banner

শেষ আপডেট ২২ অক্টোবর ২০১৯,  ১৯:৫৯  ||   মঙ্গলবার, ২২ই অক্টোবর ২০১৯ ইং, ৭ কার্তিক ১৪২৬

দেশের বিচার ব্যবস্থার কারনেই মাদকের বিস্তার

দেশের বিচার ব্যবস্থার কারনেই মাদকের বিস্তার

১০ নভেম্বর ২০১৭ | ১৯:৩৩ |    নিজস্ব প্রতিবেদক
  • দেশের বিচার ব্যবস্থার কারনেই মাদকের বিস্তার

প্রতিদিনিই এই সর্বনাশা মাদকের ভয়াভহ সিংস্র থাবায় ধ্বংশ হচ্ছে নব তরুন বিশ্ব প্রজম্ম।এই থেকে রেহাই পাচ্ছে না অনেক শ্রেনী পেশার মানুষ।এই বিসাক্ত মরন নেশাটির জন্যই হয়রানী হচ্ছে আইনশৃংখলা বাহিনী।অনেক অনেক নব যবুক যুবতী জডিয়ে পডছে ইয়াবা ফিলিংক্সে।মাঝে মাঝে শুনতে পারি আইন মন্ত্রনালয় ইয়াবা নিয়ে আইন পাশ করেছে।বুজালাম তাতে কি প্রমান হল দেশের আইন শৃংখলা বাহিনী ও সরকারের ব্যর্থতা।হাজার হাজার পিজ ইয়াবা, ফেনিসিডিল,কোকেন ইত্যাদি মামলার জামিন দিচ্ছে উচ্চ আদালত। আবার ও প্রমান হল দেশের বিচার ব্যবস্থা ও এর কাছে ব্যর্থ।তা না হলে এই রকম নেশার গতি রাস্ট্রের ব্যক্তিগত শক্তির গায়ে ও আঘাত হানছে।আমরা এই পর্যন্ত দেখে আসলাম দেশের কোন ইতিহাসে নেই মাদক বন্দ করে মাদক নির্মুল করতে পারলো??পারেনি,,তেমনি বাস্তবতা মেনে নিতে হবে আমাদের ও। দেশের এটা কেমন যেন বিশাল আয়ের অংশ।যারাই সরকার ঘঠন করেছে তারাই ব্যর্থ হয়েছে।আরেক দিকে কিছু কিছু অপ রাজনীতিবিদরা মাদকের ব্যবসা অপরাধের রমরমা মাস্তীতে।কিছু কিছু কুলাঙ্গার প্রশাসন এই মাদকে ইসু করে কালো ধান্দা করে করছে, করছে বাড়ি গাড়ী। যে যেই ভাবে পারছে সে সেই ভাবে ফায়দা লুটছে।আবারো কিছু কিছু ভুয়া সাংবাদিক তারাতো রীতিমত দেশের কি যেন ছিড়তে পারে।তা হলে এর পরে যখন সব মগ্ন। কি ভাবে এই সব নির্মুল করবে।বিচার ব্যবস্থা দুর্বল না করে এমন হওয়া উচিত।যেন ইয়াবা পাওয়ার সাথে সাথে পায়ে গুলি।তা হলে দেখবেন দেশের মানবাধিকার সংস্থা গুলো কি কি ছেডা তোলপাড় হয়ে যাচ্ছে।সব দিকে সব স্থানে কত জ্বালা পোড়া।তার পর ও ভেবে দেখবেন কি ভাবে শিকড় থেকে নির্মুল করা যায়।সুস্থ সুন্দর সু শিক্ষিত জাতীর কথা বিবেচনা করে আমরা করে মাদক দ্রব্য নিয়ন্রয়ন অধিদপ্তর সহ সকল প্রকার প্রসাশন নীতিবাচক ভুমিকা রাখার পাশাপাশি প্রত্যেক নাগরিকের সচেন নাগরিকতা বজায় রেখে এক সাথে সবাইকে নিয়ে কাজ করলে সম্ভব হতে পারে।