবেদক
  • পুরুষের শরীর ফিট রাখবে যে খাবার

লাইফস্টাইল ডেস্ক: নারী ও পুরুষের দেহের গঠন দেখতে প্রায় এক হলেও অভ্যন্তরীণ গঠনে রয়েছে অনেক পার্থক্য। তাছাড়া নারী ও পুরুষের দৈহিক কাজের ধরন, শক্তির চাহিদা, সব কিছুই আলাদা। কিছু কিছু ক্ষেত্রে পুরুষের কর্মক্ষমতা বজায় রাখতে ও শরীর ফিট রাখতে প্রয়োজন বিশেষ যত্ন। আর শরীর ফিট রাখতে পারেন শুধুমাত্র কিছু খাবার থেকেই। আসুন তাহলে জেনে নিই কোন কোন খাবার থেকে আপনি পেতে পারেন শরীর ফিট রাখার মন্ত্র।

দই: শরীর ভালো রাখতে দই বিশেষভাবে কাজ করে। দইয়ে থাকা ব্যাকটেরিয়া শরীরের জন্য বেশ উপকারী এবং বয়সের কারণে হওয়া রোগগুলো প্রতিরোধে দই বিশেষভাবে কাজ করে। দইয়ে ক্যালসিয়ামও থাকে, যা প্রোটিনের ভালো উৎস। প্রয়োজনীয় ব্যাকটেরিয়া হজমে সাহায্য করে। এতে রিবোফ্লাবিন, ফসফরাস ও ভিটামিন১২ রয়েছে।

বাদাম: বাদাম কমবেশি সবারই খুব প্রিয়। সুস্বাস্থ্যের জন্য প্রতিদিন খাদ্য তালিকায় বাদাম রাখা জরুরি। বাদামে দরকারি ভিটামিন ও পুষ্টি আছে। বাদাম খেলে ভালো থাকে পুরুষের শরীর।

মাছের তেল: প্রতিদিন খাদ্য তালিকায় মাছ রাখা জরুরি। মাছের তেলে রয়েছে ওমেগা-৩ ফ্যাটি এসিড, যা শরীরের কোষের প্রদাহের বিরুদ্ধে লড়াই করে এবং ঠিকমতো চালাতে সাহায্য করে। মাছের তেলে আছে উচ্চমাত্রার হজমে সহায়ক প্রোটিন। এটি ত্বকের বলিরেখা দূর করে এবং বয়সের ছাপ কমায়।

অ্যাভাকোডা: পুষ্টিকর ফলগুলোর মধ্যে অ্যাভাকোডা অন্যতম। কেননা এর মধ্যে আছে নানা ঔষুধি গুণও। রয়েছে প্রচুর প্রোটিন, খনিজ পদার্থ, ভিটামিন ‘এ’, ‘সি’, ‘ই’ ও ‘কে’। এছাড়া অ্যাভাকোডায় আছে ভালো কোলেস্টেরল, যা শরীরের জন্য ক্ষতিকর কোলেস্টেরল কমায়। অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট হিসেবেও কাজ করে।

টমেটো: টমেটোর আছে নানা গুণ। এতে আছে ভিটামিন ‘এ’, যা আমাদের ত্বক সুন্দর রাখে। স্কার্ভি রোগ প্রতিরোধ করে ভিটামিন ‘সি’। প্রতি ১০০ গ্রাম টমেটো থেকে শক্তি পাওয়া যায় প্রায় ২০ ক্যালরি। লাইকোপেন নামের এক ধরনের শক্তিশালী অ্যান্টিঅক্সিডেন্টের উপস্থিতির কারণে টমেটোর রং লাল হয়। আর লাইকোপেন ক্যান্সার প্রতিরোধ করে।

গ্রিন টি: তারুণ্য ধরে রাখতে গ্রিন টি বা সবুজ চায়ের কদর দিন দিন বাড়ছে। সবুজ চায়ে রয়েছে একাধিক পুষ্টি উপাদান ও খনিজ পদার্থ। যেমন অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, যা ভাঁজহীন ত্বক ও অভ্যন্তরীণ অবস্থা ভালো রাখতে সাহায্য করে।

তবে কারো শারীরিক সমস্যা থাকলে প্রথমে চিকিৎসকের সাথে আলোচনা করে নিন।  তারপর পরামর্শ অনুযায়ী খাবার গ্রহণ করুন।